kalerkantho


হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত অল্পের জন্য রক্ষা সাগরসহ ছয়জন

নিজস্ব প্রতিবেদক, রাজশাহী   

১২ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০



হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত অল্পের জন্য রক্ষা সাগরসহ ছয়জন

রাজশাহীর গোড়াগাড়ীর আনোয়ারা ফাহিম জিয়াউদ্দিন পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় এলাকায় গতকাল হেলিকপ্টর দুর্ঘটনায় চ্যানেল আইয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগরসহ ছয়জন আহত হন। ছবি : কালের কণ্ঠ

চ্যানেল আইয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) ফরিদুর রেজা সাগর, সংগীতশিল্পী ফেরদৌস আরা ও উপস্থাপিকা ফারজানা ব্রাউনিয়াসহ ছয় যাত্রী নিয়ে একটি হেলিকপ্টার আছড়ে পড়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর আড়াইটার দিকে রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে একটি নির্মাণাধীন ভবনের পিলারের মাঝখানে এটি আছড়ে পড়ে। এতে হেলিকপ্টারের যাত্রীরা আহত হলেও সৌভাগ্যক্রমে সবাই প্রাণে বেঁচে গেছেন।

হেলিকপ্টারের পাইলট সৈয়দ সাকিল আলী জানান, বৈরী আবহাওয়া এবং ইঞ্জিনে ত্রুটি থাকায় হেলিপ্যাড থেকে উড্ডয়নের দুই-তিন মিনিটের মাথায় তিনি হেলিকপ্টারটির নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেন। ইঞ্জিন থেকে তখন ধোঁয়া বের হতে দেখা যায়। পর মুহূর্তেই এটি হেলিপ্যাড মাঠের পাশে নির্মাণাধীন একটি ভবনের পিলারের মাঝখানে গিয়ে আছড়ে পড়ে। তবে বেশি ওপরে না ওঠায় হেলিকপ্টারটি কিছুটা নিয়ন্ত্রণ করে ফেলেন পাইলট। ফলে ভবনের পিলারের সঙ্গে ধাক্কা না লেগে মাঝখানে গিয়ে পড়ে একদিকে কাত হয়ে যায়। এর পরপরই চালক ও পাঁচ যাত্রী দ্রুত হেলিকপ্টার থেকে বের হয়ে আসেন।

গোদাগাড়ী থানার ওসি জাহাঙ্গীর আলম জানান, ফরিদুর রেজা সাগরসহ অন্যরা গোদাগাড়ীর আনোয়ারা ফহিম জিয়াউদ্দীন (আফজি) পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ে স্বর্ণকিশোরী সমাবেশে বাইসাইকেল বিতরণ করতে গিয়েছিলেন। অনুষ্ঠান শেষে হেলিকপ্টারে ঢাকায় ফেরার পথে এটি দুর্ঘটনায় পড়ে। দুর্ঘটনাকবলিত হেলিকপ্টারটি ইমপ্রেস টেলিফিল্ম লিমিটেড অ্যাভিয়েশনের এস-২ এএইচডাব্লিউ মডেলের। দুর্ঘটনার পর গোদাগাড়ী উপজেলা ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা হেলিকপ্টারটি উদ্ধারে নেমে পড়ে।

জাহাঙ্গীর আলম জানান, হেলিকপ্টারটি উড্ডয়নের শুরুতেই ৬০ ফুট ওপর থেকে আছড়ে পড়ায় এর যাত্রী ও পাইলট প্রাণে বেঁচে গেছেন বলা যায়। হেলিকপ্টারে ছিলেন চ্যানেল আইয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর, কণ্ঠশিল্পী ফেরদৌস আরা, স্বর্ণকিশোরী ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ফারজানা ব্রাউনিয়া, রফিকুল ইসলাম, তুফান আলী ও সুমন আলী। দুর্ঘটনায় সবাই আঘাত পেয়েছেন। তাঁদের উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়। পরে সেখান থেকে রাজশাহী বিমানবন্দরে পৌঁছে দেওয়া হয়। তাঁদের মধ্যে ফরিদুর রেজা সাগর, রফিকুল ইসলাম, তুফান আলী ও সুমন আলীকে অ্যাম্বুল্যান্সে করে রাজশাহী বিমানবন্দরে নেওয়া হয়। পরে বিমানে করে তাঁরা ঢাকায় ফেরেন।

প্রত্যক্ষদর্শী স্কুলছাত্র মিঠুন বলে, ‘একটি হেলিকপ্টার ওপরে উঠছে দেখে আমি ওই দিকে তাকিয়ে থাকি। কিন্তু দুই-তিন মিনিট পরই দেখি সেটি কাঁপতে কাঁপতে নিচের দিকে নেমে আসছে। একসময় সেটি হেলিপ্যাডের পাশেই নতুন ভবনের পিলারের মাঝখানে গিয়ে মাটিতে মুখ থুবড়ে পড়ে। একটু পরই সবাইকে হেলিকপ্টারের দরজা খুলে বের হয়ে আসতে দেখি। এ সময় কেউ কেউ আতঙ্কে কাঁদছিলেন।’

স্বর্ণকিশোরী অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ও রাজশাহী-১ (তানোর-গোদাগাড়ী) আসনের সংসদ সদস্য ওমর ফারুক চৌধুরী বলেন, ‘অনুষ্ঠান শেষ হওয়ার পর ফরিদুর রেজা সাগরসহ অন্যরা হেলিকপ্টারে করে ঢাকায় রওনা দেওয়ার চেষ্টা করেন; কিন্তু হেলিকপ্টারটি উড্ডয়নের সময় দুর্ঘটনায় পড়ে। এরপর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে বিশ্রাম শেষে ফরিদুর রেজা সাগরসহ অন্যদের রাজশাহীর শাহ মখদুম বিমানবন্দর পর্যন্ত এগিয়ে দেওয়া হয়। সেখান থেকে তাঁরা নভোএয়ারের একটি ফ্লাইটে বিকেলে ঢাকায় ফেরেন। তবে তাঁরা অল্পের জন্য প্রাণে রক্ষা পেয়েছেন।’

 



মন্তব্য