kalerkantho


পাইকারি বিদ্যুতের দাম ১৫% বাড়ানোর প্রস্তাব

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



পাইকারি বিদ্যুতের দাম ১৫% বাড়ানোর প্রস্তাব

সব ধরনের গাসের দাম বাড়ানোর পর এবার বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর প্রক্রিয়াও শুরু হয়েছে। বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড (পিডিবি) পাইকারি (বাল্ক) বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর একটি প্রস্তাব সম্প্রতি বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের (বিইআরসি) কাছে পাঠিয়েছে। এতে প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের দাম ৭২ পয়সা বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে, যা শতাংশে প্রায় ১৫ ভাগ। বর্তমানে প্রতি ইউনিট বিদ্যুতের দাম চার টাকা ৮৭ পয়সা, তা বাড়িয়ে পাঁচ টাকা ৫৯ পয়সা নির্ধারণের আবেদন করা হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে বিইআরসি সদস্য মিজানুর রহমান গতকাল রবিবার কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘পিডিবির পক্ষ থেকে পাইকারি বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর একটি প্রস্তাব আমরা পেয়েছি। এটি প্রাথমিক প্রস্তাব। এখন বিইআরসি পিডিবির আবেদনটি যাচাই-বাছাই করবে। যদি প্রয়োজন হয় তাহলে পিডিবির কাছে সম্পূরক তথ্য চাওয়া হবে। এরপর আবেদনটি কমিশন বৈঠকে উপস্থাপন করা হবে। পরে শুনানি করে দাম বৃদ্ধির প্রক্রিয়া শুরু হবে। ’

গত বৃহস্পতিবার সব ধরনের গ্যাসের দাম বাড়ানোর ঘোষণা দেয় সরকার।

বর্তমানের চেয়ে গড়ে গ্যাসের দাম বাড়ানো হয়েছে ২২.৭ শতাংশ। পরদিন শুক্রবার রাজধানীতে এক অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেছিলেন, বিদ্যুতের দামও বাড়ানো হবে। এরই মধ্যে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে বিইআরসির কাছে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে।

পিডিবির পাইকারি বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হলে খুচরা পর্যায়ে সব ধরনের বিদ্যুতের দামও বাড়বে। এ জন্য বিদ্যুৎ বিতরণ সংস্থাগুলোকে বিইআরসিতে আলাদা করে দাম বাড়ানোর প্রস্তাব দিতে হবে। পল্লী বিদ্যুৎ, ঢাকা ইলেকট্রিক সাপ্লাই কম্পানি, ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কম্পানিসহ দেশের বিদ্যুৎ বিতরণ সংস্থাগুলো পাইকারি বিদ্যুৎ পিডিবির কাছ থেকে কিনে গ্রাহক পর্যায়ে সরবরাহ করে থাকে। যদি পিডিবির পাইকারি বিদ্যুতের দাম বাড়ে, তাহলে বিতরণ সংস্থাগুলোও আবাসিক, বাণিজ্যিকসহ সব ধরনের খুচরা পর্যায়ে বিদ্যুতের দাম বাড়াবে। বিতরণ সংস্থার সূত্রে জানা গেছে, বিতরণ কম্পানিগুলো খুব শিগগির বিইআরসির কাছে খুচরা বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর পৃথক প্রস্তাব নিয়ে যাবে। শেষবার পিডিবির বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হয়েছিল ২০১৫ সালের সেপ্টেম্বরে।

এর আগে বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর কারণ হিসেবে বলা হয়েছিল, আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির কারণে দেশের বাজারে বিদ্যুতের দাম বাড়ানো হচ্ছে। গত দুই বছরে আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের দাম গড়ে ৭০ শতাংশ কমেছে।


মন্তব্য