kalerkantho


শ্রদ্ধা-অশ্রুতে শেষ বিদায় শ্রীদেবীকে

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১ মার্চ, ২০১৮ ০০:০০



শ্রদ্ধা-অশ্রুতে শেষ বিদায় শ্রীদেবীকে

পরনে সোনালি পাড়ের লাল শাড়ি, ঠোঁটে লাল লিপস্টিক, কপালে লাল টিপ—যেন এক প্রতীমা; চোখ বুজে শুয়ে আছেন। তাঁর গায়ে জড়ানো ভারতের জাতীয় পতাকা। এমন সাজেই রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় মুম্বাইয়ে শেষযাত্রা হয় বলিউড সুপারস্টার শ্রীদেবীর। শ্রদ্ধা ও ভালোবাসায় অশ্রুসিক্ত চোখে তাঁকে শেষ বিদায় জানাল শোকাহত ভক্তরা।

স্থানীয় সময় গতকাল বুধবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে মুম্বাইয়ের ভিলে পার্লের সেবাসমাজ শ্মশানে পূর্ণ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় সম্পন্ন হয় শ্রীদেবীর শেষকৃত্য। মরদেহে মুখাগ্নি করেন স্বামী বনি কাপুর। সঙ্গে ছিলেন শ্রীদেবী ও বনির দুই মেয়ে জাহ্নবী ও খুশি।

তারকারা ছাড়াও অগণিত ভক্ত-শুভানুধ্যায়ী হাজির হয়েছিল প্রিয় অভিনেত্রীকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে।

আনন্দবাজার জানিয়েছে, শ্রীদেবীর শেষযাত্রায় সব কিছুই সাজানো হয় তাঁর প্রিয় রং সাদায়। সবাইকে সাদা পোশাক পরেই শেষকৃত্যে আসার অনুরোধ করা হয়। কথামতো, বলিউডের খ্যাতিমান অভিনেতা-অভিনেত্রী, রাজনীতিবিদ, সংস্কৃতিকর্মী, লেখক-বুদ্ধিজীবীসহ প্রায় সবাই এসেছিলেন সাদা পোশাক পরে।

দুবাই থেকে মঙ্গলবার রাতে শ্রীদেবীর মরদেহ ভারতের মুম্বাইয়ে নেওয়া হয়। এরপর গতকাল সকাল থেকে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত রাখা হয় মুম্বাইয়ের সেলিব্রেশন স্পোর্টস ক্লাবে। ১০টায় শুরু হয় প্রার্থনা সংগীত। প্রয়াত এই অভিনেত্রীকে শেষবার একনজর দেখতে ভোর থেকেই লোখেন্ডওয়ালের রাস্তায় ভিড় জমতে শুরু করে। বেলা যত গড়িয়েছে ক্লাবের রাস্তার দুই ধারে ভিড় তত বাড়তে থাকে। শ্রীদেবীকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে একে একে আসেন বলিউডের তারকারা। তাঁদের অনেকে স্মৃতিচারণা করেন। অনেকে প্রিয় নায়িকার সিনেমার গান গেয়ে শোনান।

শ্রীদেবীকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে উপস্থিত হয়েছিলেন অমিতাভ বচ্চন, রেখা, জয়াপ্রদা, হেমা মালিনী, শাহরুখ খান, অজয় দেবগন, কাজল, মাধুরী দীক্ষিত, করণ জোহর, ফারহা খান, ঐশ্বরিয়া, দীপিকা পাড়ুকোন, আরবাজ খান, সোনম কাপুর, এষা দেওল, সুভাষ ঘাই, অনু কাপুর, মণীষ পাল, উর্বশী, সঞ্জয় লীলা বানসালী, রাজকুমার হিরানি, সুধীর মিশ্র, বিধু বিনোদ চোপড়া, জে পি দত্ত, নাগমা, বিদ্যা বালান, সিদ্ধার্থ রায় কাপুর, দিয়া মির্জা প্রমুখ।

দুপুর ২টা ২৬ মিনিটে তোপধ্বনির মধ্য দিয়ে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় শুরু হয় শ্রীদেবীর শবযাত্রা। ভারতের তিনরঙা পতাকায় মুড়ে ফুলে ঢাকা কফিন নিয়ে ট্রাক রওনা হয় ভিলে পার্ল শ্মশানের দিকে। সেখানেই হয় তাঁর শেষকৃত্য। শ্মশানে নেওয়ার পথে রাস্তার দুধারে ভিড় করেছিল তাঁর শত শত ভক্ত। তারা অশ্রুভেজা চোখে, ফুল ছিটিয়ে, হাত নেড়ে, আবেগমথিত ভাষায় শ্রীদেবী নাম জপ করে তাঁকে বিদায় জানায়।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলো জানায়, কর্নাটক থেকে চেন্নাই, কলকাতা থেকে মালদ্বীপ—শ্রীদেবীকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে শামিল হয় দেশ-বিদেশের অসংখ্য ভক্ত। তাদের সঙ্গে শবযাত্রায় ছিলেন স্বামী বনি কাপুরের পরিবারের সদস্যরাও।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি দুবাইয়ের একটি হোটেলে আকস্মিক মৃত্যু হয় শ্রীদেবীর। প্রথমে হৃদরোগে তাঁর মৃত্যু হয়েছে বলে পরিবারের সদস্যরা জানালেও পরে ময়নাতদন্তে বেরিয়ে আসে ‘বাথটাবে দুর্ঘটনাবশত পানিতে ডুবে’ তাঁর মৃত্যু হয়েছে।

শ্রীদেবীকে বলা হয় বলিউডের প্রথম নারী সুপারস্টার। তিনি ছিলেন সেই বিরলপ্রজ অভিনেত্রীদের একজন, কোনো প্রতিষ্ঠিত নায়কের উপস্থিতি ছাড়াই যার সিনেমা বক্স অফিসে ব্যবসা সফল হতো। ৫৪ বছরের জীবনে ৫০ বছরই চলচ্চিত্র অঙ্গনে কেটেছে কুশলী এই অভিনেত্রীর। ভারতের বিভিন্ন ভাষার দেড় শতাধিক চলচ্চিত্র তিনি উপহার দিয়ে গেছেন, যার মধ্যে মিস্টার ইন্ডিয়া, লামহে, চাঁদনী, চালবাজ, নাগিনা ও সাদমার মতো তুমুল জনপ্রিয় চলচ্চিত্র রয়েছে।

 



মন্তব্য