kalerkantho

শনিবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


হাসপাতালের বর্জ্য

৩ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০



এখনো ঢাকার ক্লিনিক, ডায়াগনস্টিক সেন্টার ও অনেক বড় হাসপাতালে সঠিকভাবে বর্জ্য ব্যবস্থাপনা করা হয় না। হাসপাতালের বর্জ্য ব্যবস্থাপনার ক্ষেত্রে সংক্রামক, অসংক্রামকসহ প্রায় ১৮ ধরনের বর্জ্য বিন্যস্ত করে তা ব্যবস্থাপনার কথা থাকলেও এই নিয়মগুলো কেউই মানছে না।

রোগীর থুতু, রক্ত, সিরিঞ্জ, রক্তের ব্যাগ এগুলো নিয়ে ফেলা হচ্ছে সরাসরি ময়লার ভাগাড়ে। ফলে জীবাণু নষ্ট না হয়ে আরো ভয়ংকর আকার ধারণ করছে। তরল বর্জ্য নিষ্কাশনের জন্য ইটিপি স্থাপনের কথা থাকলেও সেখানে  চলছে অনিয়ম। সরকারি হাসপাতালগুলোর ক্ষেত্রেও বর্জ্য ব্যবস্থাপনা সঠিকভাবে চালু হয়নি। ফলে স্বাস্থ্যের ওপর বিরূপ প্রভাব ফেলতে পারে এসব পরিত্যক্ত ওষুধ এবং হাসপাতালের বর্জ্য। বাসাবাড়িতেও কোনো পরিত্যক্ত ওষুধ থাকলে তা কিভাবে নষ্ট করতে হবে তারও একটি নিয়ম স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় সরবরাহ করতে পারে। আশা করি, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়সহ সংশ্লিষ্ট সবাই পরিত্যক্ত ওষুধ ও হাসপাতালের বর্জ্য ব্যবস্থাপনার একটি ভালো সামাধান বের করবে।

সাঈদ চৌধুরী, শ্রীপুর, গাজীপুর।


মন্তব্য