kalerkantho


মার্শা বার্নিকাট বললেন

সুষ্ঠু নির্বাচনে সব দলকে অংশগ্রহণের সুযোগ দিতে হবে

মার্কিন রাষ্ট্রদূতকে বলেছি উদ্যোগ নিতে : তোফায়েল

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



সুষ্ঠু নির্বাচনে সব দলকে অংশগ্রহণের সুযোগ দিতে হবে

সোনারগাঁও হোটেলে গতকাল ২৫তম ইউএস ট্রেড শো উদ্বোধন করেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। এ সময় মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট ও দেশটির বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। ছবি : কালের কণ্ঠ

আগামী নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু করতে সব দলের অংশগ্রহণ নিশ্চিত করার তাগিদ দিয়েছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্শা স্টিফেন ব্লুম বার্নিকাট। তিনি বলেছেন, ‘অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচন করতে সব দলকে অংশগ্রহণের সুযোগ দিতে হবে; যেখানে সবাই নিজ নিজ মতামত প্রকাশ ও শান্তিপূর্ণ কর্মকাণ্ড পরিচালনার সুযোগ পাবে।’

গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে ২৫তম যুক্তরাষ্ট্র বাণিজ্য প্রদর্শনীতে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মার্শা বার্নিকাট এসব কথা বলেন। এ সময় বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদও উপস্থিত ছিলেন। প্রদর্শনীর উদ্বোধন-পরবর্তী সময়ে স্টল পরিদর্শন শেষে ফ্রি ট্রেড অ্যাগ্রিমেন্ট (এফটিএ) ও জাতীয় নির্বাচন প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি এসব জবাব দেন।

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন নির্বাচন পরিচালনা করবে আর সরকার নিজের মতো কাজ করবে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে সব দেশে ক্ষমতাসীন সরকারের অধীনেই নির্বাচন হয়। আমি মার্কিন রাষ্ট্রদূতকে অনুরোধ করেছি, তিনি যেন সব দলকেই বলতে পারেন একটি অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের কথা। কাজেই তাঁরাও চেষ্টা করবেন অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন নিয়ে কথা বলতে।’ তিনি আরো বলেন, ‘আমরা একটি অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন চাই। আশা করছি সেটাই হবে। নিবন্ধিত রাজনৈতিক দল সবাই অংশ নিতে পারবে। নির্বাচন হবে সংবিধান অনুযায়ী। বর্তমান ক্ষমতাসীন সরকারের অধীনেই।’

যুক্তরাষ্ট্র ও বাংলাদেশের মধ্যে বিশেষ করে বেসরকারি খাতে অর্থনৈতিক সহযোগিতা ত্বরান্বিত করতে সোনারগাঁও হোটেলে তিন দিনব্যাপী যুক্তরাষ্ট্র বাণিজ্য প্রদর্শনী শুরু হয়েছে। আজ শুক্রবার ও আগামীকাল শনিবার সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত প্রদর্শনী সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে। বাংলাদেশস্থ আমেরিকান চেম্বার অব কমার্স ও যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাস এ প্রদর্শনীর আয়োজন করে। এই প্রদর্শনীতে ৪৩টি প্রতিষ্ঠান অংশগ্রহণ করে নিজ নিজ পণ্য সম্পর্কে বিস্তারিত তুলে ধরছে।

মার্শা বার্নিকাট বলেন, ‘সুষ্ঠু নির্বাচন করতে সব দলের অংশগ্রহণ থাকতে হবে। প্রত্যেককেই নিজের কথা বলা ও কর্মকাণ্ড পরিচালনার সুযোগ দিতে হবে। আমরা আশা করছি, সত্যিকারের অবাধ ও সুষ্ঠু এবং অংশগ্রহণের মধ্য দিয়ে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হোক।’

এফটিএ বিষয়ে বার্নিকাট বলেন, ‘দীর্ঘ সময় ধরেই দুই দেশের মধ্যে সুসম্পর্ক বজায় রয়েছে। এ দেশে ব্যাবসায়িক কাজ চলছে, ভবিষ্যতেও চলবে। এফটিএ বিষয়ে আমাদের প্রধানমন্ত্রী আলোচনা করবেন বলে আশ্বস্ত করেছেন। দেশের অর্থনীতি ও বাণিজ্যের কথা চিন্তা করে সেই বিষয়ে আলোচনা করেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’

অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন বিষয়ে বিশ্বের প্রভাবশালী দেশগুলোকে মতামত প্রকাশে অনুরোধ জানানো হয়েছে কি না—এমন প্রশ্নে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘আমরা কাউকে আহ্বান জানাইনি। যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র কানাডা, অস্ট্রেলিয়া, ভারতসহ পৃথিবীর সব দেশে ক্ষমতাসীন দলের অধীনে নির্বাচন হয়। অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী ক্ষমতায় থেকেই নির্বাচন দিয়েছিলেন। ভারতের প্রধানমন্ত্রীও ক্ষমতায় থেকেই নির্বাচন দিয়েছিলেন। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও সেটিই করবেন।’ এ বিষয়ে বিরোধী রাজনৈতিক দলের আপত্তি রয়েছে—এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘আপত্তি থাকলে তো সেটা তার বিষয়। সংবিধানের বাইরে গিয়ে তো আর নির্বাচন করা সম্ভব না। আমি কাউকে আসিউর করে কাউকে বলে দিয়ে এমন একটি পরিস্থিতির করতে পারি না যে আপনি ক্ষমতায় চলে গেলেন। নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে হবে। ২০১৪ সালে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেনি, এটা উপলব্ধি করেছে, এটা তাদের ভুল হয়েছে। আমরা আশা করছি, আগামী নির্বাচনে সব দল অংশগ্রহণ করবে, বিএনপিও নির্বাচনে আসবে।’


মন্তব্য