kalerkantho

বিশুদ্ধ ইফতারি

পাকা পেঁপের শরবত

নওশাদ জামিল   

১৩ জুন, ২০১৮ ০০:০০



পাকা পেঁপের শরবত

নিত্যদিনের কাজ কিংবা ঈদের কেনাকাটায় বাইরে বের হলেই সঙ্গী হয় যানজট। চারদিকে যানবাহনের উচ্চ স্বরে হর্ন, গাড়ির ধোঁয়া, জ্যৈষ্ঠের দাবদাহ—এক ত্রাহি অবস্থা। এ অবস্থায় বিশেষত রোজাদারদের ভোগান্তিটা চরমে ওঠে। ঘেমে একাকার শরীরে দেখা দেয় পানিশূন্যতা। ভর করে ক্লান্তি। ইফতার পর্বে এক গ্লাস জুস সেই ক্লান্তি অনেকটাই দূর করতে পারে। আর সে ক্ষেত্রে পাকা পেঁপের শরবত হতে পারে অন্যতম উপকারী মেন্যু। পুষ্টি ও স্বাদের গুণে অনন্য পাকা পেঁপের শরবত।

বাজারে সহজেই মেলে উপকারী ফল পেঁপে। সবজি ও সালাদ হিসেবে কাঁচা পেঁপের কদর বরাবরের। অন্যদিকে পাকা পেঁপে খেতে সুমিষ্ট, স্বাদ-গন্ধও অতুলনীয়। ইফতারে পাকা পেঁপে দুই ভাবেই খাওয়া যেতে পারে—স্লাইস করে অথবা শরবত বানিয়ে। পাকা পেঁপের শরবত বিভিন্ন জুস বারে পাওয়া যায়। তবে ঘরেই ঝটপট তৈরি করে নেওয়া যায়। আর বাইরের চেয়ে ঘরে বানানো শরবতই বেশি নিরাপদ। পুষ্টিগুণও অটুট থাকে শতভাগ।

রোজা রাখার কারণে অনেকে গ্যাস্ট্রিক, আলসার ও কোষ্ঠকাঠিন্য রোগে ভোগে। তাদের জন্য ইফতারিতে পাকা পেঁপে হতে পারে মোক্ষম দাওয়াই। কেননা পেঁপেতে রয়েছে পেপেইন নামক রাসায়নিক পদার্থ, যা লিভারসংক্রান্ত সব রোগ উপশমে ফলদায়ক। এ ছাড়া পেঁপে হজমশক্তি বাড়ায়। শরীরে তাৎক্ষণিক শক্তি জোগায়।

পুষ্টিবিদ আনোয়ার ভূঁইয়া বলেন, ‘পেঁপে অত্যন্ত উপকারী ও পুষ্টিকর ফল। এতে রয়েছে শর্করা, প্রচুর খাদ্যশক্তি, ভিটামিন সি, সোডিয়াম, পটাসিয়ামসহ নানা পুষ্টিকর উপাদান। পেঁপে শুধু শরীরের চাহিদা মেটায় না, রোগ প্রতিরোধও করে। পেঁপেতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণ আঁশ, ভিটামিন সি, অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট। এই উপাদানগুলো রক্তনালিতে ক্ষতিকর কোলেস্টেরল জমতে বাঁধা দেয়। তাই হৃদ-স্বাস্থ্য সুরক্ষা এবং উচ্চ রক্তচাপ এড়াতেও পেঁপে অত্যন্ত উপকারী।’

রন্ধনশিল্পী ফাতেমা আবেদীন নাজলা বলেন, ‘পাকা পেঁপের শরবত বানানো খুবই সহজ। কয়েক মিনিটেই ঝটপট তৈরি করে নেওয়া যায়। একটি মাঝারি আকারের পাকা পেঁপে দিয়ে অন্তত চার গ্লাস শরবত বানানো যাবে। রেসিপিটা হলো—পাকা পেঁপে একটি, মিষ্টি দই দুই কাপ, চিনি প্রয়োজনমতো, বরফ কুচি এক কাপ ও পানি তিন কাপ। প্রস্তুত প্রণালী : পেঁপে প্রথমে ধুয়ে পরিষ্কার করে নিন। তারপর খোসা ছাড়িয়ে কিউব করে কেটে নিন। হাত দিয়ে পেঁপের বিচিগুলো সরিয়ে নিন। এবার ব্লেন্ডারে পেঁপের টুকরো, মিষ্টি দই, চিনি ও সামান্য পানি দিয়ে ব্লেন্ড করুন। মিশ্রণটি তৈরি হয়ে গেলে ঘনত্ব বুঝে পানি মেশান। পরিবেশন করার সময় বরফ কুচি দিন। কেউ চাইলে মিষ্টি দইয়ের পরিবর্তে দুধ দিতে পারেন মিশ্রণটিতে।

বাজারে কয়েক জাতের পেঁপে পাওয়া যায়। এর মধ্যে দেশি পেঁপের দাম একটু বেশি। অন্যদিকে হাইব্রিড ও বিদেশি জাতের পেঁপের দাম কিছুটা কম। দেশি পেঁপে তুলনামূলক একটু ছোট আকারের হয়। তবে দুই জাতের পেঁপেই খেতে সুস্বাদু।

 

 



মন্তব্য