kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০১৬। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৩। ৮ রবিউল আউয়াল ১৪৩৮।


জ্বালানি তেলের মূল্য হ্রাস প্রসঙ্গে

৭ মার্চ, ২০১৬ ০০:০০



আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের মূল্য দিন দিন কমে এখন তলানিতে ঠেকেছে।   দেশ-বিদেশের জ্বালানি বিশেষজ্ঞরা ও দি ইকোনমি ফোরকাস্ট এজেন্সি আশঙ্কা করছে যে আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের দাম আগামী ডিসেম্বরে ব্যারেলপ্রতি ৩০ ডলার থেকে নেমে ২০ ডলারে গিয়ে ঠেকতে পারে।

সামঞ্জস্য রাখার জন্য দেশের বাজারে জ্বালানি তেলের দাম খুব দ্রুতই বাড়ানো হয়। কিন্তু আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের দাম কমে গেলে দেশের বাজারে কমানো হয় না। ২০১৩ সালে ৪ জানুয়ারি যখন আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের দাম ব্যারেলপ্রতি ১২০ ডলার ছিল তখন ভোক্তাপর্যায়ে বিপিসি অকটেন ৯৯ টাকা, পেট্রল ৯৬ টাকা, ডিজেল ও কেরোসিন ৬৮ টাকা দামে বিক্রি করেছে, যা এখন পর্যন্ত অব্যাহত আছে। বর্তমান সময়ে আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের দাম যখন ৩০ ডলারের কিছু ওপর তখন জ্বালানি তেলের দাম কমানো নিয়ে সরকারের পক্ষ থেকে নাটক করা হচ্ছে। অথচ দেশের বাজারে জ্বালানি তেলের দাম কমানোর জন্য জ্বালানি বিশেষজ্ঞ, ব্যবসায়ী নেতা ও সুধীসমাজের পক্ষ থেকে দাবি উত্থাপন করা হচ্ছে। সম্প্রতি অর্থমন্ত্রী ও জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী জানান, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্তে নীতিমালা জারি করে জ্বালানি তেলের দাম কমানোর ঘোষণা দেবেন। মনে প্রশ্ন জাগে, কবে যে নীতিমালা জারি করা হবে! জনগণের বৃহৎ স্বার্থে, কলকারখানায় উত্পাদন বৃদ্ধিতে, জনপরিবহনে, মালামাল পরিবহনে ভাড়ায় স্থিতিশীলতা আনতে অবিলম্বে নীতিমালা জারি করে জ্বালানি তেলের দাম কমাতে হবে।

ম. মুমিনুর রহমান

শমশেরনগর, মৌলভীবাজার।


মন্তব্য