kalerkantho


ঝুঁকিপূর্ণ ইটভাটা

৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০



লোহাগাড়ায় একাধিক ইটভাটায় বহু শিশুশ্রমিক কাজে নিয়োজিত আছে। তারা যেমন শিক্ষার অধিকার থেকে বঞ্চিত, তেমনি ভাটার বিষাক্ত ধোঁয়া ও ধুলা-ময়লার কারণে বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হয়ে স্বাস্থ্যঝুঁকিতে পড়ছে। পরিবারের অসচেতনতা ও অভাবের কারণেই তারা এ পরিস্থিতির শিকার। একাধিক ইটভাটায় গিয়ে দেখা গেছে, বাবার সঙ্গে অথবা বাবা ছাড়াই আট থেকে ১৬ বছরের বহু শিশু ভাটার কাজে নিয়োজিত। অন্যদিকে ভাটার মালিকরা কম বেতনে বেশি কাজ করানোর জন্য শিশুদের ঝুঁকিপূর্ণ কাজে নিয়োজিত করছেন। উপজেলায় ৪৯টি ইটভাটা রয়েছে। একটি ইটভাটারও অনুমোদন নেই। শুধু চরম্বা ইউনিয়নেই ২০টি ইটভাটা রয়েছে।

প্রায় প্রতিটি ইটভাটায়ই শিশুরা কাজ করছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শিশুশ্রমিক জানায়, সে সাত মাসের জন্য ৫৭ হাজার টাকার বিনিময়ে ঝুঁকিপূর্ণ কাজ করছে। চিকিৎসকদের মতে, ইটভাটায় কর্মরত শিশুরা মারাত্মক স্বাস্থ্যঝুঁকিতে রয়েছে।

ইটভাটায় দীর্ঘ সময় কাজ করার ফলে শিশুদের ত্বক ও নখ নষ্ট হওয়ার পাশাপাশি রক্তস্বল্পতা, অ্যাজমা, হাঁপানি, ব্রংকাইটিস রোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি থাকে। শ্রম আইন ২০০৬-এর ২৮৪ ধারা অনুযায়ী কোনো ব্যক্তি কোনো শিশু বা কিশোরকে চাকরিতে নিযুক্ত করলে অথবা আইনের কোনো বিধান লঙ্ঘন করে কোনো শিশুকে চাকরি করার অনুমতি দিলে অর্থদণ্ডে দণ্ডিত হবে। শিশুশ্রম আইনগতভাবে নিষিদ্ধ। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নজর দেওয়া উচিত।

মারুফ খান

লোহাগাড়া, চট্টগ্রাম।



মন্তব্য