kalerkantho

বুধবার । ২৫ জানুয়ারি ২০১৭ । ১২ মাঘ ১৪২৩। ২৬ রবিউস সানি ১৪৩৮।


আমরা আমাদের স্বপ্নে ফিরতে চাই

১৯ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



যে সমৃদ্ধি ও ভালো থাকার স্বপ্ন নিয়ে আমরা এ দেশ স্বাধীন করেছিলাম, সেই স্বপ্ন বারবার ভূলুণ্ঠিত হয়েছে। যিনি স্বপ্ন দেখিয়েছিলেন, যিনি স্বপ্ন দেখতে শিখিয়েছিলেন, তাঁকেই আমরা মেরে ফেলেছি, এমন অবস্থায় এ দেশ থেকে আমরা কী-ই বা আশা করতে পারি।

ঘন ঘন রাজনৈতিক ক্ষমতার হাতবদল ও দুর্নীতির কারণে দেশের উন্নয়ন বারবার বাধাগ্রস্ত হয়েছে। আমরা সিদ্ধান্তহীনতায় ভুগেছি। আর তারা তার সুযোগ নিয়েছে। তারা রক্ত চেয়েছে। আমরাও দিয়েছি। কেন দিচ্ছি, তা ভাবিনি। শাসকের পরিবর্তন ঘটেছে। শোষণের পরিবর্তন ঘটেনি। অথচ আমরা শোষিত মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন চেয়েছিলাম। আমরা চেয়েছিলাম আমাদের ভাগ্যের পরিবর্তন ঘটুক। আর তারা পরিবর্তন নিয়ে এসেছিল আমাদের স্বপ্নে। ধীরে ধীরে শোষণ স্বাভাবিকতার অর্থ ধারণ করেছে। তবু আমাদের মধ্য থেকে কেউ একজন বলে বসেছে, ‘ভাত দে, নইলে মানচিত্র খাব। ’

আমরা উন্নত রাষ্ট্র চাই না। আমরা আমাদের স্বপ্নে ফিরতে চাই। আমরা আবার মানুষ হতে চাই। প্রয়োজনে কাঁধে জোয়াল নিয়ে রবিশস্যের মাঠ চাষ করব। তবু আমরা আমাদের কথা বলার অধিকার ফিরে পেতে চাই। আমরা আমাদের শিশুদের বাঁচার অধিকার চাই। আমরা চাই, আমাদের যে বোনটি সকালবেলায় হাসতে হাসতে বাসা থেকে বেরিয়ে গেল, দিনের শেষে সে তার সম্ভ্রম নিয়েই বাড়ি ফিরে আসবে। আমরা বাঁচতে চাই। আমরা নিজস্ব সুরে গান বাঁধতে চাই। আমরা আমাদের ছন্দে কবিতা লিখতে চাই। আমরা আবারও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে পুরোপুরি ফিরতে চাই। আমরা আমাদের মেয়েদের সম্ভ্রমের নিরাপত্তা চাই, নয়তো সব বীরাঙ্গনার সতীত্ব ফিরে পেতে চাই। আমরা বেকারমুক্ত যুবসমাজ চাই, নইলে ভাষা আন্দোলনে ও মহান মুক্তিযুদ্ধে শহীদ হওয়া সব যুবককে ফেরত পেতে চাই। আমরা সেই শহীদ মিনার ফিরে পেতে চাই, যেখানে জুতা পায়ে কেউ ওঠার দুঃসাহস করবে না। আমরা সেই পতাকা ফেরত পেতে চাই, যা কারো বসার পাটি হবে না, মাথার ছাউনি হবে। আমরা আবার সেই তেপান্তরের মাঠ ফিরে পেতে চাই, যেখানে আবারও দৌড়ে বেড়াবে হাস্যোজ্জ্বল কিশোর-কিশোরীরা। আমরা ইট, বালু, সিমেন্ট চাই না। আমরা ভাত চাই। আমরা গ্যাস চাই। আমরা পানি চাই।

সোলায়মান শিপন

সরকারি শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ, ঢাকা।


মন্তব্য