kalerkantho


কেন্দ্রীয় নেতার সামনে সীমা ও বাহার পক্ষের তুমুল বাগ্‌বিতণ্ডা

নিজস্ব প্রতিবেদক, কুমিল্লা   

২ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



কেন্দ্রীয় নেতার সামনে সীমা ও বাহার পক্ষের তুমুল বাগ্‌বিতণ্ডা

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এ কে এম এনামুল হক শামীমের সামনেই কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে দলের মেয়র পদপ্রার্থীর সঙ্গে স্থানীয় সংসদ সদস্যের সমর্থকদের তুমুল বাগিবতণ্ডা হয়েছে। গতকাল বুধবার বিকেলে শামীমের নেতৃত্বে তিন সদস্যের কেন্দ্রীয় প্রতিনিধিদল কুমিল্লায় যায়।

এর আগে সোমবার রাতে আওয়ামী লীগের মেয়র পদপ্রার্থী আনজুম সুলতানা সীমা সাংবাদিকদের বলেছেন, দলের স্থানীয় সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার তাঁকে সহযোগিতা করতে অপারগতা প্রকাশ করেছেন। এ পরিপ্রেক্ষিতে সংসদ সদস্য বলেছেন, তিনি দোয়া ও সমর্থন ছাড়া আর কিছুই দিতে পারবেন না।

গতকাল দুই পক্ষের মধ্যে বাগিবতণ্ডার পর আওয়ামী লীগের চট্টগ্রাম বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামীম কঠোর হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, নৌকার সঙ্গে কেউ বিশ্বাসঘাতকতা করলে, নৌকার প্রশ্নে যদি কেউ নেত্রীর সিদ্ধান্ত মেনে না নেয়, তাহলে তার আওয়ামী লীগ করার সুযোগ নেই। সেই সঙ্গে তিনি এও বলেন, যাঁরা কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আনজুম সুলতানা সীমার পক্ষে ভূমিকা রাখবেন, তাঁকে বা তাঁদের মহানগর আওয়ামী লীগের যে কমিটি হতে যাচ্ছে তাতে পুরস্কৃত করা হবে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ পদপ্রার্থীর পক্ষে দলের কর্মপরিকল্পনা নির্ধারণ করতে এবং বিবদমান পক্ষগুলোর সঙ্গে আলোচনার জন্য প্রতিনিধিদলটি এখানে এসেছে। এ দলের অন্য দুই সদস্য হলেন দলের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার আবদুস সবুর ও সহসম্পাদক সাইফ উদ্দিন নাছিম।

কুমিল্লায় এসেই প্রতিনিধিদলটি আওয়ামী লীগের জেলা কার্যালয়ে যায়। সেখানে দলের মেয়র পদপ্রার্থী আনজুম সুলতানা সীমা ও মনোনয়নপ্রত্যাশী কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজের সাবেক সহসভাপতি নূর উর রহমান মাহমুদ তানিম বক্তব্য দেন।

এ সময় অন্য মনোনয়নপ্রত্যাশী কুমিল্লা জেলা পরিষদের সাবেক প্রশাসক মো. ওমর ফারুক উপস্থিত ছিলেন। এ সময় নূর উর রহমান মাহমুদ তানিমের বিপুলসংখ্যক কর্মী-সমর্থক স্লোগান দেয় এবং শহরে শোডাউন করে।

পরে প্রতিনিধিদলটি বিশ্রাম নিতে নগরীর কান্দিরপাড়ে কুমিল্লা ক্লাবে যায়। সেখানে যান সীমা, তাঁর ছোট ভাই নোমান খান, কুমিল্লা সদর আসনের সংসদ সদস্য বাহাউদ্দিন বাহারের সমর্থক নেতা জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল মাহমুদ শহীদ। প্রতিনিধিদলের সামনেই তাঁরা বিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন। এ সময় মাহমুদ শহীদ বলেন, গত সংসদ নির্বাচনে বাহার ভাইকে নেত্রী মনোনয়ন দিলেন, সীমার ভাই ইমরান খান কেন বিদ্রোহী প্রার্থী হলেন, কারণটা কী? এর জবাবে মেয়র পদপ্রার্থী সীমা বলেন, ‘নেত্রী মেয়র প্রার্থী হিসেবে আমাকে মনোনয়ন দিয়েছেন, তাহলে চাচা (এমপি বাহার) কেন আমার বিরুদ্ধে? চাচা আমাকে নিজে বলেছেন। ’

এ সময় সেখানে সংবাদকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। দুই পক্ষকে নিবৃত্ত করেন এনামুল হক শামীম। তিনি দুই পক্ষের উদ্দেশে বলেন, ‘আমাদের সব কিছু জানা আছে। কার কী ভূমিকা, কে কী করছে সবই জানি। আপনাদের সবাইকে আমাদের চেনা আছে। আমরা আমাদের অনেককে বাঘ-সিংহ মনে করি। আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় না থাকলে, শেখ হাসিনা ক্ষমতায় না থাকলে সব ইঁদুর। শেখ হাসিনার প্রার্থী জেতাতে হবে, এটা বড় কথা। ’

শামীম সবাইকে সতর্ক করে দিয়ে বলেন, ‘ওমুক-তমুক বলে লাভ নেই। নারায়ণগঞ্জে দেখছেন না, সেখানে নৌকার বাইরে কেউ গেছে, দেখছেন। একজন কর্মীও যাবে না। আমরা কি ঘোড়ার ঘাস কাটব? এক মাস এখানে থাকব। কেন্দ্রীয় সব নেতারা আসবেন। একজন কর্মীও বাইরে যাবে না। বাহার ভাই তো বাইরে যাওয়ার প্রশ্নই আসে না। ’

মেয়র পদপ্রার্থীর উদ্দেশে শামীম বলেন, ‘কে পক্ষে আছে, কে বাইরে আছে তা নিয়ে কোনো কথা বলবেন না। বলবেন, সবাই নৌকার পক্ষে আছে। ’

এরপর আওয়ামী লীগের অন্যতম কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক শামীম মোবাইল ফোনে কুমিল্লা সদর আসনের সংসদ সদস্য বাহাউদ্দিন বাহারের সঙ্গে কথা বলেন। তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আপনাকে খুঁজছেন। আমি বলেছি, সদর উপজেলা নির্বাচন নিয়ে ব্যস্ত। রাত ৮টায় আপনার সাথে বসব। ’

মনোনয়ন নিয়েছেন ২৪৪ জন, জমা দিলেন ৩২ জন : নগর সংস্থার নির্বাচনে মেয়র পদে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন ছয়জন। এ ছাড়া ২৭টি ওয়ার্ডের সাধারণ ও ৯টি সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে মনোনয়নপত্র নিয়েছেন ২৩৮ জন। এর মধ্যে সাধারণ কাউন্সিলর পদে ১৯৩ জন আর সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৪৫ জন।

গতকাল মেয়র পদে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন পিপলস ডেমোক্রেটিক পার্টির (পিডিপি) মনোনীত প্রার্থী সোয়েবুর রহমান ও স্বতন্ত্র মেজর (অব.) মামুনুর রশিদ। এর আগে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী সীমা, বিএনপি মনোনীত প্রার্থী মনিরুল হক সাক্কু, জাসদ মনোনীত প্রার্থী শিরিন আক্তার ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সদস্য পরিচয় দেওয়া মোহাম্মদ শাহজাহান।

এদিকে গতকাল পর্যন্ত মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন ৩২ জন। এর মধ্যে সাধারণ কাউন্সিলর পদে ২৮ জন ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে চারজন।


মন্তব্য