kalerkantho


সবিশেষ

ওষুধ পরীক্ষায় বড় সাফল্য

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৬ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



ওষুধ পরীক্ষায় বড় সাফল্য

একটি ওষুধ কতটা কার্যকর হবে কিংবা প্রাণী দেহের কোনো ক্ষতি করবে কি না—চিকিৎসা শাস্ত্রে তা গুরুত্বপূর্ণ একটা প্রশ্ন। এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে প্রায় সময়ই বিভিন্ন প্রাণীর ওপর সংশ্লিষ্ট ওষুধ প্রয়োগ করে দেখা হয়। অনেক ওষুধ পরীক্ষায় গিনিপিগ বানানো হয় মানুষকেও, যা খুবই বিপজ্জনক। কিন্তু অচিরেই হয়তো এ ধরনের ঝুঁকিপূর্ণ পদ্ধতি থেকে মুক্তি পেতে যাচ্ছে ওষুধ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলো।

সম্প্রতি বিজ্ঞানীরা এমন এক পদ্ধতি বের করতে সক্ষম হয়েছেন, যাতে প্রাণীর শরীরে প্রয়োগ করা ছাড়াই একটি ওষুধের কার্যকারিতা বের করা যাবে। কেবল তা-ই নয়, ওষুধটি শরীরের জন্য বিপজ্জনক কি না, তাও টের পাওয়া যাবে আগেভাগে।

এই পদ্ধতি বের করেছেন যুক্তরাজ্যের কার্ডিফ ইউনিভার্সিটির একদল গবেষক। তাদের সঙ্গে ছিলেন ইউনিভার্সিটি অব জন মুরেসের গবেষকরাও। গবেষণা প্রতিবেদনটি ছাপা হয়েছে ‘অ্যাঙ্গেওয়ান্দতে’ সাময়িকীতে। সেখানে গবেষকরা বলেন, এমন একটা অ্যালগরিদম বের করা গেছে, যেখানে পরীক্ষাগারে বসেই ওষুধের উপাদানের কার্যকারিতা পরীক্ষা করা যাবে। বোঝা যাবে, ওষুধের ব্যবহৃত উপাদানগুলো পরবর্তী সময়ে কী ধরনের বিক্রিয়া ঘটাবে। কিংবা সেই বিক্রিয়ার পরিণতিই বা কেমন হবে।

গবেষকদলের নেতৃত্বে ছিলেন ড. বার্মা। তিনি বলেন, ‘আমাদের বিশ্বাস ওষুধের ঝুঁকি নির্ণয়ের এই পদ্ধতি নিরাপদ ওষুধ উৎপাদনে ব্যাপক ভূমিকা রাখবে।’ সূত্র : বিবিসি।



মন্তব্য