kalerkantho


উপবৃত্তির টাকা যাবে মায়েদের মোবাইল ফোনে

আজ উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০



আর লাইনে দাঁড়িয়ে হাতে হাতে নগদ টাকা পাওয়ার অপেক্ষা নয়। এর পরিবর্তে রূপালী ব্যাংক ও শিওরক্যাশ সেবার মাধ্যমে নিজেদের মোবাইল ফোনে উপবৃত্তির টাকা পাবেন প্রাথমিক পর্যায়ে এক কোটি শিক্ষার্থীর মায়েরা। আজ বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ সেবার উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রূপালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আতাউর রহমান প্রধান ও শিওরক্যাশের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ড. শাহাদাত খান গতকাল মঙ্গলবার কালের কণ্ঠকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

শিওরক্যাশের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ড. শাহাদাত খান জানান, প্রধানমন্ত্রী তাঁর সরকারি বাসভবন গণভবনে বসে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আজ এই সেবার উদ্বোধন করবেন। সেখানে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়, রূপালী ব্যাংক, শিওরক্যাশ, টেলিটকসহ সংশ্লিষ্ট সব পক্ষের প্রতিনিধিরা উপস্থিত থাকবেন। টুঙ্গিপাড়া, পীরগঞ্জ ও পার্বতীপুর উপজেলার বিভিন্ন বিদ্যালয়কে এ ভিডিও কনফারেন্সে সংযুক্ত করা হবে।

জানা গেছে, উপবৃত্তির টাকা বিতরণের জন্য গত জুন মাসে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে একটি চুক্তি করে রূপালী ব্যাংক ও শিওরক্যাশ। এ চুক্তির আওতায় মোবাইল ব্যাংকিং অ্যাকাউন্ট খুলে পর্যায়ক্রমে সারা দেশের প্রায় ৬০ হাজার বিদ্যালয়ের এক কোটি শিক্ষার্থীর উপবৃত্তির টাকা মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে বিতরণের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ভর্তিতে উৎসাহ জোগানো এবং শিক্ষার্থীদের ধরে রাখার জন্য প্রাথমিক শিক্ষা উপবৃত্তি চালু করেছে সরকার। সারা দেশে প্রায় ৬০ হাজার প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এক কোটি ৩০ লাখ শিক্ষার্থী এ প্রকল্পের আওতায় উপবৃত্তি পাচ্ছে।

সাধারণত তিন মাস পর পর শিক্ষার্থীদের মায়েদের হাতে এ উপবৃত্তির টাকা তুলে দেওয়া হয়। বর্তমানে বছরে এক হাজার ৪০০ কোটি টাকা প্রাথমিক শিক্ষা উপবৃত্তি দিচ্ছে সরকার।

আগে এই উপবৃত্তির টাকা তুলতে শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের উপবৃত্তি বিতরণকেন্দ্রে যেতে হতো। এ জন্য কয়েক ঘণ্টা সময় লাগত। ব্যাংক কর্মকর্তাদের ঝুঁকি নিয়ে নগদ টাকা বহন করে প্রত্যন্ত গ্রামে যেতে হতো। অনেক সময় এ টাকা বিতরণের ক্ষেত্রে নানা ধরনের ত্রুটি-বিচ্যুতি এবং অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া যেত।

সে কারণে এই উপবৃত্তি কার্যক্রম আরো দক্ষ এবং স্বচ্ছ করতে সারা দেশের বিদ্যালয়গুলোর সহায়তায় প্রায় এক কোটি শিক্ষার্থীর মায়েদের মোবাইল ব্যাংকিং অ্যাকাউন্ট খোলা হয়েছে। এই অ্যাকাউন্টে সরকার ডিজিটাল পদ্ধতিতে সরাসরি উপবৃত্তির টাকা পাঠিয়ে দেবে। ফলে মায়েরা ঘরে বসেই উপবৃত্তির টাকা পেয়ে যাবেন। মোবাইল ব্যাংকিংয়ের এজেন্টের কাছে গিয়ে এ টাকা তুলে প্রয়োজন অনুযায়ী খরচ করতে পারবেন। সঞ্চয় করতে পারবেন। ছেলেমেয়েদের পড়ালেখার মান বাড়াতে খরচ করতে পারবেন।

রূপালী ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. আতাউর রহমান প্রধান বলেন, ‘একটি বোতাম চেপে এক কোটি মায়ের ব্যাংক হিসাবে উপবৃত্তির টাকা পৌঁছাবে, এটা দেশের জন্য একটি বিরাট সাফল্য। সরকারের এ কাজে সম্পৃক্ত থাকতে পেরে রূপালী ব্যাংক গর্বিত। আমরা এখানেই থেমে থাকতে চাই না, সরকারের অন্য যেসব সেবামূলক কার্যক্রম আছে সেসবের সঙ্গেও সম্পৃক্ত থাকতে চাই। আমাদের সেই সক্ষমতাও আছে। আমরা এখন কৃষকদের ছোট ছোট ঋণ মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে বিতরণ করছি। ’


মন্তব্য