kalerkantho


অটোরিকশা ও যানজট

৫ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



আগামী বছর বাণিজ্যিক ভিত্তিতে জাপান বিদ্যুত্চালিত তিন চাকার অটোরিকশা উৎপাদন করবে, যা শহরের সরু রাস্তায় চলাচলের জন্য বিশেষ উপযোগী। এটি স্বল্প মালামাল বহন এবং ব্যয়ও সাশ্রয়ী। তা ছাড়া অটোরিকশা রাস্তায় স্বল্প স্থান দখল করে, পরিবেশবান্ধব। ফলে সব দিক থেকেই অটোরিকশা কার্যকর। কিন্তু বাংলাদেশ অটোরিকশা নিরুৎসাহিত করার জন্য প্রশাসনিক ও শুল্কসহ নানা বাধা আছে। বর্তমানে আমাদের দেশের মানুষের ক্রয়ক্ষমতা বৃদ্ধি পেলেও বেশির ভাগ মানুষ গাড়ি কেনার সামর্থ্য অর্জন করেনি। তিন চাকার ছোট অটোরিকশার ওপর সব ধরনের শুল্ক তুলে দিয়ে এবং রেজিস্ট্রেশন সহজ করে দিলে খুব দ্রুত শহরে অটোরিকশা চলে আসবে। ভাড়াও অধিকাংশ মানুষের ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে নেমে আসবে। এতে শহরের অনেক পরিবার অন্যান্য প্রয়োজন কাটছাঁট করে ব্যাংকঋণ নিয়ে গাড়ি কেনার বিড়ম্বনা থেকে রেহাই পাবে। ধীরে ধীরে শহরে ব্যক্তিগত গাড়ির সংখ্যাও সহনীয় পর্যায়ে চলে আসবে। জাপান বালাদেশের বন্ধু দেশ।

প্রতিবছরই জাপান সহজ শর্তে সর্বোচ্চ ঋণ প্রদান করে উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে অবদান রেখেছে। ফলে জাপানের সহায়তায় বাংলাদেশে একটি বিদ্যুত্চালিত তিন চাকার অটোরিকশা এসেমলিং প্লান্ট স্থাপনের উদ্যোগ গ্রহণ করা যেতে পারে। বিষয়টির প্রতি গুরুত্ব আরোপ করার জন্য শিল্প মন্ত্রণালয় এবং সড়ক ও সেতু মন্ত্রণালয়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

মো. আশরাফ হোসেন, সেন্ট্রাল বাসাবো, ঢাকা।


মন্তব্য