kalerkantho


সাভার ও সেনবাগে সড়কে ঝরল ৫ প্রাণ

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০



সাভার ও সেনবাগে সড়কে ঝরল ৫ প্রাণ

ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের সাভারে সড়ক দুর্ঘটনায় প্রকৌশলীসহ তিনজন নিহত হয়েছেন। নোয়াখালীতে পিকআপ ভ্যান ও অটোরিকশার সংঘর্ষে মা-ছেলের মৃত্যু হয়েছে। পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাস পুকুরে পড়ে গেলে ১২ যাত্রী আহত হয়েছে। এদিকে রংপুরে গত রবিবারের সড়ক দুর্ঘটনায় আহত এক শিশু চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল সোমবার মারা গেছে। এ ব্যাপারে আমাদের নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর :

সাভার (ঢাকা) : সাভারে সড়ক দুর্ঘটনায় একজন প্রকৌশলীসহ তিনজন নিহত হয়েছেন। গত রবিবার রাতে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে সাভারের বলিয়ারপুরে এসএন সিএনজি ফিলিং স্টেশনের সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে। দুর্ঘটনায় মাইক্রোবাসটি দুমড়েমুচড়ে গেছে। নিহত ব্যক্তিরা হলেন ঢাকার ধানমণ্ডির মৃত নওশের আলী সরকারের ছেলে প্রকৌশলী জহুরুল ইসলাম (৫৪), তাঁর পূর্বপরিচিত সিরাজগঞ্জ সদরের ব্রাহ্মণ বয়রা গ্রামের ছফর আলী শেখের ছেলে ঢাকা ওয়াসার সার্ভেয়ার নূরুন্নবী শেখ (৩৮) এবং গাড়িচালক ময়মনসিংহের গফরগাঁওয়ের মৃত আব্দুর রশীদ ভূইয়ার ছেলে খলিলুর রহমান (৫৪)। জহুরুল ইসলাম রাজধানীর রমনার ইস্কাটন গার্ডেন রোডের মীর আক্তার লিমিটেডে সিভিল ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

জহুরুলের ছেলে মো. হামীম হোসেন জানান, গত রবিবার রাতে তাঁর বাবা অফিসের মাইক্রোবাসযোগে (ঢাকা মেট্রো-ঠ-১১-৮৭৮৪) সিরাজগঞ্জ থেকে ওয়াসার সার্ভেয়ার নূরুন্নবীকে সঙ্গে নিয়ে ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেন। গাড়ির চালক ছিলেন খলিলুর রহমান। ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে সাভারের বলিয়ারপুরে এসএন সিএনজি ফিলিং স্টেশনের সামনে মাইক্রোবাসটি একটি গাড়িকে ওভারটেকের চেষ্টা করে। এ সময় দ্রুতগতির মাইক্রোবাসটি গাড়িটির পেছনে সজোরে ধাক্কা লেগে দুমড়েমুচড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই তিনজন নিহত হন।

নোয়াখালী : ছুটিতে বাড়ি এসে মা-সন্তানদের সঙ্গে ঈদ করে আর কুয়েত ফেরা হলো না প্রবাসী মোহাম্মদ মোহনের (৩৫)। নোয়াখালীর সেনবাগে পিকআপ ভ্যান ও অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষে বৃদ্ধ মায়ের সঙ্গে ছেলের মৃত্যু হয়েছে। গতকাল সকালে নোয়াখালী-ফেনী আঞ্চলিক সড়কের সেনবাগ রাস্তার মাথায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। এ সময় আহত হয়েছে মোহনের স্ত্রী ও সন্তানসহ পাঁচজন। তাদের মধ্যে তিনজনের নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা চলছে। বাকিদের স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেওয়া হয়। নিহতরা হলেন সেনবাগের মোহাম্মদপুর ইউনিয়নের উত্তর রাজারামপুর গ্রামের ইমান আলীর স্ত্রী ফিরোজা বেগম (৬০) ও তাঁর ছেলে কুয়েতপ্রবাসী মো. মোহন (৩৫)।

স্বজনরা জানায়, ফিরোজা বেগম, তাঁর ছেলে কুয়েতপ্রবাসী মোহন, ছেলের বউ শিমু ও নাতি মিরান সেনবাগ থেকে সোমবার সকালে অটোরিকশায় করে বাড়ি ফিরছিলেন। পথে নোয়াখালী-ফেনী আঞ্চলিক মহাসড়কের সেনবাগ রাস্তার মাথায় এলে একটি পিকআপ ভ্যানের সঙ্গে অটোরিকশাটির সংঘর্ষ হয়। এ সময় অটোরিকশাটি দুমড়েমুচড়ে যায়। ঘটনাস্থলে অটোরিকশার যাত্রী ফিরোজা বেগম ও তাঁর ছেলে মোহন মারা যান।

রংপুর : রংপুরে দুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে আহত শিশু রাকিবের (১২) মৃত্যু হয়েছে। রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল সকালে সে মারা যায়। রাকিব গাইবান্ধার তালুক বেলকা গ্রামের খসরু মাহমুদের ছেলে। এ নিয়ে ওই দুর্ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল আটজনে। রংপুর নগরের সিও বাজার এলাকায় গত রবিবারের সড়ক দুর্ঘটনায় কোতোয়ালি থানায় মামলা হয়েছে।

কলাপাড়া (পটুয়াখালী) : কলাপাড়া-পটুয়াখালী সড়কে একটি যাত্রীবাহী বাস উল্টে পুকুরে পড়ে ১২ যাত্রী আহত হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল সকালে টিয়াখালী ইউনিয়নের বিশকানী এলাকায়। জানা যায়, সকালে পটুয়াখালী বাসস্ট্যান্ড থেকে স্বর্ণা পরিবহনের বাসটি কলাপাড়া আসার পথে অন্য একটি টমটমকে সাইড দিতে গিয়ে রাস্তার পাশে পুকুরে পড়ে যায়।



মন্তব্য