kalerkantho


আউটসোর্সিংয়ে প্রাপ্ত অর্থ

২৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:০০



বাংলাদেশের তরুণ প্রজন্ম নানা সীমাবদ্ধতা ও প্রতিবন্ধকতা সত্ত্বেও আউটসোর্সিংয়ে ব্যাপক সাফল্য অর্জন করেছে।

ইন্টারনেটের ধীরগতি ও উচ্চমূল্য, বিদ্যুতের সমস্যা, সামাজিক স্বীকৃতির অভাব প্রভৃতি কারণে তাদের প্রতিনিয়ত বাধার সম্মুখীন হতে হয়।

অথচ ধারণা করা হচ্ছে, তথ্যপ্রযুক্তি  খাত একসময় গার্মেন্ট খাতকেও ছাড়িয়ে যাবে। সম্প্রতি বাংলাদেশের দুই ফ্রিল্যান্সার এমরাজিনা ইসলাম ও শোয়েব মোহাম্মদ বিশ্বের দুই শতাধিক দেশে ব্যবসা পরিচালনাকারী আন্তর্জাতিক অনলাইন পেমেন্ট গেটওয়ে প্রতিষ্ঠান পেওনিয়ারের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর হিসেবে নিয়োগ পেয়েছেন।

আমরা প্রত্যাশা করি, এ দেশের ফ্রিল্যান্সাররা যাতে তাঁদের উপার্জিত অর্থ সহজেই উত্তোলন করতে পারেন, এ ব্যাপারে কর্তৃপক্ষ কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। কারণ বাধানিষেধের কারণে ফ্রিল্যান্সাররা টাকা উত্তোলনের ক্ষেত্রে জটিলতা ও হয়রানির শিকার হন। বাংলাদেশের আউটসোর্সিং খাতকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হলে আমাদের সবাইকে একযোগে কাজ করতে হবে এবং এর সুফল ছড়িয়ে দিতে হবে।

 

মো. আরিফুর রহমান সুমন

সহকারী ব্যবস্থাপক

সাধারণ বীমা করপোরেশন।

 


মন্তব্য