kalerkantho


সবিশেষ

কলম্বাসের চিঠি ফিরল স্পেনে

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১১ জুন, ২০১৮ ০০:০০



কলম্বাসের চিঠি ফিরল স্পেনে

আমেরিকা আবিষ্কারের পর স্পেনের রাজা ফার্দিনান্দ ও রানি ইসাবেলার কাছে চিঠি পাঠান অভিযাত্রী ক্রিস্টোফার কলম্বাস। পাঁচ শ বছর আগের সেই চিঠি চলতি শতাব্দীর শুরুতে খোয়া যায়। এরপর তা তদন্তে নামে স্পেন ও যুক্তরাষ্ট্র। উদ্ধারের পর গত বৃহস্পতিবার ওয়াশিংটনে স্পেনের রাষ্ট্রদূত পেদ্রো মোরেনেসের কাছে চিঠিটি হস্তান্তর করা হয়েছে।

যুক্তরাষ্ট্রের অ্যাটর্নি ডেভিড ওয়েসিস বলেন, ঐতিহাসিকভাবে খুবই গুরুত্বপূর্ণ এই চিঠির প্রকৃত দাবিদার স্পেনের কাছে ফেরত দিতে পেরে আমরা খুবই সম্মানিত বোধ করছি।

এ বিষয়ে স্পেনের রাষ্ট্রদূত পেদ্রো মোরেনেস বলেন, যুক্তরাষ্ট্র ও স্পেনের মধ্যে ঐতিহাসিকভাবেই আত্মিক সম্পর্ক আছে। এই চিঠি হস্তান্তর তারই অংশ।

১৪৯৩ সালে কলম্বাস চিঠিটি লিখেছিলেন স্পেনের রাজা ও রানিকে। তাঁরা কলম্বাসের অভিযাত্রার পৃষ্ঠপোষকতা করেছিলেন। চিঠিতে কলম্বাস ক্যারিবীয় পাহাড়, উর্বর ভূমি, সোনা ও আদিবাসীদের কথা লিখেছিলেন। স্প্যানিশ ভাষায় লেখা চিঠিটি রোমে পাঠিয়ে লাতিন ভাষায় রূপান্তর করিয়ে নেন রাজা-রানি। এরপর হাতে লিখে এর অসংখ্য কপি করা হয়। কলম্বাসের নতুন মহাদেশ আবিষ্কারের খবর ছড়িয়ে দিতে এই কপিগুলো বিলি করা হয় ইউরোপের রাজা ও রানিদের মধ্যে। লাতিন ভাষার এই চিঠির একটি কপি সংরক্ষিত ছিল বার্সেলোনার ন্যাশনাল লাইব্রেরি অব কাতালোনিয়ায়। সেটি খোয়া যাওয়ার বিষয়টি আবিষ্কৃত হয় এক দশক আগে। সেখানে আসল চিঠির বদলে রাখা ছিল একটি জাল চিঠি।

পরে তদন্তে উঠে আসে, চুরির পর চিঠিটি ২০০৫ সালের নভেম্বরে বিক্রি করা হয়। ছয় লাখ ইউরোর বিনিময়ে দুই ইতালীয় বই বিক্রেতা তা বিক্রি করেন। ২০১৩ সালের মার্চে চিঠিটি ফের হাতবদল হয় ৯ লাখ ইউরোতে। এ সময় তদন্তকারীরা এর হদিস পান। এরপর তাঁরা চিঠির ক্রেতার সঙ্গে যোগাযোগ করেন। ক্রেতা জানতেন না যে এই চিঠিটি বার্সেলোনা থেকে চুরি করা হয়েছিল। সূত্র : রয়টার্স।



মন্তব্য