kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০১৬। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


নির্বাচন বিতর্কিত করার চেষ্টা কি?

১২ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচন ঘিরে সারা দেশ থেকেই আচরণবিধি লঙ্ঘনের খবর পাওয়া যাচ্ছে। এই নির্বাচন স্থানীয় উন্নয়ন ও গণতন্ত্রের জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

দেশের প্রায় ৮০ শতাংশ মানুষ এই নির্বাচনে অংশ নেয়। এই নির্বাচনে অনিয়ম হলে দেশের তৃণমূল পর্যায়ে গণতন্ত্রের জন্য এক অশুভ বার্তা দিয়ে যাবে। তাই যেকোনো আচরণবিধি লঙ্ঘন প্রতিরোধে সরকারের উচিত নির্বাচন কমিশনকে সর্বাত্মক সহযোগিতা করা এবং অপরাধীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া।

আসন্ন ইউপি নির্বাচনে নানা রকম বাধার কারণে যারা মনোনয়নপত্র জমা দিতে পারেননি তাঁরা গণমাধ্যমে তাঁদের অভিযোগ জানালেও নির্বাচন কমিশন বা প্রশাসনের কাছে কোনো অভিযোগ জানাতে সাহস পাননি। পত্রপত্রিকার খবর অনুযায়ী অনেক প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিতে গিয়ে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত হয়ে হাসপাতালেও ভর্তি হয়েছেন। নির্বাচন কমিশন ও প্রশাসনের উচিত এসব অভিযোগের তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণ করা, যাতে ইউপি নির্বাচন সবার কাছে গ্রহণযোগ্য হয়।

আমাদের মনে রাখতে হবে, এই নির্বাচনকে বিতর্কিত করে কোনো কোনো মহল দেখাতে চায় যে বিএনপির দাবি সঠিক অর্থাৎ এই সরকারের অধীনে নির্বাচন অবাধ ও নিরপেক্ষ হয় না। গত দুই বছরে আওয়ামী লীগেও অনেক সুযোগসন্ধানী নীতি-আদর্শহীন, চরিত্রহীন, সন্ত্রাসী, এমনকি মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতাবিরোধী নেতাকর্মীর অনুপ্রবেশ ঘটেছে।

বিপ্লব

ফরিদপুর।


মন্তব্য