kalerkantho


বিচার দাবিতে কুমিল্লায় শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

নিজস্ব প্রতিবেদক, কুমিল্লা   

২১ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



বিচার দাবিতে কুমিল্লায় শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

তনুর খুনিদের বিচার দাবিতে গতকাল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন। ছবি : কালের কণ্ঠ

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজের ইতিহাস বিভাগের ছাত্রী ও থিয়েটারকর্মী সোহাগী জাহান তনু হত্যাকাণ্ডের এক বছর পূর্ণ হয়েছে গতকাল সোমবার। কিন্তু এত দিনেও এ ঘটনার তদন্ত শেষ হয়নি।

শনাক্ত হয়নি ঘটনার সঙ্গে জড়িত কেউ। তনুর খুনিদের গ্রেপ্তার ও বিচার দাবিতে গতকাল ভিক্টোরিয়া কলেজে মানববন্ধন করেছেন তার সহপাঠী ও শিক্ষকরা। কুমিল্লা গণজাগরণ মঞ্চের পক্ষ থেকে পুলিশকে দেওয়া হয়েছে স্মারকলিপি। এতে আগামী ১০ দিনের মধ্যে তনু হত্যা মামলার দৃশ্যমান অগ্রগতি প্রকাশ করার দাবি জানানো হয়েছে। এক বছরেও তনু হত্যা মামলার তদন্তে অগ্রগতি না হওয়ায় হতাশা প্রকাশ করেছে তনুর পরিবার। তারা বলেছে, ‘আমরা সঠিক বিচার পাব কি না তা নিয়ে সংশয়ে আছি। ’

গতকাল তনুর হত্যাকারীদের বিচারের দাবিতে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারি কলেজের কলাভবনের সামনে সকাল ১০টায় ইতিহাস বিভাগের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের আয়োজনে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়। এতে কলেজ থিয়েটারের কর্মীসহ সাধারণ শিক্ষার্থীরা অংশ নেয়। মানববন্ধন থেকে তনু হত্যার দৃষ্টান্তমূলক বিচার দাবি করা হয়।

এ সময় কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মো. আবু তাহের বলেন, ‘সোহাগী জাহান তনু আমাদের কলেজের শিক্ষার্থী ছিল। আমরা তার হত্যাকারীর সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করছি। তনু হত্যাকাণ্ডের যে তদন্ত প্রক্রিয়াধীন রয়েছে তা শিগগির প্রকাশ পাবে বলে আমি আশা করছি। ’ পরে তনুর আত্মার মাগফিরাতের জন্য দোয়া ও মিলাদের আয়োজন করা হয়।

এদিকে কুমিল্লা গণজাগরণ মঞ্চ আগামী ১০ দিনের মধ্যে তনু হত্যা মামলার দৃশ্যমান অগ্রগতি প্রকাশ করার দাবি জানিয়েছে। তারা এ ব্যাপারে জেলা পুলিশ সুপার ও সিআইডির সহকারী পুলিশ সুপারকে স্মারকলিপি দিয়েছে। গণজাগরণ মঞ্চ বলেছে, তাদের দাবি মানা না হলে আগামী ২ এপ্রিল থেকে লাগাতার কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

গতকাল সকালে তনুর গ্রামের বাড়ি মুরাদনগর উপজেলার মির্জাপুর গ্রামে মিলাদ মাহফিল ও এতিমদের মধ্যে খাবার বিতরণ করা হয়।

গত বছরের ২০ মার্চ রাতে তনুর লাশ কুমিল্লার ময়নামতি সেনানিবাসের পাওয়ার হাউসের কাছে কালভার্টের ২০ থেকে ৩০ গজ পশ্চিমে ঝোপ থেকে উদ্ধার করা হয়। ২১ মার্চ তনুর বাবা ইয়ার হোসেন অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেন।


মন্তব্য