kalerkantho


সালিস বৈঠকে তর্ক, পিটিয়ে কৃষক হত্যা

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি   

২০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



সালিস বৈঠকে তর্ক, পিটিয়ে কৃষক হত্যা

সালিস বৈঠকে তর্কের জেরে নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজারে আবদুল বাতেন (৩৫) নামের এক কৃষককে পিটিয়ে হত্যা করেছে প্রতিপক্ষ। জমিসংক্রান্ত বিরোধে গতকাল রবিবার দুপুরে ব্রাহ্মন্দী ইউনিয়নের সুলপান্দি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ অভিযুক্ত দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে।

আড়াইহাজার থানার ওসি সাখাওয়াত হোসেন জানান, খবর পেয়ে পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। অভিযুক্ত জামালউদ্দিন (৫১) ও ইউনুছকে (৩৩) গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য লাশ মর্গে পাঠানো হয়েছে।

স্ত্রী বিলকিস বেগম বলেন, ‘আমার স্বামী চাষবাস করে সংসার চালাতেন। কী অপরাধে তাঁকে মেরে ফেলা হলো? দুই মেয়েকে এখন কে দেখবে?’

ভাই জুলহাস বলেন, গ্রাম্য বিচারে পূর্বপরিকল্পিতভাবেই ভাইকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। বেশ কিছুদিন ধরেই প্রতিবেশী জামাল ও তার ভাইয়েরা জুলুম-হয়রানি করে আসছিল।

স্থানীয়রা জানায়, পেশায় কৃষক আবদুল বাতেন দুই কন্যাসন্তানের জনক। বাড়ির সীমানা নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরে বিরোধ চলছিল স্থানীয় আব্দুল আজিজের ছেলে জামালউদ্দিন, ইউনুছ ও আলমগীরের সঙ্গে।

বেশ কয়েকবার সালিস বৈঠক হলেও বিরোধ মীমাংসা হয়নি। সর্বশেষ উদ্যোগী হন ব্রাহ্মন্দী ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার খোকন। তাঁর আহ্বানে গতকাল দুপুরে স্থানীয় ইব্রাহিমের বাড়িতে উভয় পক্ষ উপস্থিত হয়। সালিস বৈঠক চলাকালে দুই পক্ষের তর্কবিতর্ক হয়। একপর্যায়ে জামালউদ্দিনের পক্ষে মহিবুর রহমানসহ বেশ কয়েকজন লাঠি দিয়ে বাতেনের মাথায় আঘাত করে। এতে তাঁর নাক ও কান দিয়ে রক্তক্ষরণ হয়। উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক সানজিদা আক্তার তাঁকে মৃত ঘোষণা করেন।

ডা. সানজিদা জানান, হাসপাতালে আনার আগেই বাতেনের মৃত্যু হয়েছে। আঘাতে মাথা না ফাটলেও থেঁতলে গিয়ে ভেতরে রক্তক্ষরণ হয়েছে।

ব্রাহ্মন্দী ইউনিয়নের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার খোকন মিয়া বলেন, ‘তর্কবিতর্কের সময় প্রতিপক্ষের লোকজন বাতেনের মাথায় লাঠি দিয়ে আঘাত করেছে। এতে ঘটনাস্থলেই তার মৃত্যু হয়। বিষয়টি পুলিশকে সঙ্গে সঙ্গে জানানো হয়েছে। ’


মন্তব্য