kalerkantho


ফখরুলের গাড়িবহরে হামলা

থানায় অভিযোগ দেয়নি বিএনপি

পুলিশ বলছে, অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

২০ জুন, ২০১৭ ০০:০০



থানায় অভিযোগ দেয়নি বিএনপি

রাঙামাটি যাওয়ার পথে রাঙ্গুনিয়ায় মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের গাড়িবহরে হামলার ঘটনায় গতকাল সোমবার সন্ধ্যা পর্যন্ত থানায় কোনো অভিযোগ দাখিল করেনি বিএনপি। পুলিশও হামলার সঙ্গে জড়িত কাউকে আটক করেনি।

স্থানীয় বিএনপি নেতারা দাবি করছেন, হামলাকারীরা সবাই ছাত্রলীগ, যুবলীগ ও স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতাকর্মী। তারা এলাকায় প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে।

বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবুর রহমান শামীম কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘এখনো থানায় অভিযোগ দাখিল করা হয়নি। হামলার সঙ্গে জড়িতদের নাম সংগ্রহ করে অভিযোগ তৈরির জন্য আইনজীবীদের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। অভিযোগ তৈরির পরই জমা দেওয়া হবে। ’

চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ সুপার নূরে আলম মিনা কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘বিএনপি এখনো অভিযোগ দাখিল করেনি। অভিযোগ দিলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সরকারের তরফ থেকে একই ধরনের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। হামলার ঘটনায় জড়িতদের শাস্তির আওতায় আনা হবে।

আর বিএনপি অভিযোগ না দিলেও ঘটনার সঙ্গে কারা কারা জড়িত, তাদের বিষয়ে পুলিশ অনুসন্ধান চালাচ্ছে। ’

নাম প্রকাশ করা হবে না—এমন শর্তে জেলা পুলিশের একজন দায়িত্বশীল কর্মকর্তা কালের কণ্ঠকে জানিয়েছেন, ঘটনার পর মিছিলের ছবি থেকেই হামলাকারীদের পরিচয় শনাক্ত করা সম্ভব হয়েছে। তাদের প্রত্যেকের রাজনৈতিক পরিচয় আছে, এটা অস্বীকার করার সুযোগ নেই। কিন্তু বিএনপি অভিযোগ না দিলে জেলা পুলিশের কিছুই করার থাকবে না। বিএনপি অভিযোগ দিলে যথাযথ গুরুত্ব দিয়ে হামলাকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত  ব্যবস্থা  নেওয়ার নির্দেশনা রয়েছে। ’

রাঙ্গুনিয়া থানার ওসি ইমতিয়াজ মো. আহসানুল কাদের ভূঞা কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘ঘটনা ঘটেছে রবিবার সকালে। সোমবার (গতকাল) সন্ধ্যা পর্যন্ত বিএনপির অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলেই আইনগত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ নির্দেশ দিয়েছে। ’

প্রসঙ্গত, পাহাড়ধসে ক্ষতিগ্রস্তদের ত্রাণ দিতে রাঙামাটিতে যাওয়ার পথে রবিবার সকালে রাঙ্গুনিয়ার ইছাখালী বাজার এলাকায় বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের গাড়িবহরে হামলা চালানো হয়। এতে মির্জা ফখরুলসহ বিএনপির শীর্ষ পাঁচ নেতা আহত হন।

বিএনপির ত্রাণ বিতরণ দুই-তিন দিনের মধ্যেই : চট্টগ্রাম ও রাঙামাটি জেলায় পাহাড়ধসে দেড় শতাধিক মানুষের প্রাণহানির ঘটনার পর চট্টগ্রাম উত্তর জেলা বিএনপি তাদের পূর্বনির্ধারিত ইফতার মাহফিল বাতিল করে সেই টাকা দুর্গতদের সাহায্য হিসেবে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয়। এরপর প্রায় পাঁচ লাখ টাকা বিএনপির শীর্ষ নেতাদের কাছে পৌঁছে দেওয়া হয়। এ টাকার সঙ্গে আরো টাকা যোগ করে বিএনপি মহাসচিবের নেতৃত্বে একটি দল রবিবার যাচ্ছিল রাঙামাটিতে। কিন্তু পথে হামলার ঘটনায় ত্রাণ বিতরণ না করেই দলটি ফিরে আসতে বাধ্য হয়।  

এ বিষয়ে বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবুর রহমান শামীম কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘ত্রাণ হিসেবে পণ্যসামগ্রী দেওয়ার সিদ্ধান্ত ছিল না বিএনপির। নগদ অর্থ সাহায্য দেওয়ার কথা ছিল। রাঙামাটিতে যাওয়ার পথে মহাসচিবের গাড়িবহরে হামলার পর তিনি চট্টগ্রামে ফিরে আসেন। তাই অর্থ বিতরণ করা সম্ভব হয়নি। এই অর্থ দুই-তিন দিনের মধ্যেই রাঙামাটিতে গিয়ে দুর্গতদের মধ্যে বিতরণের জন্য দলের পক্ষ থেকে আমাকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আমি গিয়ে দুর্গতদের অর্থ দিয়ে আসব। ’

 


মন্তব্য