kalerkantho


মুঠোফোনের কলরেট কমানো হোক

২০ আগস্ট, ২০১৮ ০০:০০



বাংলাদেশের বেশির ভাগ গ্রাহক গ্রামীণফোন ও রবির সিম ব্যবহার করে। তারা নিজেদের মধ্যে ফোন করে এক ধরনের পরিবারের মতো হয়ে গেছে। ফলে তারা নিজেদের মধ্যে অন নেটে সর্বনিম্ন কলরেটে কথা বলার উপায় বের করেছে। গ্রামীণফোন ও রবির অন নেট কলের হার ৮০ শতাংশের ওপরে তা থেকে বোঝা যায়। আগে যেখানে তারা ২৫ পয়সায় ফোন করতে পারত, এখন তারা ৪৫ পয়সা খরচ করছে। অর্থাৎ তাদের কলের খরচ ২০ পয়সা অতিরিক্ত বেড়ে গেছে। আপাতদৃষ্টিতে এটা খুব কম মনে হলেও এটা অনেক বেশি। প্রতিদিন দেশের গ্রাহকরা ৫০০ কোটি টাকার কথা বললে সেখানে ১০০ কোটি টাকা আগের চেয়ে বেশি খরচ হবে। অন্যদিকে যেসব প্যাকেজে এক টাকা কিংবা তারও ঊর্ধ্বের কলরেট রয়েছে, তা কমানো হয়নি।

এতে গ্রাহকের ক্ষতির পাশাপাশি লাভ হয়েছে প্রকৃতপক্ষে বেসরকারি অপারেটরদের। ৩৭ লাখ গ্রাহক নিয়ে টেলিটক, যা লাভ করবে তা খুবই সামান্য। এ ছাড়া কলরেটের ব্যবধান কমালে যে সবাই পিছিয়ে থাকা অপারেটরগুলোর প্রতি ঝুঁকে পড়বে তা-ও নয়। গ্রাহকরা তাদের নিত্যদিনের নম্বরেই কল করবে বেশি। ফলে কলরেট বাড়ানোয় গ্রাহকের ক্ষতিটাই হবে বেশি। সুতরাং সর্বনিম্ন কলরেট বাড়ানো সম্পূর্ণ অযৌক্তিক। তাই কলরেট আগের অবস্থায় ফিরিয়ে আনার জোর দাবি করছি।

হাসানুল করিম

কুমিরা, সীতাকুণ্ড, চট্টগ্রাম।



মন্তব্য