kalerkantho


কুড়িগ্রাম

মানুষের ব্যাপক সাড়া পাচ্ছি

সোহেল হোসনাইন কায়কোবাদ
যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, জেলা বিএনপি

১১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



মানুষের ব্যাপক সাড়া পাচ্ছি

কালের কণ্ঠ : বিএনপির সার্বিক নির্বাচনী প্রস্তুতি কেমন?

সোহেল : নির্বাচনী প্রস্তুতি ভালো। আমাদের আগে থেকেই নির্দেশনা দেওয়া আছে খালেদা জিয়ার মুক্তি এবং নিরপেক্ষ নির্বাচনের দাবির পাশাপাশি নির্বাচনী প্রস্তুতি নিয়ে রাখতে। কেন্দ্রের নির্দেশনা অনুযায়ী জেলার চারটি আসনের তৃণমূল পর্যায়ে দলকে শক্তিশালী করা হয়েছে।

কালের কণ্ঠ : সার্বিকভাবে বিএনপির জনপ্রিয়তা বেড়েছে না কমেছে?

সোহেল : অবশ্যই বেড়েছে। সাধারণ মানুষের কাছ থেকে ব্যাপক সাড়া পাওয়া যাচ্ছে। তবে মানুষের মনে আশঙ্কা, তারা আদৌ ভোট দিতে পারবে কি না।

কালের কণ্ঠ : প্রার্থিতা নিয়ে কোনো সংকট আছে কি?

সোহেল : কুড়িগ্রাম-১ আসনে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাইফুর রহমান রানা ও কুড়িগ্রাম-৩ আসনে জেলা বিএনপির সভাপতি তাসভিরুল ইসলাম একক প্রার্থী। অন্য দুটি আসনে একাধিক প্রার্থী জনসংযোগ করছেন। এর মধ্যে কুড়িগ্রাম-৪ আসনটি আগের নির্বাচনে জামায়াতকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছিল। এবার এ বিষয়ে এখনো কেন্দ্রের কোনো নির্দেশনা পাওয়া যায়নি। তাই বিএনপির একাধিক প্রার্থী এবার ওই আসনে নির্বাচনী প্রচারণা চালাচ্ছেন।

কালের কণ্ঠ :  বিদ্যমান কাঠামোতে নির্বাচন হলে বিএনপি প্রার্থীদের জয়ের সম্ভাবনা কতটুকু?

সোহেল : বর্তমানে যে অবস্থা, এ অবস্থায় নির্বাচন করার পরিবেশ নেই। মাঠের সমতা ফিরিয়ে আনতে নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন ও নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন ছাড়া নিরপেক্ষ নির্বাচন সম্ভব না।

কালের কণ্ঠ : মাঠপর্যায়ে গণসংযোগ করতে বাধার সম্মুখীন হচ্ছেন কি?

সোহেল : হচ্ছি। পুলিশ পার্টি অফিসের বাইরে প্রগ্রাম করতে দিচ্ছে না। জনসংযোগ করতে গেলে প্রশাসনের লোক ওপরের নির্দেশের কথা বলে বন্ধ করে দেয়। ইউনিয়ন পর্যায়ের নেতাকর্মীদের ভয়ভীতি প্রদর্শন ও কমিটির তালিকা সংগ্রহ করছে প্রশাসন। এতে সবাই আতঙ্কিত।

কালের কণ্ঠ : দলীয় কোন্দল নিবাচনে নেতিবাচক প্রভাব ফেলবে কি?

সোহেল : আমাদের দলে কোন্দল নেই। নেতৃত্বের প্রতিযোগিতা আছে। অঙ্গসংগঠনেরও কমিটি গঠন হচ্ছে। দল আগের চেয়ে অনেক সংগঠিত।

কালের কণ্ঠ : জামায়াতের সঙ্গে আসন ভাগাভাগির কোনো সম্ভাবনা আছে কি?

সোহেল : এটা কেন্দ্রের ব্যাপার। আমরা বিষয়টি জানি না। কুড়িগ্রাম-৪ আসনটি তারা চায়। কেন্দ্র যে সিদ্ধান্ত নেবে আমরা মেনে নেব।



মন্তব্য