kalerkantho


বাজারদর

এক সপ্তাহে পেঁয়াজের দর কমল ১০ টাকা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৯ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



এক সপ্তাহে পেঁয়াজের দর কমল ১০ টাকা

দাম কমেছে রান্নায় সর্বাধিক ব্যবহার করা পেঁয়াজের। এক সপ্তাহের ব্যবধানে খুচরা বাজারে কেজিতে দাম কমেছে ১০ টাকা পর্যন্ত। পাশাপাশি বিভিন্ন সবজির দামও যথেষ্ট কমেছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর বেশ কয়েকটি বাজার ঘুরে দেখা গেছে, প্রতি কেজি দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৪৫ টাকায়। আর আমদানি করা ভারতীয় পেঁয়াজ প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ৪০ টাকায়। কারওয়ান বাজারের আড়তে প্রতি কেজি দেশি পেঁয়াজ ৩৫-৩৬ টাকা এবং আমদানি করা পেঁয়াজ ৩০-৩২ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। সপ্তাহখানেক আগে পেঁয়াজের দাম কেজিপ্রতি ছিল ৫৫-৬০ টাকা।

কারওয়ান বাজারের পেঁয়াজের পাইকারি বিক্রেতা হাসান কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘পেঁয়াজের সরবরাহ বেড়েছে। বাজারে বর্তমানে দেশি ও ভারতীয় প্রচুর পেঁয়াজ রয়েছে। ফলে দাম কমছে।’ আরো কয়েকজন পাইকারি বিক্রেতার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, আগামী এক-দেড় সপ্তাহের মধ্যে পেঁয়াজের দাম আরো কমার সম্ভাবনা রয়েছে। ফার্মগেট কাঁচাবাজারে পেঁয়াজ কিনতে আসা এক ক্রেতা সুস্মিতা কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘এক সপ্তাহ আগেও ৫৫ টাকার কমে পেঁয়াজ কেনা যেত না। দুই দিন ধরে দাম কমেছে। আজ দুই কেজি দেশি পেঁয়াজ কিনেছি ৯০ টাকায়।’

বাজার ঘুরে দেখা গেছে, পেঁয়াজের পাশাপাশি সব ধরনের সবজির দামও যথেষ্ট কমেছে। প্রতি কেজি টমেটো ১০-২০ টাকা দামে বিক্রি হচ্ছে। বাজারে প্রচুর পরিমাণে সরবরাহের কারণে দাম কমেছে। বিভিন্ন অঞ্চলের কৃষকরা বর্তমানে ১-২ টাকা কেজি দামেও বিক্রি করছে টমেটো। ঢাকায় তা ক্রেতা পর্যায়ে বিক্রি হচ্ছে ২০ টাকা পর্যন্ত। এ ছাড়া প্রতি কেজি শিম বিক্রি হচ্ছে ২০ থেকে ৩৫ টাকায়। চার-পাঁচটা করে মুঠি ডাঁটা বিক্রি হচ্ছে ১০-১৫ টাকায়। আলু ও পেঁপে বরাবরের মতোই বিক্রি হচ্ছে কেজিপ্রতি ১৫-২০ টাকায়। ফুলকপি, বাঁধাকপি প্রতি পিস ২০-২৫ টাকা, বেগুন ৩০-৩৫ টাকা কেজি, লাউ প্রতি পিস ৪৫-৫৫ টাকা, শালগম ২০-২৫ টাকায় বিক্রি করতে দেখা গেছে। বাজারে নতুন আসা ঢেঁড়স গত সপ্তাহে বিক্রি হয়েছে ৭০-৮০ টাকা কেজি। গতকাল বিভিন্ন বাজারে তা ৪০-৫০ টাকায় বিক্রি করতে দেখা গেছে। একইভাবে দেশি জাতের ছোট আকারের করলা বিক্রি হচ্ছে ৩৫ থেকে ৪৫ টাকা কেজি। দুই সপ্তাহ ধরে বাজারে বিক্রি হচ্ছে নতুন সবজি বাড়ই পটোল। এই সবজিটি এখনো প্রতি কেজি ৬০ টাকা বা কিছু বেশি দামেও বিক্রি করতে দেখা গেছে। ফকিরাপুল কাঁচাবাজারের বিক্রেতা হারুন মিয়া জানান, নতুন আসা সবজির দাম একটু বেশি হলেও শীতের সবজি কম দামেই বিক্রি হচ্ছে।

এ ছাড়া খুচরা বাজারে স্থিতিশীল রয়েছে চালের দাম। যদিও কয়েক দিন আগে কেজিপ্রতি ২-৩ টাকা পর্যন্ত দাম বেড়েছে। রাষ্ট্রায়ত্ত বিপণন সংস্থা টিসিবির বাজার বিশ্লেষণের তথ্য বলছে, সরু চালের কেজিতে প্রায় ৪ শতাংশ পর্যন্ত দাম বেড়েছে। এ ছাড়া মুরগির প্রতি হালি ডিম ২৪-২৫ টাকা, ব্রয়লার মুরগি প্রতি কেজি ১২৫ থেকে ১৩৫ টাকা এবং গরুর মাংস ৪৭০-৪৮০ টাকা কেজিতে বিক্রি হতে দেখা গেছে।

আমদানি করা রসুন ও আদা প্রতি কেজি ৯০ থেকে ১০০ টাকা, দেশি রসুন প্রতি কেজি ৪০ থেকে ৬০ টাকা এবং দেশি আদা ৬০ থেকে ৮০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।



মন্তব্য