kalerkantho


হেলিকপ্টারের জরুরি অবতরণ ভয়াবহ দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা

কুয়েত সশস্ত্র বাহিনীর প্রতিনিধিদলের সবাই সুস্থ আছেন

বিশেষ প্রতিনিধি   

৪ জানুয়ারি, ২০১৮ ০০:০০



হেলিকপ্টারের জরুরি অবতরণ ভয়াবহ দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা

বাংলাদেশ সফররত কুয়েতের সশস্ত্র বাহিনীর চিফ অব স্টাফ লেফটেন্যান্ট জেনারেল মোহাম্মদ খালেদ আল খাদেরের নেতৃত্বে ১০ সদস্যের প্রতিনিধিদলের সবাই সুস্থ আছেন। গতকাল বুধবার রাত ৯টার দিকে রাজধানীর একটি হেটেলে মোহাম্মদ খালেদ আল খাদের সাংবাদিকদের এ কথা জানান। যান্ত্রিক ত্রুটির পরও তাঁদের বহনকারী হেলিকপ্টারটি সফলতার সঙ্গে জরুরি অবতরণ করানোর জন্য পাইলটদের পেশাদারত্বের প্রশংসা করেন তিনি। একই সঙ্গে হেলিকপ্টার থেকে তাঁদের নিরাপদে বাইরে বের করে আনার জন্য ফায়ার সার্ভিস ও বেসামরিক লোকজনদেরও প্রশংসা করেন।

মোহাম্মদ খালেদ আল খাদের বলেন, ‘সিলেটের শ্রীমঙ্গল এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। খুব সামান্যই আঘাত পাওয়ার ঘটনা করেছে। আমি আপনাদের নিশ্চিত করছি যে বাংলাদেশ সশস্ত্র বাহিনী, বেসামরিক লোকজন ও ফায়ার সার্ভিস মাত্র ৫ মিনিটের মধ্যেই দরজা খুলে আমাদের উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। ওই হেলিকপ্টারে আমরা এবং বাংলাদেশের যাঁরা ছিলেন; আপনারা দেখছেন, সকল প্রশংসা আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের, আমরা সবাই ভালো আছি, সুস্থ আছি।’

কুয়েতের সশস্ত্র বাহিনীর চিফ অব স্টাফ আরো বলেন, ‘ওই ঘটনার পর থেকে বাংলাদেশ সেনাপ্রধান প্রতিটি ক্ষণই আমাদের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করে চলেছেন। বাংলাদেশের আতিথেয়তায় ব্যক্তিগতভাবে আমি সুখী এবং আস্থাশীল।’

সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানানোর আগে লেফটেন্যান্ট জেনারেল মোহাম্মদ খালেদ আল খাদেরসহ প্রতিনিধিদলের সদস্যরা ওই হোটেলে বাংলাদেশ সেনা, নৌ ও বিমানবাহিনীর প্রধানদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতে মিলিত হন।

আইএসপিআরের আগে জানায়, গতকাল বুধবার সকাল আনুমানিক ১০টা ১০ মিনিটে বাংলাদেশ বিমানবাহিনীর একটি এমআই-১৭১ হেলিকপ্টার ১৬ জন আরোহীসহ মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গলে যাওয়ার সময় কারিগরি ত্রুটির কারণে বিজিবি হেলিপ্যাড থেকে ১০০ ফুট দূরত্বে জরুরি অবতরণ করে। হেলিকপ্টারের দুজন পাইলট উইং কমান্ডার ওমর ও ফ্লাইট লেফটেন্যান্ট মেহেদিসহ সব আরোহী জরুরি অবতরণের পর হেলিকপ্টার থেকে বেরিয়ে আসতে সক্ষম হন। বৈমানিকসহ সব আরোহী সুস্থ আছেন। হেলিকপ্টারটি সকাল ৯টা ২০ মিনিটে তেজগাঁও থেকে উড্ডয়ন করে।

উচ্চপর্যায়ের এই প্রতিনিধিদলে কুয়েতের সশস্ত্র বাহিনীর চিফ অব স্টাফ ছাড়াও রয়েছেন কুয়েত আর্মড ফোর্সের মিলিটারি এডুকেশন ডিপার্টমেন্টের প্রধান মেজর জেনারেল আনোয়ার জাসিম আল মাজিদি, কুয়েত নেভাল ফোর্সের কমান্ডার মেজর জেনারেল খালেদ আহমেদ আবদুল্লাহ এবং মুবারক আল আবদুল্লাহ জয়েন্ট কমান্ড অ্যান্ড স্টাফ কলেজের কমান্ড্যান্ট মেজর জেনারেল আবদুল্লাহ আবদুস সামাদ দাস্তি।  প্রতিনিধিদলটি সে দেশের একটি বিশেষ বিমানে গত সোমবার ঢাকায় এসে পৌঁছে। সেনাবাহিনীর অ্যাডজুট্যান্ট জেনারেল মেজর জেনারেল এস এম মতিউর রহমান তাঁদের অভ্যর্থনা জানান। গত মঙ্গলবার সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আবু বেলাল মোহাম্মদ শফিউল হকের সঙ্গে কুয়েত সশস্ত্র বাহিনীর চিফ অব স্টাফ ঢাকা সেনানিবাসে সেনাবাহিনী সদর দপ্তরে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন। সাক্ষাৎকালে তাঁরা পারস্পরিক কুশলাদি বিনিময় ছাড়াও দুই দেশের সেনাবাহিনীর বিদ্যমান প্রশিক্ষণ ও পেশাগত বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা করেন। এর আগে কুয়েত সশস্ত্র বাহিনীর চিফ অব স্টাফ ঢাকা সেনানিবাসে শিখা অনির্বাণে পুষ্পস্তবক অর্পণের মাধ্যমে বাংলাদেশের মহান স্বাধীনতাযুদ্ধে শাহাদত্বরণকারী সশস্ত্র বাহিনীর বীর সদস্যদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। এরপর সেনাকুঞ্জে তাঁকে সেনাবাহিনীর একটি চৌকস দল গার্ড অব অনার প্রদান করে। গার্ড অব অনার শেষে সেনাকুঞ্জ এলাকায় তিনি বৃক্ষরোপণ করেন। প্রতিনিধিদলটি পাঁচ দিনের রাষ্ট্রীয় সফর শেষে আগামীকাল শুক্রবার নিজ দেশে ফিরবে।


মন্তব্য