kalerkantho


বিভিন্ন স্থানে বিএনপির প্রতিবাদ মিছিল, গ্রেপ্তার

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১১ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০



বিভিন্ন স্থানে বিএনপির প্রতিবাদ মিছিল, গ্রেপ্তার

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলাসংক্রান্ত মামলার রায় ঘোষণার পর দেশের বিভিন্ন স্থানে বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল করেছে। তারেক রহমানসহ নেতাদের বিরুদ্ধে দেওয়া রায় প্রত্যাখ্যান করে তারা নানা ধরনের স্লোগান দেয়। কয়েকটি স্থানে পুলিশ ও আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের বাধার মুখে পড়েছে তারা। নাশকতা চেষ্টার অভিযোগে পুলিশ বেশ কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করেছে। চট্টগ্রামসহ দেশের কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ শহরে বিএনপি নেতাকর্মীদের রাস্তায় দেখা যায়নি। আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো সংবাদে জানা গেছে এসব তথ্য।

বগুড়া : দলীয় কার্যালয়ের সামনে মিছিল সমাবেশ করেছে বিএনপি। বুধবার সকাল থেকেই সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন ছিল। দুপুরে রায় ঘোষণার পর বিএনপি নেতারা মিছিল বের করলে পুলিশ প্রথমে বাধা দেয়। এরপর নেতাকর্মীরা দলীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ করে। এতে বক্তব্য দেন জেলা বিএনপির সভাপতি ভিপি সাইফুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক জয়নাল আবেদীন চাঁন, মুক্তিযোদ্ধা শোকরানা প্রমুখ। উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আলী আজগর হেনা, লাভলী রহমান, মীর শাহে আলম, সিপার আল বখতিয়ার, মেহেদী হাসান হিমু, আবু হাসানসহ বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা।

চট্টগ্রাম : রায় ঘোষণার পর নগরে বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনের কোনো কর্মসূচি দেখা যায়নি। পুলিশের কড়া প্রহরা ও আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের মহড়ায় বিএনপি নেতাকর্মীরা রাস্তায় নামার সুযোগ পায়নি। এমনকি নগর বিএনপি কার্যালয় ছিল তালাবদ্ধ। সেখানে নেতাদের কাউকে দেখা যায়নি।

বরিশাল : ঝটিকা মিছিল বের করায় গতকাল দুপুরে পুলিশ যুবদলের তিন নেতাকে আটক করেছে। নগরের লঞ্চঘাট এলাকা থেকে আটককৃতদের মধ্যে রয়েছেন মহানগর যুবদলের সভাপতি আক্তারুজ্জামান শামীম, সাধারণ সম্পাদক মাহমুদ হাসান মামুন ও সাংগঠনিক সম্পাদক মিজানুর রহমান পলাশ।

কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি নুরুল ইসলাম বলেন, আটককৃতরা লঞ্চঘাট এলাকায় বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা করেছিলেন। তাঁদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

সিলেট : বিএনপি ও ছাত্রদল নগরে মিছিল বের করলেও তাতে হাতেগোনা কয়েকজন নেতাকর্মী অংশ নেয়। দুপুর ১টার দিকে জেলা ও মহানগর বিএনপি নগরের জেলা রোড এলাকায় একটি ঝটিকা মিছিল বের করে। এতে ১৫-২০ জন নেতাকর্মী অংশ নেয়। মিছিলটি নয়াসড়ক পয়েন্টে গিয়ে শেষ হয়।

খুলনা : যুবদল ও ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা দুপুরে বিক্ষোভ মিছিল বের করে। মিছিলটি বিভিন্ন সড়ক ঘুরে পিটিআই মোড়ে গেলে ছাত্রলীগের হামলার শিকার হয়। এতে মিছিল ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। হামলায় যুবদলের জেলা সহসভাপতি শেখ কচি, সাধারণ সম্পাদক ইবাদুল হক রুবায়েদ, যুবদল নেতা জি এম রাসেলসহ কয়েকজন আহত হন।

রাজশাহী : মহানগর ও জেলা বিএনপির উদ্যোগে পৃথকভাবে বিক্ষোভ সমাবেশ হয়েছে। মহানগর বিএনপির উদ্যোগে দুপুর ১২টার দিকে নগরীর মালোপাড়া দলীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে মিছিল বের হয়। পুলিশের বাধা পেয়ে সেখানেই তারা সমাবেশ করে। এতে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির সহসাংগঠনিক সম্পাদক শাহিন শওকত, রাজশাহী সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র ও মহানগর বিএনপির সভাপতি মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল, মহানগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শফিকুল হক মিলন, যুবদল সভাপতি আবুল কালাম আজাদ সুইট প্রমুখ। জেলা বিএনপির উদ্যোগে নগরীর অলোকার মোড়ে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির সভাপতি তোফাজ্জল হোসেন তপু, সাংগঠনিক গোলাম মোস্তফা মামুন প্রমুখ।

মৌলভীবাজার : জেলা ছাত্রদল দুপুরে শহরের চৌমোহনা থেকে মিছিল বের করে। পরে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য দেন জেলা ছাত্রদলের সভাপতি রুবেল আহমেদ, সহসভাপতি রাজু আহমেদ, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শাহ আলম, ইসহাক আহমেদ রাহিন, রিপন মিয়া, শেখ শাহেদ, জামাদুর রহমান পাপন, শেখ ময়নুল, শাহান উমর, রাকীব আহমেদ প্রমুখ।

হবিগঞ্জ : গতকাল দুপুরে শহরে বিক্ষোভ মিছিল করেছে জেলা ছাত্রদল। চৌধুরী বাজার এলাকা থেকে মিছিলটি শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। মিছিলের নেতৃত্বে ছিলেন জেলা ছাত্রদল সভাপতি ইমরান চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক রুবেল চৌধুরী, সহসভাপতি জিল্লুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এস এম হাফিজুর রহমান ও সাংগঠনিক সম্পাদক শাহ রাজিব আহম্মেদ রিংগন।

ফরিদপুর : জেলা বিএনপির উদ্যোগে বিক্ষোভ মিছিল হয়েছে। দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে শহরের কী পাইলাম মোড় এলাকায় নেতাকর্মীরা মিছিল বের করে। সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তব্য দেন জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোদাররেছ আলী ইছা, রাজীব হোসেন, জাহাঙ্গীর হোসেন প্রমুখ।

গাইবান্ধা : জেলা বিএনপির উদ্যোগে মিছিল বের হলে পুলিশ বাধা দেয়। পরে দলীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। বক্তব্য দেন জেলা বিএনপির সভাপতি অধ্যাপক ডা. মইনুল হাসান সাদিক, সহসভাপতি আব্দুল মোন্নাফ আলমগীর, মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মান্নান সরকার, যুগ্ম সম্পাদক মো. ইলিয়াস হোসেন, শহর বিএনপির সভাপতি শহীদুজ্জামান শহীদ, জেলা যুবদল সভাপতি রাগিব হাসান চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক জাহেদুন্নবী তিমু, জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদুল সরকার খোকন, জেলা ছাত্রদল সভাপতি খন্দকার জাকারিয়া জিম, জেলা বিএনপির দপ্তর সম্পাদক আব্দুল হাই, মহিলা দলের দিলরুবা পারভীন ঝর্না, মুনমুন রহমান, জেসমিন আকতার তমা, লাইলী বেগম প্রমুখ।

নারায়ণগঞ্জ : রায়ের পরে নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে নাশকতার চেষ্টা হলে পুলিশ ১৪টি ককটেলসহ ১৩ জনকে গ্রেপ্তার করেছে। তাদের বিরুদ্ধে চারটি মামলা হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃতদের মধ্যে আছেন বন্দর থানা যুবদলের সভাপতি আমির হোসেন, সাবেক সভাপতি হাবিবুর রহমান দুলাল, আনিছুর রহমান, মহানগর ছাত্রদলের সহ-আইনবিষয়ক সম্পাদক শাহাদাৎ হোসেন, ফতুল্লার ছাত্রদল নেতা রাসেল, বিএনপি নেতা আনোয়ার হোসেনসহ নেতাকর্মীরা।

দুপুর ১টায় লিংক রোডের ফতুল্লা ভুঁইগড় এলাকায় একটি সিএনজি ও একটি ব্যাটারিচালিত ইজি বাইক ভাঙচুর করার সময় পুলিশ ধাওয়া দিয়ে চারজনকে আটক করে। তাদের কাছে পাওয়া যায় সাতটি ককটেল। সোনারগাঁয় সাতটি ককটেলসহ গ্রেপ্তার করা হয়েছে যুবদল নেতাসহ তিনজনকে।

নেত্রকোনা : পুলিশ মঙ্গলবার রাতে জেলার বিভিন্ন স্থানে বিশেষ অভিযান চালিয়ে গ্রেপ্তার করেছে জেলা যুবদলের সিনিয়র সহসভাপতি ওয়ারেস উদ্দিন ফারাস, অ্যাডভোকেট খালিদ সাইফুল্লাহ মুন্নাসহ ৩১ নেতাকর্মীকে। রায় ঘোষণার পর তারা মিছিল সমাবেশ করতে পারে বলে আগেই আটক করা হয়। তবে পুলিশের দাবি, গ্রেপ্তারকৃতদের বিরুদ্ধে নাশকতার পুরনো মামলা রয়েছে।

 



মন্তব্য