kalerkantho


সাভারে প্রকাশ্যে দেড় কোটি টাকা ছিনতাই

নিজস্ব প্রতিবেদক, সাভার (ঢাকা)   

৮ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



সাভারে প্রকাশ্যে দেড় কোটি টাকা ছিনতাই

সাভারে প্রকাশ্যে দিনদুপুরে একটি প্রাইভেট কার আটকে একটি গার্মেন্টের শ্রমিকদের বেতনের এক কোটি ৫৩ লাখ টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে হেমায়েতপুর-সিংগাইর মহাসড়কের নাজিমনগর এলাকায় ওই ঘটনা ঘটে। বেবিলন গ্রুপের অঙ্গপ্রতিষ্ঠানে শ্রমিক-কর্মচারীদের বেতন দেওয়ার জন্য ওই টাকা নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল।

বেবিলন গ্রুপের জ্যেষ্ঠ ব্যবস্থাপক (এইচআর অ্যান্ড কমপ্লায়েন্স) মাহমুদ আলম সিদ্দিকী জানান, হেমায়েতপুর-সিংগাইর মহাসড়কের নাজিমনগর এলাকায় বেবিলন গ্রুপের প্রতিষ্ঠান অবনী নিটওয়্যারের কার্যালয়। ওই প্রতিষ্ঠান থেকে দুপুর সোয়া ১২টার দিকে একটি প্রাইভেট কারে করে প্রতিষ্ঠানটির প্রায় ২০০ গজ পশ্চিমে একই গ্রুপের অবনী ফ্যাশনের শ্রমিক-কর্মচারীদের বেতনের জন্য প্রায় দুই কোটি ১৬ লাখ টাকা নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। এ সময় প্রাইভেট কারের চালক জামাল উদ্দিন ছাড়াও প্রতিষ্ঠানটির প্রধান কার্যালয়, অবনী নিটওয়্যার ও অবনী ফ্যাশনের অ্যাকাউন্টস এবং প্রডাকশনের চারজন কর্মকর্তা ছিলেন।

ওই চার কর্মকর্তার বরাত দিয়ে মাহমুদ আলম সিদ্দিকী বলেন, গাড়িতে চারটি ব্যাগে টাকা ছিল। প্রাইভেট কারটি হেমায়েতপুর-সিংগাইর মহাসড়কে ইউটার্ন নেওয়ার সময় দুটি মোটরসাইকেল প্রাইভেট কারটি আটকে দেয়। পরে আরেকটি মোটরসাইকেলে এসে গাড়িটিকে উদ্দেশ করে গুলি ছোড়ে দুর্বৃত্তরা। একপর্যায়ে তারা ক্রিকেট ব্যাট দিয়ে গাড়ির কাচ ভেঙে ফেলে এবং গাড়ির চাবি নিয়ে নেয়। এরপর তারা টাকার তিনটি ব্যাগ নিয়ে হেমায়েতপুরের দিকে চলে যায়।

তবে টাকার একটি ব্যাগ রয়ে যায়। ছিনতাইকারীদের নিয়ে যাওয়া টাকার পরিমাণ এক কোটি ৫৩ লাখ। দুর্বৃত্তদের হামলায় গাড়িতে থাকা প্রতিষ্ঠানটির অ্যাকাউন্টস অফিসার জাহিদুর রহমান, প্রডাকশন ম্যানেজার নাসির উদ্দিন ও এইচআর ম্যানেজার আতিকুর রহমান সামান্য আহত হয়েছেন। তাঁদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী হোটেল ব্যবসায়ী রমজান আলী ও ভাই ভাই ট্রেডার্সের মালিক মোহাম্মদ আলী ঘটনা সম্পর্কে অভিন্ন কথা বলেন। তাঁরা বলেন, প্রথমে তাঁরা একটি গুলির শব্দ শুনেছেন। এরপর কিছু বুঝে ওঠার আগেই এক মিনিটের মধ্যে কী ঘটে গেল তা তাত্ক্ষণিকভাবে তাঁরা বুঝে উঠতে পারেননি। তাঁরা বলেন, তিনটি মোটরসাইকেলে দুজন করে ছয়জন লোক ছিল। তারা ছিনতাই শেষে হেমায়েতপুরের দিকে চলে যায়। প্রত্যেকের মাথায়ই হেলমেট ছিল।

ঢাকা জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আশরাফুল আজীম বলেন, খবর পাওয়ার পর পুলিশ ও র‌্যাবের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন। ঘটনাটি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে। তবে জড়িতদের কাউকে এখনো শনাক্ত করা যায়নি। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য গাড়িচালক জামাল উদ্দিনসহ দুজনকে থানায় আনা হয়েছে।


মন্তব্য