kalerkantho


আবার হাসপাতালে ভর্তি

শুভ জন্মদিনে আনিসুজ্জামানের আরোগ্য কামনা

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



শুভ জন্মদিনে আনিসুজ্জামানের আরোগ্য কামনা

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে চিকিৎসাধীন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইমেরিটাস অধ্যাপক আনিসুজ্জামানকে গতকাল দেখতে যান শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। ছবি : পিআইডি

পিঠে ব্যথার উন্নতি না হওয়ায় আবারও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে অধ্যাপক আনিসুজ্জামানকে। গতকাল শনিবার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) ইন্টারনাল মেডিসিন বিভাগে অধ্যাপক আতিকুল হকের অধীনে ভর্তি করা হয়েছে তাঁকে। গতকালই ছিল দেশবরেণ্য এ অধ্যাপকের ৮০তম জন্মবার্ষিকী। অসুস্থতার কারণে জন্মদিনের কোনো আয়োজন না থাকলেও ছাত্র, ভক্ত-অনুরাগী ও শুভানুধ্যায়ীরা বাসায় গিয়ে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানানোর পাশাপাশি তাঁর আরোগ্য কামনা করেন।

থাইল্যান্ডে চিকিৎসা নিয়ে ফেরার পাঁচ দিনের মাথায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের এই ইমেরিটাস অধ্যাপককে আবার হাসপাতালে ভর্তি হতে হলো। আনিসুজ্জামানের ছেলে আনন্দ জামান জানান, থাইল্যান্ডের চিকিৎসক বলেছিলেন, পিঠে ব্যথা সেরে যাবে। কিন্তু কোনো উন্নতি হয়নি। গতকাল সকালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে নেওয়া হলে চিকিৎসকরা তাঁকে ভর্তি হওয়ার পরামর্শ দেন। কিন্তু গতকাল জন্মদিন হওয়ায় বাবাকে কয়েক ঘণ্টার জন্য হাসপাতাল থেকে বাড়িতে নিয়ে আসা হয়। বাসায় তিনি সন্ধ্যা পর্যন্ত ছিলেন।

গতকাল বিএসএমএমইউয়ের বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, চিকিৎসার জন্য গঠিত মেডিক্যাল বোর্ড স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামানকে রিউমাটোলজি মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক ডা. সৈয়দ আতিকুল হকের অধীনে ভর্তি করা হয়েছে।

তিনি বিএসএমএমইউয়ের ৫১১ নম্বর কেবিনে ভর্তি আছেন। তাঁর শারীরে ব্যথা ও শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যা রয়েছে।

অধ্যাপক আনিসুজ্জামানকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার খবর পেয়ে তাঁকে দেখতে গিয়েছিলেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। গতকাল অধ্যাপক আনিসুজ্জামানের স্বাস্থ্য পরীক্ষার সময় বিএসএমএমইউ উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান উপস্থিত ছিলেন। স্বাস্থ্য পরীক্ষার পর জন্মদিন উপলক্ষে উপাচার্য তাঁকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান।

ঠাণ্ডাজনিত অসুস্থতার সঙ্গে মেরুদণ্ডে তীব্র ব্যথা অনুভবের পর এ মাসের প্রথম সপ্তাহে থাইল্যান্ড নেওয়া হয়েছিল অধ্যাপক আনিসুজ্জামানকে। চিকিৎসা নিয়ে গত ১৩ ফেব্রুয়ারি দেশে ফেরেন তিনি।


মন্তব্য