kalerkantho


ব্রিটিশ জার্নালে বাংলাদেশ

রোগীপ্রতি ৪৮ সেকেন্ড সময় দেন ডাক্তাররা!

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

১১ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



রোগীপ্রতি ৪৮ সেকেন্ড সময় দেন ডাক্তাররা!

রোগীর পেছনে সবচেয়ে কম সময় ব্যয় করেন বাংলাদেশের চিকিৎসকরা। তাঁরা একজন রোগীর পেছনে গড়ে মাত্র ৪৮ সেকেন্ড সময় দেন।

চিকিত্সা সাময়িকী ব্রিটিশ মেডিক্যাল জার্নালে (বিএমজে) প্রকাশিত এক আন্তর্জাতিক গবেষণায় এ তথ্য জানানো হয়েছে।

৬৭টি দেশের ওপর করা গবেষণার ভিত্তিতে তৈরি করা এই প্রতিবেদনে বলা হয়, সুইডেনের চিকিৎসকরা প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা নিতে আসা একজন রোগীর পেছনে সবচেয়ে বেশি সময় দেন, ২২ মিনিটের বেশি। বাংলাদেশের প্রতিবেশীদের মধ্যে ভারতের চিকিৎসকরা রোগীপ্রতি গড়ে ২.৩ মিনিট, পাকিস্তানের চিকিৎসকরা রোগীপ্রতি গড়ে ১.৩ মিনিট এবং চীনের চিকিৎসকরা রোগীপ্রতি গড়ে ২ মিনিট সময় দেন। আর এশিয়ার দেশ সিঙ্গাপুরের চিকিৎসকরা প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবায় রোগীপ্রতি গড়ে সাড়ে ৯ মিনিট সময় দেন।

প্রতিবেদনে বলা হয়, সারা বিশ্বেই রোগী দেখার সময়ের ব্যাপক পার্থক্য রয়েছে। বেশির ভাগ দেশেই রোগীরা প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবার জন্য চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করতে সময় পান মাত্র কয়েক মিনিট। এর বিরূপ প্রভাব পড়ে রোগীর স্বাস্থ্যসেবার ওপর। পাশাপাশি কাজের বোঝা ও মানসিক চাপও পড়ে কিছু চিকিৎসকের ওপর।

ব্রিটিশ মেডিক্যাল জার্নাল বলছে, রোগী দেখা বিষয়ে ৬৭টি দেশের ১৭৯টি গবেষণার তথ্য পর্যালোচনা করা হয়েছে।

ওই গবেষণাগুলো ১৯৪৬ থেকে ২০১৬ সালের মধ্যে ইংরেজি, চীনা, জাপানি, স্পেন, পর্তুগিজ ও রুশ ভাষায় ছাপা হয়েছে। এসব গবেষণায় মোট দুই কোটি ৮৪ লাখ ৭০ হাজার ৭১২টি পরামর্শের তথ্য ব্যবহার করা হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, এই গবেষণায় বাংলাদেশের ছয়টি গবেষণার তথ্য ব্যবহার করা হয়েছে। এগুলো ১৯৯৪ থেকে ২০১৫ সালের মধ্যে ছাপা হয়েছে। এসব গবেষণায় বাংলাদেশের ৩৩ হাজার ৮৫৬ জন রোগীর তথ্য ব্যবহার করা হয়েছে।

ব্রিটিশ মেডিক্যাল জার্নাল বলছে, রোগীর পেছনে চিকিৎসকদের কনসালটেশন টাইম বা পরামর্শকালের সময় যত কম হবে, স্বাস্থ্যসেবার মানও তত খারাপ হবে। এতে সাধারণত রোগীর চিকিত্সা ব্যয় বেড়ে যায়। একই সঙ্গে বাড়ে রোগীর অতিমাত্রায় অ্যান্টিবায়োটিক ব্যবহারের শঙ্কাও। নষ্ট হয় চিকিৎসক-রোগী পারস্পরিক আস্থার সম্পর্ক। অন্যদিকে কনসালটেশন টাইম যত দীর্ঘ হয়, স্বাস্থ্যসেবার মানও তত উন্নত হয়।

একজন রোগীর পেছনে কমপক্ষে ১০-১৫ মিনিট সময় দেওয়া উচিত বলে মনে করেন ডাব্লিউএইচওর সাবেক আঞ্চলিক উপদেষ্টা অধ্যাপক ডা. মোজাহেরুল হক। তিনি বলেন, একজন রোগীর নাম ও বয়স জিজ্ঞাসা করতেই ৪৮ সেকেন্ড সময় চলে যায়। এ ছাড়া রোগীর অতীত ও বর্তমান এবং পারিবারিক ইতিহাসও জানতে হয়। এসবসহ ব্যবস্থাপত্র লিখতে ১০-১৫ মিনিট সময় নেওয়া উচিত।

গবেষণা প্রতিবেদনে আরো বলা হয়, অর্থনৈতিকভাবে এগিয়ে থাকা দেশগুলোর মধ্যে যুক্তরাষ্ট্রের চিকিৎসকরা রোগীপ্রতি গড়ে ২১ মিনিট সময় দেন। এ ছাড়া যুক্তরাজ্যে রোগীপ্রতি গড়ে ১০ মিনিট এবং অস্ট্রেলিয়ায় গড়ে ১৫ মিনিট সময় দেন চিকিৎসকরা।

 


মন্তব্য