kalerkantho


নাসিম হত্যায় মামলা দায়ের

প্রভাবশালীদের ছায়ায় বাড্ডায় জমজমাট জুয়া-মাদক

রেজোয়ান বিশ্বাস   

৮ নভেম্বর, ২০১৭ ০০:০০



প্রভাবশালীদের ছায়ায় বাড্ডায় জমজমাট জুয়া-মাদক

বিশ্ববিদ্যালয়ছাত্র নাসিম আহমেদ হত্যার ঘটনায় বাড্ডা থানায় মামলা করা হয়েছে। তবে পুলিশ অভিযুক্ত কাউকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি।

স্থানীয়দের দাবি, জুয়ার আসর ও মাদক ব্যবসায় বাধা দেওয়ায় সোমবার ঘটেছে এ হত্যাকাণ্ড। আর এসব অপরাধী দীর্ঘদিন ধরেই চালিয়ে আসছে মাদক ও জুয়ার আসর, যা এখন বিপিএল ক্রিকেট নিয়ে বেড়েছে। অপরাধীদের রাজনৈতিক আশ্রয় নিয়ে অভিযোগ করে অনেকে।

ঢাকা মহানগর পুলিশের গুলশান বিভাগের উপকমিশনার মোস্তাক আহমেদ বলেন, ‘নাসিম নামের শিক্ষার্থীকে ক্রিকেট খেলার বাজি ধরা নিয়ে বিরোধে খুন করা হয় বলে তথ্য পাওয়া গেছে। এ ঘটনায় জড়িত অনেকের নাম পাওয়া গেছে। এলাকায় অনেক জুয়ার আসর বসে বলে জানা গেছে। তথ্য যাচাই-বাছাই করে অপরাধীদের গ্রেপ্তারে চেষ্টা চলছে।

নিহতের বাবা আলী আহমেদ ফয়জুদ্দিন বাদী হয়ে গতকাল বাড্ডা থানায় একটি হত্যা মামলা করেছেন। এজাহারে আসিফ নামে এক ব্যক্তির নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতপরিচয় কয়েকজনকে আসামি করা হয়েছে।

সন্তানহারা আলী আহমেদ কালের কণ্ঠকে বলেন, ’যেসব সন্ত্রাসী ছেলেকে হত্যা করেছে তাদের পরিচয় পুলিশকে বলেছি। এখন দ্রুত তাদের গ্রেপ্তার করা হলে আত্মা শান্তি পাবে। যতক্ষণ তারা গ্রেপ্তার না হচ্ছে আমার পরিবার নিরাপদ নয়। ছেলেকে হত্যার আগে ওরা আমাকে মেরেছে। জুয়াড়িদের বিরুদ্ধে কেউ কথা বলতে সাহস দেখায় না। এলাকাবাসী এসব অপরাধীর পেশিশক্তির কাছে জিম্মি। ’

গতকাল দুপুরে পূর্ব বাড্ডার বাড়িটিতে গিয়ে দেখা যায় মাতম চলছে। ভিড় করে আছে প্রতিবেশী ও স্বজনরা। মা পারভীন আক্তার পাগলপ্রায়। খাটের ওপর বিলাপরত পারভীন বলেন, ‘আমার ছেলে তো কারো ক্ষতি করে নাই। ওরা ক্যান আমার বুকের মানিকরে মারল। আল্লায় ওগো বিচার করবো। ’ নাসিমের স্ত্রী শামীমা জাহান অন্তীর কান্না থামাতে বেগ পেতে হচ্ছে স্বজনদের। মাত্র ৯ মাস আগে তাঁদের বিয়ে হয়েছিল। স্বামীর মৃত্যু সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘সন্ত্রাসীরা ওরে মোবাইল ফোনে হুমকি দিয়েছিল। বাসা থেকে বের হলেই কল্লা ফেলে দিবে বলেছিল। কিন্তু ওরা সত্যিই খুন করতে পারে, সেটা মাথায় আসেনি। এর আগেও মাদক ব্যবসাসহ নানা অপকর্মে বাধা দেওয়ায় নাসিমকে হুমকি দিয়েছিল সন্ত্রাসীরা। ’

বাড্ডার পোস্ট অফিস গলি ঘুরে ও স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, এলাকায় রয়েছে উঠতি সন্ত্রাসীদের দাপট। মাদক ব্যবসায়ী রমজান আলী, আসিফ, শহীদুল, রশিদ, মিলন, রফিক, সবুর, আলাউদ্দিন, কামরুলসহ অনেকে প্রকাশ্যেই অপরাধ করে যাচ্ছে। জায়গা দখল করে বসাচ্ছে জুয়ার আসর। নিহত নাসিমের বাসার পেছনেই রয়েছে অন্তত দুটি মাদক আস্তানা। সরু গলির ধারে ময়লা-আবর্জনার স্তূপ। ডাম্পিং জোনের কাছেই চারটি টিনের ঘর। পাশেই কয়েকটি রিকশা গ্যারেজ। আগাছায় ভরা স্থানটিতে টিনের ঘরে নিয়মিত মাদক ও জুয়ার আসর বসে বলে অভিযোগ করে অনেকে। রাত হলেই সেখানে ক্যারম বোর্ড সাজিয়ে অবস্থান নেয় সন্ত্রাসীরা। পূর্ব বাড্ডায় এ রকম অন্তত ২০টি জুয়ার আসর বসছে বলে জানায় স্থানীয়রা। রাজনৈতিক নেতাদের শেল্টারে এসব সন্ত্রাসী নির্বিঘ্নেই অপরাধ কর্মকাণ্ড চালাচ্ছে।

স্থানীয় বাসিন্দা আব্দুল কাইয়ুম বলেন, ‘বাড়িওয়ালাদের ছেলেদের টার্গেট করে অপরাধীচক্র মাদক ছড়িয়ে দিচ্ছে। অনেক জুয়ার আসর আছে। অপরাধীরা রাজনৈতিক নেতাদের ঘনিষ্ঠ হওয়ায় এলাকাবাসী নীরবে মেনে নিচ্ছে এসব কাজ। ’

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ২১ নম্বর ওয়ার্ডের আওতাধীন এলাকাটির অপরাধ কর্মকাণ্ড সম্পর্কে জানতে কাউন্সিলর ওসমান গনিকে ফোন করা হলে তিনি ব্যস্ত আছেন বলে জানান। তিনি বলেন, ‘ভাই, একটা মিটিংয়ে আছি, আমি এসব কিছু জানি না। আমার কাছে কেউ অভিযোগ দেয়নি। ’

সোমবার সকালে বাড্ডায় নিজ বাসার সামনে খুনের শিকার হন নাসিম আহমেদ (২৩) নামের এক যুবক। তিনি মানারাত বিশ্ববিদ্যালয়ে বিবিএ তৃতীয় বর্ষের ছাত্র ছিলেন। স্বজনদের দাবি, বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের (বিপিএল) ক্রিকেট খেলা নিয়ে বাড্ডায় জুয়ার আয়োজন করেছিল কয়েকজন। আগের রাতে তাদের সঙ্গে নাসিমের তর্ক হয়। এরপর সকালে ঘটে খুনের ঘটনা।


মন্তব্য