kalerkantho

সোমবার । ৫ ডিসেম্বর ২০১৬। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৪ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


নন-ক্যাডার থেকে নিয়োগ দিন

১৮ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



মাননীয় জনপ্রশাসনমন্ত্রীর সংসদে দেওয়া তথ্য মতে, বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, সরকারি অধিদপ্তর ও দপ্তরগুলোয় তিন লাখ ২৮ হাজার ৩১১টি পদ শূন্য রয়েছে। ২০১৫ সালের ডিসেম্বর মাস পর্যন্ত সংগৃহীত তথ্য অনুযায়ী এই পরিসংখ্যান দেন তিনি।

২০১৬ সালের অক্টোবর মাসে এসে এ সংখ্যা আরো বাড়বে। গত ডিসেম্বর পর্যন্ত বিভিন্ন মন্ত্রণালয়, অধিদপ্তর ও দপ্তরে ১৩ লাখ ৮২ হাজার ৩৯৩ জন কর্মরত আছেন। অর্থাৎ সরকারের প্রশাসনযন্ত্র চলছে প্রায় ২০ শতাংশ মানবসম্পদের অভাব নিয়ে। ফলে প্রশাসনের কাজ বিলম্বিত হচ্ছে। এদিকে পিএসসির বার্ষিক রিপোর্টে বলা হয়েছে, ৩৫তম বিসিএসের নন-ক্যাডার ক্যাটাগরিতে লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ কমপক্ষে তিন হাজার যোগ্য প্রার্থীকে নন-ক্যাডার নিয়োগ বিধিমালা-২০১০ অনুযায়ী সরকারি প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণিতে সুপারিশ করা যাবে। প্রশাসনের এই লোকবলের অভাব পূরণের জন্য সরকারি কর্মকমিশন আন্তরিক। সরকারি কর্মকমিশন মন্ত্রণালয়ে বারবার তাগাদা দেওয়ার পরও মন্ত্রণালয়গুলো শূন্যপদের চাহিদাপত্র প্রেরণ করছে না।

সম্প্রতি কর্মকমিশন চেয়ারম্যান এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, সব মন্ত্রণালয়ে বারবার তাগদা দেওয়া সত্ত্বেও শুধু শিক্ষা মন্ত্রণালয় কিছু চাহিদা পাঠিয়েছে। তাহলে কি আমরা ভাবব যে প্রশাসন বর্তমান সরকারের ভিশন-২০২১-এর লক্ষ্য পূরণে আন্তরিক নয়? তাই নন-ক্যাডার ক্যাটাগরিতে উত্তীর্ণ আমরা আশা করছি মন্ত্রণালয়গুলো অতি দ্রুত শূন্যপদের চাহিদাপত্র পিএসসিতে প্রেরণ করবে। এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী ও সচিবদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

মো. মোস্তাইন ইমতিয়াজ

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।


মন্তব্য