kalerkantho


আইওআরএ সম্মেলন

জাকার্তায় ফুল দিয়ে অভ্যর্থনা প্রধানমন্ত্রীকে

কালের কণ্ঠ ডেস্ক   

৭ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



জাকার্তায় ফুল দিয়ে অভ্যর্থনা প্রধানমন্ত্রীকে

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গতকাল ইন্দোনেশিয়ার হালিম পারদানা কুসুমা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছলে তাঁকে অভ্যর্থনা জানান দেশটির নারী ক্ষমতায়ন ও শিশুরক্ষা বিষয়ক মন্ত্রী ইয়াহানা সুসানা ইয়েমবাইস। ছবি : পিআইডি

ভারত মহাসাগরীয় অঞ্চলের দেশগুলোর জোট আইওআরএর ২০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে ‘লিডারস সামিটে’ যোগ দিতে তিন দিনের সফরে ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তায় পৌঁছেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সম্মেলনের ফাঁকে প্রধানমন্ত্রী ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট জোকো উইদোদো ও শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট মাইত্রিপালা সিরিসেনার সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করবেন।

গতকাল সোমবার স্থানীয় সময় দুপুর ২টা ৫০ মিনিটে প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের বিশেষ ফ্লাইটটি জাকার্তার হালিম পারদানা কুসুমা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। বিমানবন্দরে তাঁকে ফুল দিয়ে অভ্যর্থনা জানান ইন্দোনেশিয়ার নারীর ক্ষমতায়ন ও শিশু সুরক্ষাবিষয়ক মন্ত্রী ইউহানা সুসানা ইয়েমবাইস ও জাকার্তায় বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মেজর জেনারেল আজমল কবির। বিমানবন্দর থেকে মোটর শোভাযাত্রা করে শেখ হাসিনাকে নেওয়া হয় জাকার্তার সাংরি-লা হোটেলে। এ সফরে সেখানেই অবস্থান করবেন তিনি।

এর আগে গতকাল সকাল ৮টা ৫৫ মিনিটে ঢাকা ছাড়ে প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী বিমানটি। শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে প্রধানমন্ত্রীকে বিদায় জানাতে উপস্থিত ছিলেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, বিমান ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন, সড়ক যোগাযোগ ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, প্রধান মন্ত্রীর উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম, চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজ, তিন বাহিনীর প্রধানরা এবং পুলিশ মহাপরিদর্শকসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। পররাষ্ট্রমন্ত্রী ছাড়াও বাংলাদেশের ব্যবসায়ীদের ৬০ সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল এই সফরে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে রয়েছেন।

২১টি দেশ নিয়ে গঠিত ইন্ডিয়ান ওশান রিম অ্যাসোসিয়েশনের (আইওআরএ) বর্তমান চেয়ার ইন্দোনেশিয়া ২০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদ্যাপনের আয়োজক। এবারের সম্মেলনের মূল প্রতিপাদ্য হচ্ছে ‘শান্তিপূর্ণ, স্থিতিশীল ও সমৃদ্ধ ভারত মহাসাগরের জন্য সমুদ্র সহযোগিতা জোরদার’।

সম্মেলনে আইওআরএর সদস্য রাষ্ট্রের নেতারা এবং সাত ডায়ালগ পার্টনার ছাড়াও অন্যান্য বিশেষ আমন্ত্রিত অতিথিদের মধ্যে পারস্পরিক সহযোগিতা ও ঘনিষ্ঠতা বৃদ্ধিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে আশা করা হচ্ছে।

সংগঠনটির সদস্য রাষ্ট্রগুলো হলো বাংলাদেশ, ভারত, অস্ট্রেলিয়া, ইন্দোনেশিয়া, ইরান, কেনিয়া, মাদাগাসকার, কমোরোস, মালয়েশিয়া, মরিশাস, মোজাম্বিক, ওমান, সিসিলি, সিঙ্গাপুর, সোমালিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা, শ্রীলঙ্কা, তানজানিয়া, থাইল্যান্ড, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও ইয়েমেন। সংগঠনের ডায়ালগ পার্টনার হচ্ছে চীন, মিসর, ফ্রান্স, জার্মানি, জাপান, যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্র।

সফরের প্রথম দিন গতকাল জাকার্তা কনভেনশন সেন্টারের (জেসিসি) প্লেনারি হলে ‘লিডারস ওয়েলকামিং ডিনারে’ অংশ নেওয়ার কথা শেখ হাসিনার। তিনি আজ সকালে জাকার্তা কনভেনশন সেন্টারে সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন। এরপর ‘অ্যাডপশন অব দি এজেন্ডা অ্যান্ড প্রোগ্রাম অব ওয়ার্ক’ বিষয়ক অধিবেশনে যোগ দেবেন। পরে ‘শান্তিপূর্ণ, স্থিতিশীল ও সমৃদ্ধ ভারত মহাসাগরের জন্য সমুদ্র সহযোগিতা জোরদার’ শীর্ষক আলোচনায় বক্তব্য দেবেন তিনি। আশা করা হচ্ছে, আগামীকাল বুধবার প্রধানমন্ত্রী দেশে ফিরবেন। সূত্র : বাসস।


মন্তব্য