kalerkantho


ঝিনাইদহ

আওয়ামী অত্যাচারে মানুষ দিশাহারা

মসিউর রহমান
সাবেক এমপি ও সভাপতি, জেলা বিএনপি

৭ অক্টোবর, ২০১৮ ০০:০০



আওয়ামী অত্যাচারে মানুষ দিশাহারা

কালের কণ্ঠ : আগামী সংসদ নির্বাচন নিয়ে আপনাদের ভাবনা কী?

মসিউর রহমান : এই সরকারের অধীনে অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন হবে না। অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের জন্য পরিবেশ সৃষ্টি করতে হবে। নির্বাচনে বিএনপিসহ সব দলের অংশগ্রহণ হলে তারা নির্বাচনে বিজয়ী হতে পারবে না। যে কারণে অন্য দল যাতে নির্বাচনে না আসতে পারে তার জন্য নানা রকম নীলনকশা করছে আওয়ামী লীগ। বেছে বেছে আওয়ামী লীগ সমর্থক কর্মকর্তাদের প্রিসাইডিং অফিসার করার জন্য তালিকা করা হচ্ছে। এই অবস্থায় সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন আশা করা যায় না।

কালের কণ্ঠ : বিএনপির দেওয়া শর্ত মেনে সংসদ নির্বাচন হলে দলীয় প্রার্থীর বিজয়ের ব্যাপারে আপনি কতটুকু আশাবাদী?

মসিউর রহমান : এ সরকারের অত্যাচার-নির্যাতনে মানুষ আজ দিশাহারা। বিএনপির দেওয়া শর্ত মেনে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ সংসদ নির্বাচন হলে বিএনপির প্রার্থীরা অবশ্যই জয়লাভ করবে।

কালের কণ্ঠ :  কেমন প্রার্থীকে দলীয় মনোনয়ন দিলে দলের জন্য ভালো হয় বলে আপনি মনে করেন?

মসিউর রহমান : তৃণমূল নেতাকর্মীসহ জনগণের সঙ্গে যাঁর সম্পর্ক আছে। অতীতে দলকে যাঁরা সংগঠিত করেছেন, এলাকার জনগণ যাঁদের সঙ্গে আছে। জনগণের কাছে যাঁদের গ্রহণযোগ্যতা আছে—এমন নেতাদেরই দল মনোনয়ন দেবে বলে আমি বিশ্বাস করি।

কালের কণ্ঠ :  আগামী নির্বাচনের জন্য আপনাদের প্রস্তুতি কেমন?

মসিউর রহমান : হামলা-মামলা-নির্যাতনের শিকার হয়ে এলাকার বিএনপির নেতাকর্মীরা বাড়ি-ঘর ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছে। অনেকে কারাগারে দিন কাটাচ্ছে। ঝিনাইদহে বিএনপির নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে অর্ধশত মামলা হয়েছে। দলের বেশির ভাগ নেতাকর্মীই এসব মামলার আসামি। এলাকায় থাকতে পারছি না, দাঁড়াতে পারছি না, নির্বাচনের প্রস্তুতি নেওয়ার সুযোগ কোথায়? দল নির্বাচনে অংশ নিলে, পরিবেশ ভালো হলে আমরাও নির্বাচনে অংশগ্রহণ করব। 

কালের কণ্ঠ : ঝিনাইদহের মানুষ কেন বিএনপিকে ভোট দেবে?

মসিউর রহমান : বিএনপির আমলে ঝিনাইদহে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। সে সময় মানুষের জানমালের নিরাপত্তা ছিল। এখন জনগণের জানমালের কোনো নিরাপত্তা নেই। বিএনপির সময় মানুষ তার জানমাল নিয়ে নির্বিঘ্নে ঘুমাতে পেরেছে। সে কারণেই জনগণ অত্যাচার-নির্যাতন থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য বিএনপিকে ভোট দেবে।



মন্তব্য