kalerkantho


সুন্দরবনে বিদেশি পর্যটকদের কাছ থেকে ড্রোন জব্দ

বাগেরহাট প্রতিনিধি   

৭ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



সুন্দরবনে বিদেশি পর্যটকদের কাছ থেকে ড্রোন জব্দ

প্রতীকী ছবি

সুন্দরবনে অবৈধভাবে ড্রোন উড়িয়ে ছবি তোলার সময় ১২ বিদেশি পর্যটকের কাছ থেকে একটি ড্রোন জব্দ করেছে বন বিভাগ। গত মঙ্গলবার দুপুরে শরণখোলা দুবলারচর রেঞ্জের আলোরকোল এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

পর্যটকদলটির ১২ নারী-পুরুষ ইউরোপের দেশ মাল্টার নাগরিক। তারা ‘মাবানা ট্যুরস লিমিটেড’-এর মাধ্যমে সুন্দরবনে বেড়াতে এসেছিল।

এ ঘটনায় বিদেশি পর্যটকদের আটক করা হয়নি। তবে ‘মাবানা ট্যুরস লিমিটেডের’ বিরুদ্ধে গতকাল বুধবার মামলা করেছে বন বিভাগ। এর আগে গত বছর সুন্দরবনে উড্ডয়নের সময় ফ্রান্সের নাগরিকদের কাছ থেকে একটি ড্রোন জব্দ করেছিল বন বিভাগ। তবে এখন পর্যন্ত ওই ঘটনার কোনো সুরাহা হয়নি।

সুন্দরবন পূর্ব বিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা (ডিএফও) মো. মাহমুদুল হাসান জানান, মাবানা ট্যুরস কর্তৃপক্ষ গত ৪ ডিসেম্বর বন বিভাগের অনুমতিক্রমে তিন দিনের জন্য মাল্টার ১২ পর্যটককে নিয়ে সুন্দরবনে আসে। ৫ ডিসেম্বর তারা লোকাল থেকে প্রায় ৮০ কিলোমিটার দূরে শরণখোলা রেঞ্জের দুবলারচরের আলোরকোল এলাকায় ড্রোনটি ওড়ায়। ড্রোন উড়তে দেখে দুবলা স্টেশনের বনপ্রহরীরা গিয়ে সেটি নামিয়ে তা জব্দ করেন।

পরে ওই পর্যটকদের সুন্দরবন থেকে বেরিয়ে যেতে এবং ভবিষ্যতে এ ধরনের আইনবিরোধী কর্মকাণ্ড থেকে বিরত থাকতে মাবানা ট্যুরসকে সতর্ক করা হয়। ওই ড্রোনে সুন্দরবনের কোন কোন এলাকার চিত্র ধারণ করা হয়েছে, তা পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে।

মাহমুদুল হাসান আরো জানান, বাংলাদেশের কোথাও ড্রোন উড্ডয়নের জন্য অনুমতি নেই। ওই বিদেশিরা কোনো ধরনের ঘোষণা ছাড়াই ড্রোন নিয়ে সুন্দরবনে প্রবেশ করে এবং ড্রোন উড়িয়ে ছবি তোলার চেষ্টা করছিল। বিদেশি নাগরিকদের ছেড়ে দেওয়া হলেও মাবানা ট্যুরস লিমিটেডের বিরুদ্ধ আইনগত ব্যবস্থ্য গ্রহণ করা হবে। বৃহস্পতিবার নাগাদ ড্রোনটি বাগেরহাটে সুন্দরবন পূর্ব বিভাগের কার্যালয়ে আনা হবে।

খুলনা অঞ্চলের বন সংরক্ষক মো. আমীর হোসাইন চৌধুরী জানান, মাল্টার ওই ১২ নাগরিক তাদের অনুমতি নিয়ে সুন্দরবনে প্রবেশ করলেও ড্রোনের বিষয়ে তাদের কিছু জানা ছিল না। সুন্দরবনে ড্রোন উড্ডয়নের অনুমতি নেই। বিদেশিরা কী কারণে সুন্দরবনে ড্রোন উড্ডয়নের চেষ্টা করছিল তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

বন সংরক্ষক মো. আমীর হোসাইন চৌধুরী আরো জানান, ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে ওই বিদেশি নাগারিকদের বিষয়ে পররাষ্ট্র এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করা হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, এর আগে ২০১৬ সালের ৩১ জানুয়ারি সুন্দরবনের কটকা এলাকায় উড্ডয়নের সময় একটি ড্রোন জব্দ করা হয়। ফ্রান্সের কয়েকজন নাগরিক সুন্দরবন ভ্রমণে গিয়ে ড্রোন উড্ডয়নের মাধ্যমে ছবি ধারণ করার সময় বন বিভাগ ড্রোনটি জব্দ করে এবং বিদেশিদের ছেড়ে দেয়। ওই ড্রোনটি এখন সুন্দরবন বিভাগের কাছে রয়েছে। গত বছর জব্দ করা ওই ড্রোনটির বিষয়ে এখনো কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি বলে বন বিভাগ জানিয়েছে।


মন্তব্য