kalerkantho


সেমিনারে বক্তারা

ভূমিকম্পের ক্ষতি থেকে রক্ষায় জনসচেতনতা বাড়াতে হবে

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



ভূমিকম্পের ক্ষতি থেকে রক্ষায় জনসচেতনতা বাড়াতে হবে

ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরায় গতকাল ভূমিকম্পবিষয়ক এক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। সেমিনারে বক্তব্য দেন জাপানের একজন ভূমিকম্প বিশেষজ্ঞ। ছবি : কালের কণ্ঠ

ভূমিকম্পের ক্ষতি থেকে রক্ষা পেতে সারা দেশে জনসচেতনতা বাড়াতে হবে। একই সঙ্গে বসবাসকারী ভবন ভূমিকম্প সুরক্ষিত কি না, সে বিষয়ে নিশ্চিত হতে হবে।

জাপান বাংলাদেশ অংশীদারি রিয়েল এস্টেট কম্পানির সহযোগিতায় ভূমিকম্পবিষয়ক এক সেমিনারে এসব কথা বলেন বিশেষজ্ঞরা।

গতকাল শনিবার রাজধানীর ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরার এক নম্বর হলে আয়োজিত ভূমিকম্পের ওপর এক সেমিনারে এসব কথা বলেন বক্তারা। জনসচেতনতাবিষয়ক এই সেমিনারে বক্তব্য দেন জাপানের ভূমিকম্প বিশেষজ্ঞ নোরিহিড ইমাগোয়া ও ইঞ্জিনিয়ার সিহারি সুগি। এ ছাড়া উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ হাউজ বিল্ডিং ফাইন্যান্স করপোরশেনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক দেবাশীষ চক্রবর্তী, বাংলাদেশ ব্যাংকের পরিচালক আফতাব-উল আলম, বেঙ্গল গ্রুপের চেয়ারম্যান জসিম উদ্দিন, এসএসআরএমের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মি. মামুন। সেমিনারে অংশ নেন দেশের শতাধিক সিভিল প্রকৌশলী।

জাপানের ভূমিকম্প বিশেষজ্ঞ নোরিহিড ইমাগোয়া ভূমিকম্পের ওপর তাঁর সর্বশেষ গবেষণা উপস্থাপন করেন। নির্মাণাধীন ভবনে কী ধরনের প্রযুক্তি ব্যবহারে তা ভূমিকম্প সুরক্ষিত হবে, সে বিষয় তুলে ধরেন। তাঁর উপস্থাপনায় ভূমিকম্প সুরক্ষিত ভবন নির্মাণের নানা প্রযুক্তির ব্যবহার তুলে ধরেন। সেমিনারটির আয়োজন করা হয় জেমস গ্রুপ, জাপাস্টি কম্পানি লি., ক্রিয়েটিভ ও জেটিসিসিসিএএলের সমন্বয়ে।

ভেন্যু পার্টনার হিসেবে ছিল ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সিটি বসুন্ধরা। সেমিনারে আরো অংশ নেন জেমস গ্রুপের ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর অভিনেতা ফেরদৌস, বিদ্যা সিনহা মিম ও রোকেয়া প্রাচী।

বক্তরা বলেন, ভূমিকম্প মোকাবিলার ক্ষেত্রে প্রথম পদক্ষেপ হলো সচেতনতা। সবাইকে ভূমিকম্প বিষয়ে বিস্তারিত জানাতে হবে। অতঃপর পারস্পরিক সহযোগিতা ও সমন্বয়ের মাধ্যমে এটি মোকাবিলা করতে হবে। এই সহযোগিতা ও সমন্বয় না থাকলে বাংলাদেশের মতো জনবহুল দেশে ভূমিকম্প মোকাবিলা করা কঠিন হয়ে পড়বে। ভূমিকম্পের হুমকি মাথায় রেখে অবকাঠামো নির্মাণের পরামর্শও দেন বক্তারা।


মন্তব্য