kalerkantho


চাঁপাইনবাবগঞ্জ

আওয়ামী লীগে কোনো কোন্দল নেই

আব্দুল ওদুদ
সাধারণ সম্পাদক, জেলা আওয়ামী লীগ

১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



আওয়ামী লীগে কোনো কোন্দল নেই

কালের কণ্ঠ : একাদশ জাতীয় নির্বাচনে জেলার তিনটি আসনে আওয়ামী লীগের প্রস্তুতি কেমন?

আব্দুল ওদুদ : আমরা অনেক আগে থেকে নির্বাচনী প্রস্তুতি নিয়ে মাঠে নেমেছি। নেতাকর্মীরাও আগের চেয়ে সুসংগঠিত। প্রতিদিনই আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা জেলার কোথাও না কোথাও উঠান বৈঠক, গণসংযোগ ও পথসভার মাধ্যমে সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড সাধারণ মানুষের মাঝে ছড়িয়ে দিচ্ছে। সব দিক দিয়ে নির্বাচনের জন্য আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা সম্পূর্ণ প্রস্তুত। 

কালের কণ্ঠ :  স্থানীয় আওয়ামী লীগে দলীয় কোন্দল আছে বলে কর্মীদের অভিযোগ রয়েছে। এই কোন্দল নির্বাচনে কোনো প্রভাব ফেলবে কি?

আব্দুল ওদুদ : চাঁপাইনবাবগঞ্জে আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের মধ্যে কোনো কোন্দল নেই। তবে আওয়ামী লীগ নামধারী কিছু নেতা আছে, যারা শুধু নির্বাচন এলে তৎপর হয়। এমন কিছু নেতা সব নির্বাচনের আগে সমস্যা সৃষ্টির চেষ্টা করে। জনসমর্থন না থাকায় এরা কখনো সফল হতে পারেনি। আগামী নির্বাচনেও এদের কোনো প্রভাব পড়বে না।

কালের কণ্ঠ : দলের সাংগঠনিক অবস্থা কেমন?

আব্দুল ওদুদ : অতীতের যেকোনো সময়ের চেয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক অবস্থা এখন অনেক ভালো। ওয়ার্ড থেকে ইউনিয়ন, উপজেলা, পৌরসভা ও জেলা পর্যায়ে আওয়ামী লীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটি রয়েছে। সহযোগী সংগঠনগুলোরও কমিটি রয়েছে। দলের স্থানীয় ও কেন্দ্রীয় সব কর্মসূচি পালন করা হয়। এ ছাড়া ১৪ দলের শরিক দলগুলোর সঙ্গেও আমাদের সম্পর্ক চমৎকার।

কালের কণ্ঠ : প্রতিটি আসনেই বর্তমান এমপিদের বিরুদ্ধে মাঠে রয়েছেন একাধিক মনোনয়ন প্রত্যাশী। এসব বিষয় নির্বাচনে কোনো প্রভাব ফেলবে কি?

আব্দুল ওদুদ : ১০ বছর ক্ষমতায় থাকা সরকারের বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের কারণে আওয়ামী লীগের কর্মী সংখ্যা যেমন বেড়েছে, তেমনি নেতাও বেড়েছে। আওয়ামী লীগের মতো একটি বড় দলে একাধিক মনোনয়নপ্রত্যাশী থাকবে, এটায় স্বাভাবিক। কিছু মনোনয়নপ্রত্যাশী দলের এমপিদের বিরুদ্ধে কথা বলে ফায়দা লোটার চেষ্টা করছেন। তবে নির্বাচন এলে সবাই একসঙ্গে নৌকার পক্ষেই কাজ করবেন।

কালের কণ্ঠ : কেন মানুষ আওয়ামী লীগকে ভোট দেবে?

আব্দুল ওদুদ : গত  ১০ বছরে চাঁপাইনবাবগঞ্জে যে উন্নয়ন হয়েছে, এর আগে কখনো এমনটি হয়নি। চাঁপাইনবাবগঞ্জের চরাঞ্চলের আটটি ইউনিয়নের মানুষের দুর্ভোগ নিরসনে মহানন্দা নদীর ওপর শেখ হাসিনা সেতু নির্মাণ, এক্সিম ব্যাংক কৃষি বিদ্যালয় স্থাপন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর হাসপাতালকে ১০০ থেকে আড়াই শ শয্যায় উন্নীত করা ও নতুন ভবন নির্মাণ, চক্ষু হাসপাতাল ভবন নির্মাণ, মহানন্দা নদীতে রাবারড্যাম নির্মাণ, আমনুরা বাইপাসসহ চাঁপাইনবাবগঞ্জ-রাজশাহী রুটের রেললাইন সংস্কার, চিফ জুডিশিয়াল আদালতের ভবন নির্মাণ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ সরকারি কলেজে তিনটি ভবন নির্মাণ, চরাঞ্চলের রাস্তাঘাট ও জেলার শতাধিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নতুন ভবন নির্মাণসহ চাঁপাইনবাবগঞ্জের তিনটি নির্বাচনী এলাকায় কয়েক শ কোটি টাকার উন্নয়নকাজ হয়েছে এ সরকারের আমলে। এসব কারণেই জেলার মানুষ আবারও আওয়ামী লীগকে ভোট দেবে।

কালের কণ্ঠ : আবার ক্ষমতায় এলে কোন কাজগুলো বাস্তবায়ন করবেন?

আব্দুল ওদুদ : চাঁপাইনবাবগঞ্জে একটি সরকারি মেডিক্যাল কলেজ স্থাপন, জেলা শহরের সব ছোট রাস্তা প্রশস্তকরণ, এক্সিম ব্যাংক কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্যক্রমকে মূল ক্যাম্পাসে স্থানান্তর, আইটি ও অর্থনৈতিক জোন স্থাপনসহ আরো অনেক পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করা হবে।

কালের কণ্ঠ : একাদশ নির্বাচনে জয়ের ব্যাপারে কতটা আশাবাদী?

আব্দুল ওদুদ : সরকারের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষায় এবারও চাঁপাইনবাবগঞ্জের মানুষ নৌকায় ভোট দেবে। ফলে আগামী নির্বাচনে জেলার তিনটি আসনেই নৌকার প্রার্থীরা বিজয়ী হবেন।



মন্তব্য