kalerkantho


নীলফামারীতে ট্রাকে পিষ্ট মা-মেয়ে

সড়কে আরো সাত জেলায় নিহত ১৩

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১২ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০



নীলফামারীতে ট্রাকে পিষ্ট মা-মেয়ে

সড়ক দুর্ঘটনায় আট জেলায় ১৫ জন নিহত হয়েছে। এর মধ্যে নীলফামারীর ডোমারে ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে মা-মেয়ের মৃত্যু হয়। তা ছাড়া দিনাজপুরে পৃথক দুর্ঘটনায় তিনজন, বরিশালের গৌরনদীতে দুজন, ফরিদপুরে দুজন, গোপালগঞ্জে পৃথক দুর্ঘটনায় দুজন, রাজবাড়ীর কালুখালীতে দুজন, নাটোরের বড়াইগ্রামে একজন ও লক্ষ্মীপুরে একজন রয়েছে। গত বুধবার রাত থেকে গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত এসব দুর্ঘটনায় আহত হয়েছে অন্তত ৫০ জন। বিস্তারিত আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো প্রতিবেদনে—

নীলফামারীর ডোমারে ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে নাজমা বেগম (৩০) ও তাঁর পাঁচ বছরের মেয়ে রুবিনা আক্তার নিহত হয়েছে। এ সময় নাজমার বাবা ভ্যানচালক হিমনুর রহমান গুরুতর আহত হয়েছেন। তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। গত বুধবার রাতে উপজেলার আন্ধারুর মোড় নামক স্থানে এই ঘটনায় নিহত নাজমার স্বামী রুবেল ইসলাম বাদী হয়ে ডোমার থানায় মামলা করেছেন। ঘাতক ট্রাকচালককে আটক করা হয়েছে।

দিনাজপুরে দুটি পৃথক দুর্ঘটনায় শিক্ষক, প্রকৌশলীসহ তিনজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছে অন্তত ২০ জন। গতকাল সকালে এ দুর্ঘটনা দুটি ঘটে। সকালে প্রধানমন্ত্রীর ভিডিও কনফারেন্সে যোগ দিতে জিপে করে দিনাজপুরে আসছিলেন স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের রংপুর বিভাগীয় অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী আফজাল হোসেন (৫৮)। চিরিরবন্দরের উচিত্পুর এলাকায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে জিপটি রাস্তার পাশে গাছের সঙ্গে ধাক্কা খায়। এতে চালকসহ প্রকৌশলী আহত হন। তাঁদের হাসপাতালে নেওয়া হলে প্রকৌশলী আফজালকে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক। আফজাল নওগাঁর রানীনগর উপজেলার কালীগ্রামের মৃত আহমেদ আলীর ছেলে।

তা ছাড়া বাজনাহার এলাকায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে যাত্রীবাহী বাস খাদে পড়ে গেলে ঘটনাস্থলেই শিক্ষক আনজুমান আরা বেগম (৪৫) নিহত হন। জেলা শহরের বাহাদুরবাজার এলাকার মনু মিয়ার স্ত্রী আনজুমান আরা বিরলের ধুকুরঝাড়ী মহাবিদ্যালয়ের প্রভাষক ছিলেন। এ ঘটনায় আহত হয় অন্তত ১৫ যাত্রী। তাদের দিনাজপুর এম আবদুর রহিম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আকলিমা খাতুন (৪৫) নামের একজন মারা যান। আকলিমা বিরলের শহরগ্রাম এলাকার নজরুল ইসলামের স্ত্রী।

ঢাকা-বরিশাল মহাসড়কের গৌরনদী উপজেলার বাটাজোর বাইজখোলা নামক স্থানে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে যাত্রীবাহী বাস গাছের সঙ্গে ধাক্কা লাগলে এক যাত্রীসহ হেলপার নিহত হয়। গতকাল দুপুরে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন বরিশাল সদরের কড়াপুর গ্রামের সোহেল (২০) ও বাসের হেলপার উজিরপুর উপজেলার বামরাইল ইউনিয়নের মোড়াকাঠী গ্রামের বাসিন্দা মনির রাঢ়ী (৪২)। এ ঘটনায় আহত হয়েছে অন্তত ১৫ জন। আহতদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। পুলিশ বাসটি আটক করেছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের ফরিদপুর সদরে ট্রাক-মহেন্দ্রের সংঘর্ষে শিক্ষকসহ দুজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছে আরো ৯ জন। গতকাল সকালে ফরিদপুর সদরের পূর্বগঙ্গাবর্দী এলাকার কৃষি কলেজের সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে। মাগুরাগামী একটি ট্রাকের চাকা ফেটে গেলে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে তিন চাকার মহেন্দ্রকে চাপা দিলে ওই দুর্ঘটনা ঘটে। আহতদের ফরিদপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

নিহতরা হলেন সুজন পাটোয়ারী (২২) ও শিক্ষক আজিজুল ইসলাম (৪৫)। পেশায় নির্মাণ শ্রমিক সুজন ফরিদপুর সদরের কানাইপুর ইউনিয়নের ভাটি কানাইপুর গ্রামের মনিরুল ইসলাম পাটোয়ারীর ছেলে। আর কানাইপুরের রায়কালী হাজি বাদশা মিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আজিজুল ইসলাম কানাইপুরের উলুকান্দা গ্রামের শাহ জালাল মাতুব্বরের ছেলে। তিনি এক ছেলে ও এক মেয়ের বাবা।

গোপালগঞ্জে পৃথক দুটি দুর্ঘটনায় এক স্কুলছাত্রীসহ দুজন নিহত ও চারজন আহত হয়েছে। গতকাল ভোরে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কের কাশিয়ানী উপজেলার গোপালপুরে ও গত বুধবার সন্ধ্যায় একই সড়কের গোপালগঞ্জ সদরের হরিদাসপুর ব্রিজের কাছে দুর্ঘটনা দুটি ঘটে।

নিহতরা হলেন স্কুলছাত্রী সায়মা আহমেদ অনন্যা (১৪) ও মাইক্রোবাসচালক ফরহাদ শেখ (২৮)। গোপালগঞ্জ সদরের গোপীনাথপুর গ্রামের আরজ আলী মোল্লার একমাত্র মেয়ে অনন্যা গোপালগঞ্জ শহরের শেখ হাসিনা সরকারি উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী ছিল। আর নিহত ফরহাদ রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দেওয়ানবাড়ী গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে।

এদিকে এ দুর্ঘটনার প্রতিবাদে ও ঘাতক চালকের বিচারের দাবিতে নিহত অনন্যার সহপাঠীরা মুখে কালো কাপড় বেঁধে গতকাল বিদ্যালয়ের সামনে বঙ্গবন্ধু সড়কে ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধন করে।

রাজবাড়ীর কালুখালীতে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে প্রাইভেট কার সড়কের পাশের ডোবায় পড়ে গেলে চালকসহ রাজধানী ঢাকার একটি ওয়ার্কশপ মালিক নিহত হয়েছেন। গত বুধবার মধ্যরাতে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার বাংলাট গ্রামের সরজল কাজীর ছেলে রাজধানী ঢাকার মোহাম্মদপুর এলাকার একটি ওয়ার্কশপের মালিক রিপন কাজী (৩০) ও চালক মানিকগঞ্জ সদরের সরূপা গ্রামের হাসেম মোল্লার ছেলে মনির আহম্মেদ (৩০)।

নাটোরের বড়াইগ্রামে মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়ে গেলে একজনের মৃত্যু হয়। গতকাল সকালে উপজেলার জোয়াড়ী ইউনিয়নের শ্রীখণ্ডি গ্রামে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত আজিমুদ্দিন (৫২) বনপাড়া পৌরসভার কালিকাপুর এলাকার আব্দুল গফুরের ছেলে।

লক্ষ্মীপুরে যাত্রীবাহী বাসের ধাক্কায় ব্যাটারিচালিত অটোরিকশাচালক আবদুর রহিম (৪৫) নিহত হয়েছেন। গত বুধবার রাতে সদর উপজেলার মান্দারী বাজারে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত আবদুর রহিম উপজেলার দত্তপাড়া ইউনিয়নের পশ্চিম বটতলী গ্রামের মৃত আবদুল আলীর ছেলে।

 



মন্তব্য