kalerkantho


বন্যার্তদের পাশে ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপ

লালমনিরহাট, কুড়িগ্রাম ও জামালপুরে ত্রাণ বিতরণ

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

২৩ আগস্ট, ২০১৭ ০০:০০



বন্যার্তদের পাশে ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপ

লালমনিরহাট সদর উপজেলার চরকুলাঘাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে বসুন্ধরা গ্রুপের প্রতিষ্ঠান ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপের ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রমে আসা বন্যাদুর্গতরা। ছবি : কালের কণ্ঠ

ভয়াবহ বন্যায় বিপর্যস্ত উত্তরাঞ্চলের জনপদে দুর্গতদের পাশে দাঁড়িয়েছে বসুন্ধরা গ্রুপের প্রতিষ্ঠান ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপ। প্রতিষ্ঠানটির উদ্যোগে গতকাল মঙ্গলবার লালমনিরহাট, কুড়িগ্রাম ও জামালপুরে বন্যার্তদের মাঝে ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে।

তাদের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে চাল-ডালসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় বিভিন্ন খাদ্যপণ্য ও শাড়ি-লুঙ্গি। দুর্গতরা এসব পেয়ে সন্তুষ্টি প্রকাশের পাশাপাশি এ ধরনের কাজে বসুন্ধরা গ্রুপ এগিয়ে আসায় গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহানের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছে।

লালমনিরহাট প্রতিনিধি জানান, ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপের পক্ষ থেকে গতকাল লালমনিরহাটের হাতীবান্ধার আট ইউনিয়ন ও সদর উপজেলার একটি ইউনিয়নে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্তদের মাঝে চালসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় নানা পণ্য ও শাড়ি-লুঙ্গি বিতরণ করা হয়।

হাতীবান্ধা আলিমুদ্দিন কলেজ মাঠে ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপের প্রতিষ্ঠান কালের কণ্ঠ’র পাঠক সংগঠন শুভসংঘের সহযোগিতায় গতকাল সকাল ১১টার দিকে ত্রাণ বিতরণ করা হয়। এই কার্যক্রমে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন হাতীবান্ধা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান লিয়াকত হোসেন বাচ্চু। আরো বক্তব্য দেন হাতীবান্ধার ইউএনও সৈয়দ এনামুল কবির, কলেজের অধ্যক্ষ সরওয়ার হায়াত খান, কালের কণ্ঠ রংপুর অফিস প্রধান স্বপন চৌধুরী ও শুভসংঘের লালমনিরহাট শাখার সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত রানা। পরে অতিথিরা আনুষ্ঠানিকভাবে নানা বয়সী নারী-পুরুষের হাতে ত্রাণসামগ্রী তুলে দিয়ে ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন হাতীবান্ধা এসএস উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রেজাউল করিম প্রধান, শাহ গরীব উল্লাহ বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক তবিবর রহমান, সাংবাদিক আসাদুজ্জামান সাজু, বাংলানিউজের জেলা প্রতিনিধি খোরশেদ আলম সাগর, সাংবাদিক নিয়াজ আহমেদ শিপন, জাহাঙ্গীর আলম রিকো ও শাহাররুপ আলম খান সুমন। এ ছাড়া ত্রাণ কার্যক্রমে অংশ নেন বসুন্ধরা ও ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপ এবং বসুন্ধরা সিমেন্ট সেক্টরের বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তারা।

হাতীবান্ধার সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত গড্ডিমারী ও সিন্দুর্ণা এবং সিংগীমারি, সানিয়াজান, টংভাঙ্গা, পাটিকাপাড়া, ডাউয়াবাড়ী ও ফকিরপাড়ার ক্ষতিগ্রস্ত এক হাজার পরিবারের মাঝে সহায়তা হিসেবে বিভিন্ন ত্রাণসামগ্রী বিতরণ করা হয়।    

প্রায় ১৭ কিলোমিটার দূরের তিস্তা ব্যারাজ এলাকা থেকে ত্রাণের জন্য এসেছিলেন আমেনা বেগম। বললেন, ‘নদী আমাদের নিঃস্ব করেছে। তাই দিন কাটছে খুব কষ্টে। এ অবস্থায় ত্রাণের আশায় এখানে এসেছি। ’ তাঁর মতো অনেকেই যেমন এসেছে দূর-দুরান্ত থেকে, তেমনি কেউ কেউ এসেছে আশপাশের এলাকা থেকেও। ত্রাণসামগ্রী পেয়ে হাসি ফোটে বন্যাদুর্গত এসব মানুষের মুখে। অনেকে হয়ে পড়ে আবেগতাড়িত।

গড্ডিমারী এলাকার গৃহবধূ জরিনা খাতুন বলেন, ‘এবারের বন্যায় আমরা নিঃস্ব হয়ে পড়েছি। এই ত্রাণসামগ্রী পেয়ে অনেক উপকার হলো। ’ শেফালী খাতুন বলেন, ‘বন্যায় সব কিছুর সঙ্গে আমাদের কাপড়চোপড়ও ভেসে গেছে। বলতে গেলে এক কাপড়েই থাকতে হচ্ছে। নতুন শাড়ি পেয়ে সেই কষ্ট দূর হলো। ’

হাতীবান্ধায় ত্রাণ বিতরণের সার্বিক বিষয়ে সহায়তায় এগিয়ে আসেন আলিমুদ্দিন কলেজের অধ্যক্ষ সরওয়ার হায়াত খান, সাংবাদিক মিজানুর রহমান দুলাল, ব্যবসায়ী সেলিম রেজা, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের আহ্বায়ক স্কুল শিক্ষক রোকনুজ্জামান সোহেল, হাতীবান্ধা প্রেস ক্লাব সভাপতি ইলিয়াস বসুনিয়া পবন, সাংবাদিক হাসান মাহমুদ, রবিউল হাসান ও রবিউল ইসলাম রবি।

এদিকে গতকাল সকালে সদর উপজেলার কুলাঘাট ইউনিয়ন পরিষদ মাঠেও ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপের পক্ষ থেকে দেড় হাজার বন্যার্ত মানুষের মধ্যে খাদ্যসামগ্রী ও শাড়ি-লুঙ্গি বিতরণ করা হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন লালমনিরহাট জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট মতিয়ার রহমান। অতিথি হিসেবে আরো উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) রেজাউল আলম সরকার, জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি সাইফুল ইসলাম, কুলাঘাট ইউপি চেয়ারম্যান ইদ্রীস আলী প্রমুখ।

কুড়িগ্রামে খাদ্য ও কাপড় বিতরণ : কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি জানান, বন্যাকবলিত কুড়িগ্রাম সদরের কাঁঠালবাড়ী ও হলোখানা ইউনিয়নে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত ৯ শতাধিক পরিবারের মাঝে গতকাল খাদ্য ও কাপড় বিতরণ করা হয়। বিকেল সাড়ে ৫টায় সদর উপজেলার হলোখানা মণ্ডলপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বসুন্ধরা গ্রুপের উদ্যোগে কালের কণ্ঠ, বাংলাদেশ প্রতিদিন, নিউজটোয়েন্টিফোর, ডেইলি সান, বাংলানিউজটোয়েন্টিফোরডটকম ও রেডিও ক্যাপিটাল এই বিতরণ কার্যক্রম পরিচালনা করে।

ত্রাণ বিতরণ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আমিন আল পারভেজ, প্রবীণ শিক্ষাবিদ খায়রুল আনম, কালেক্টরেট স্কুল অ্যান্ড কলেজের অধ্যক্ষ হারুন অর রশীদ প্রমুখ।

জামালপুরে ত্রাণ বিতরণ : জামালপুর প্রতিনিধি জানান, আকর্ণ বিস্তৃত হাসি নিয়ে চিনাডুলী ইউনিয়নের ষাটোর্ধ্ব মুসলিম উদ্দিন বললেন, ‘দুই দিন ধরে চিঁড়া-মুড়ি খেয়ে আধপেটা দিন কাটানোর পর আজ পেলাম আপনাদের ত্রাণ। আজ বাড়ির সবাইকে নিয়ে দুটো ডাল-ভাত খাব। ’ সকালবেলা দুমুঠো পান্তা খেয়ে ত্রাণ নিতে এসেছিলেন বিষরশি গ্রামের বৃদ্ধা ডালিমন বেওয়া। ত্রাণ পেয়ে দুই হাত তুলে আল্লাহর কাছে দোয়া করতে করতে বললেন, ‘ত্রাণ পাইয়া শান্তি পাইলাম বাবা। যারা চাইল-ডাইল দিল, আল্লাহ যেন তাগো ভালো করে। ’ চর প্রজাপতি গ্রামের সত্তরোর্ধ্ব আব্দুল জব্বার শেখ বসুন্ধরা গ্রুপের পক্ষ থেকে দেওয়া চাল, ডাল, চিঁড়াসহ ত্রাণের ব্যাগ হাতে নিয়ে কেঁদে ফেললেন। বললেন, ‘বাবারে, কত দিন ভাত খাই না!’

শুধু মুসলিম উদ্দিন, ডালিমন বেওয়া আর জব্বার শেখ নন, জামালপুরের ইসলামপুর উপজেলার প্রত্যন্ত চরের বন্যায় সব হারানো হাজারো মানুষের চোখেমুখে ছিল প্রাপ্তির তৃপ্তি। ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপের দেওয়া ত্রাণ সহায়তা হাসি ফুটিয়েছে এসব বানভাসির মুখে।

ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপের কর্মীরা গতকাল মঙ্গলবার ত্রাণ নিয়ে ছুটে গিয়েছিলেন জামালপুর জেলার ইসলামপুর ও মাদারগঞ্জ উপজেলায়। ইসলামপুরে বন্যায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত চিনাডুলী, নোয়ারপাড়া ও সাপধরী ইউনিয়নে। গ্রুপের আরেকটি টিম ছুটে গিয়েছিল মাদারগঞ্জ উপজেলায়। স্থানীয় প্রশাসনের সহায়তায় গ্রুপের কর্মীরা দিনভর উপস্থিত থেকে সব হারানো অসহায় বানভাসি মানুষের হাতে তুলে দিয়েছেন চাল, চিঁড়া, গুড়, বিস্কুট, ওষুধ, স্যালাইন ও শাড়ি-লুঙ্গি।

এখানে হাজারো মানুষের হাতে ত্রাণ পৌঁছে দিতে গতকাল দিনভর বসুন্ধরার কর্মীদের সঙ্গে ছিলেন ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রুবেল মাহমুদ, সেনায়ারপাড়া ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মশিউর রহমান বাদল প্রমুখ।

এ ছাড়া মাদারগঞ্জ উপজেলায় সহায়তার হাত বাড়িয়ে দেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ডক্টর কামরুজ্জামান, উপজেলা চেয়ারম্যান ওবায়দুর রহমান বেলাল ও পৌর মেয়র মির্জা গোলাম কিবরিয়া কবির।


মন্তব্য