kalerkantho


ছাত্রলীগের সংঘর্ষের পর কুমিল্লা মেডিক্যাল বন্ধ

আহত ১০, দুজন আশঙ্কাজনক

নিজস্ব প্রতিবেদক, কুমিল্লা   

৬ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



ছাত্রলীগের সংঘর্ষের পর কুমিল্লা মেডিক্যাল বন্ধ

ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের পর গতকাল শুক্রবার কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে বৃহস্পতিবার গভীর রাতের ওই সংঘর্ষে অন্তত ১০ জন আহত হয়।

উপাধ্যক্ষ ডা. জাহাঙ্গীর হোসেন ভূঁইয়া কালের কণ্ঠকে জানান, নবীনবরণ অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে আধিপত্য বিস্তারের দ্বন্দ্ব গত কয়েক বছর ধরেই চলে আসছে। ওই দ্বন্দ্বের জের ধরেই বৃহস্পতিবার গভীর রাতে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখার জন্য আগামী ১১ জানুয়ারি পর্যন্ত কলেজ বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। বিকেল ৪টার মধ্যে (গতকাল) শিক্ষার্থীদের হল ছাড়তে বলার পর তারা হল ছেড়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত হল বন্ধ রাখার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে।

উপাধ্যক্ষ জানান, সংঘর্ষের বিষয়টি খতিয়ে দেখতে সাত সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। আগামী তিন কার্যদিবসের মধ্যে কমিটিকে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

শিক্ষার্থীরা জানায়, ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালনকে কেন্দ্র করে হান্নান ও পলাশ গ্রুপের মধ্যে অর্থাৎ কলেজের ডা. বীর-উত্তম ছাত্রাবাস ও শেখ রাসেল ছাত্রাবাসের শিক্ষার্থীদের মধ্যে সংঘর্ষে অন্তত ১০ জন আহত হয়। আহতদের মধ্যে পঞ্চম বর্ষের তৌফিকুল ইসলাম ও ইরফানুল হকের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাঁদের ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আহত অন্যদের মধ্যে ফয়সাল আমিন (১৭), মনির হোসেন (১৭), ইফতেখার (২০), পিয়াল (১৭), তানিম নূর (১৭), পারভেজ (২০), সগির (২০) ও আশিষ দাসকে কুমিল্লায় ভর্তি করা হয়েছে।



মন্তব্য