kalerkantho


মেয়র বুলবুলকে বরখাস্তের আদেশ অবৈধই থাকল

‘দায়িত্ব গ্রহণে প্রস্তুত’

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা ও রাজশাহী   

৬ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



মেয়র বুলবুলকে বরখাস্তের আদেশ অবৈধই থাকল

রাজশাহী সিটি করপোরেশনের (রাসিক) মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলকে বরখাস্তের আদেশ অবৈধ বলে হাইকোর্টের দেওয়া রায় বহাল রেখেছেন আপিল বিভাগ। হাইকোর্টের রায় স্থগিত করতে রাষ্ট্রপক্ষের করা আবেদন খারিজ করে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগ গতকাল রবিবার এই আদেশ দেন।

এর ফলে বুলবুলের মেয়র পদে ফিরতে আর কোনো আইনি বাধা নেই বলে জানিয়েছেন তাঁর আইনজীবী আমিনুল হক হেলাল।

আদালতে বুলবুলের পক্ষে আইনজীবী ছিলেন অ্যাডভোকেট আবদুল বাসেত মজুমদার, সাবেক অ্যাটর্নি জেনারেল এ এফ হাসান আরিফ ও অ্যাডভোকেট আমিনুল হক হেলাল। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম।

রায়ের প্রতিক্রিয়ায় বুলবুল বলেন, ‘মেয়র হিসেবে ফিরতে সব আইনি বাধার অবসান হয়েছে এ রায়ে। মেয়রের দায়িত্ব গ্রহণে এখন সম্পূর্ণ প্রস্তুত আমি। এ রায়ের ফলে আমি রাজশাহীবাসীর মনের আসা পূরণ করতে পারব। ’ 

নাশকতার অভিযোগের চার মামলায় পুলিশ বুলবুলের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিলের পর ২০১৫ সালের ৭ মে তাঁকে সাময়িক বরখাস্ত করে স্থানীয় সরকার বিভাগ। বরখাস্তের ওই আদেশের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে রিট আবেদন করেন বুলবুল। হাইকোর্ট ওই বছরের ২৮ মে বরখাস্তের আদেশ স্থগিত করে রুল জারি করেন।

এ রুলের শুনানি শেষে ২০১৬ সালের ১০ মার্চ হাইকোর্ট স্থানীয় সরকার বিভাগের আদেশ অবৈধ বলে রায় দেন।

হাইকোর্টের রায়ের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষ আবেদন করলে ২০১৬ সালের ৪ জুন আপিল বিভাগের চেম্বার বিচারপতির আদালত হাইকোর্টের রায় স্থগিত করেন এবং রাষ্ট্রপক্ষের করা আবেদনটি আপিল বিভাগের নিয়মিত বেঞ্চে শুনানির জন্য পাঠিয়ে দেন। এই আবেদনের ওপর গতকাল শুনানি শেষে রাষ্ট্রপক্ষের আবেদন খারিজ করে দেন আপিল বিভাগ।

২০১৩ সালের ১৫ জুন রাজশাহী সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপি নেতা মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল মেয়র নির্বাচিত হন। শপথ নেওয়ার পর ১৪ মাস দায়িত্বে ছিলেন তিনি। সরকারবিরোধী আন্দোলনে পুলিশ হত্যা, বিস্ফোরক ও নাশকতার অন্তত ১৯টি মামলা রয়েছে তাঁর বিরুদ্ধে। তবে এসব মামলায় তিনি জামিনে রয়েছেন। বর্তমানে বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির বন ও পরিবেশবিষয়ক সম্পাদক ছাড়াও রাজশাহী নগর বিএনপির সভাপতি তিনি।


মন্তব্য