kalerkantho


আইসিসিবিতে সাজসজ্জার উপকরণের প্রদর্শনী শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১২ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০



আইসিসিবিতে সাজসজ্জার উপকরণের প্রদর্শনী শুরু

রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় (আইসিসিবি) গতকাল শুরু হয়েছে ‘ইন্টেরিয়র-এক্সটেরিয়র ইন্টারন্যাশনাল এক্সপো ২০১৮’ ও ‘বাংলাদেশ লাইটিং এক্সপো ২০১৮’। ছবি : কালের কণ্ঠ

ফিতার ওপরে সুতায় আঁকা হয়েছে ফুল, পাতা, পাখির নকশা। এই রংবেরঙের ফিতায় মোড়ানো হয়েছে আয়না। এগুলোর কোনোটি বৃত্তাকার, কোনোটি বর্গাকার। আছে বাহারি ডিজাইনের দেয়ালঘড়ি, ওয়ালপেপার, লাইটসহ সাজসজ্জার নানা উপকরণ। ঘর ও ঘরের বাইরে সাজানোর হাজারো সামগ্রী নিয়ে রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় (আইসিসিবি) গতকাল বৃহস্পতিবার শুরু হয়েছে দুটি আন্তর্জাতিক প্রদর্শনী।

তৃতীয়বারের মতো আয়োজিত ‘ইন্টেরিয়র-এক্সটেরিয়র ইন্টারন্যাশনাল এক্সপো ২০১৮’ ও ‘বাংলাদেশ লাইটিং এক্সপো ২০১৮’ চলবে আগামীকাল শনিবার পর্যন্ত। এফ টাচ ইভেন্টস লিমিটেডের সঙ্গে যৌথভাবে এ প্রদর্শনীর আয়োজন করেছে এএসকে ট্রেড অ্যান্ড এক্সিবিশনস প্রাইভেট লিমিটেড। গতকাল ফিতা কেটে প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন টি কে গ্রুপের ডিরেক্টর (মার্কেটিং) মোফাজ্জল হক, সুপার বোর্ডের ডিজিএম (সেলস) মোহাম্মদ নুরুন নবী, এমআরএস ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের জেনারেল ম্যানেজার (মার্কেটিং) এডিএম আজমল ফারুক, ডিজিএম (মার্কেটিং) হাসান আলী, উড টেক সল্যুশনের সিইও নাইমুল হোসেন খান, আবুল খায়ের সিরামিক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের (স্টেলা) হেড অব ব্র্যান্ড আল আমিন রনি, আকিজ বিল্ডিং ম্যাটেরিয়ালসের ডিরেক্টর (অপারেশন) মোরশেদ আলম, আকিজ পার্টিকল বোর্ড মিলস লিমিটেডের জিএম (সেলস অ্যান্ড মার্কেটিং) মিনহাজ আহমেদ, বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশ লিমিটেডের জিএম (মার্কেটিং) এ কে এম সাদেক নেওয়াজ প্রমুখ।

প্রদর্শনী ঘুরে দেখা যায়, একই ছাদের নিচে অত্যাধুনিক ডিজাইনের টাইলস, বৈচিত্র্যপূর্ণ ও বাহারি সব আসবাবপত্র, ঘর সাজানোর শৌখিন শোপিস, মনোমুগ্ধকর ওয়ালপেপারসহ বিভিন্ন ডিজাইনের লাইট প্রদর্শন করা হচ্ছে। আরো আছে ইন্টেরিয়র-এক্সটেরিয়র সংশ্লিষ্ট নতুন নতুন উদ্ভাবন, আন্তর্জাতিক নকশার বিভিন্ন ডেকোর, লাইফস্টাইল এবং আলোকসজ্জার আধুনিক প্রযুক্তি। নির্মাণশিল্পে ব্যবহৃত পণ্য, সিরামিকস ও পাথরের তৈরি পণ্য, দরজা-জানালা এবং ঘরের নিরাপত্তা নিশ্চিতে সর্বাধুনিক প্রযুক্তিও প্রদর্শন করা হচ্ছে।

আয়োজকরা জানান, এতে বাংলাদেশসহ সাতটি দেশের ৫০টি প্রতিষ্ঠানের ৭০টি স্টল আছে। ক্রেতা ও বিক্রেতার মধ্যে পারস্পরিক যোগাযোগ এবং নতুন ব্যবসার ক্ষেত্র তৈরিতে এ আয়োজন করা হয়েছে। প্রতিদিন সকাল ১১টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত এ আয়োজন সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

এএসকে ট্রেড অ্যান্ড এক্সিবিশনস প্রাইভেট লিমিটেডের পরিচালক নন্দ গোপাল কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘ইন্টেরিয়র-এক্সটেরিয়র এবং লাইটিং এক্সপোতে এ শিল্প সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ী ও শৌখিন ক্রেতারা বিশ্বের নতুন নতুন উদ্ভাবন, প্রযুক্তি, যন্ত্রপাতি ও সংশ্লিষ্ট পণ্য সম্পর্কে জানার সুযোগ পাবেন। বিক্রেতারা নতুন ক্রেতা খুঁজে পাবেন, যা সংশ্লিষ্ট শিল্পের ব্যবসার ক্ষেত্রকে আরো সমৃদ্ধ করবে বলে আমরা আশা করছি।’



মন্তব্য