kalerkantho


বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ

সেলিনা হোসেন

১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ

‘বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ’ গ্রন্থটি বিভিন্ন সময়ে প্রকাশিত প্রবন্ধের সংকলন। প্রবন্ধগুলো প্রায় ২০ বছরের বেশি সময় ধরে লিখেছি। কখনো গৌরবের আবেগে, কখনো চোখের জলে। কখনো দীপ্ত চেতনায়। কখনো বেদনার দহনে। তাই বই করার কথা ভাবতে সময় লেগেছে। বঙ্গবন্ধু এখানে উঠে এসেছেন বহুমাত্রিক ভাবনায়। একজন রাজনীতিবিদদের মৃত্তিকাসংলগ্ন ভাবনা কতটা গভীর ও দেশ-মনুষ সজ্ঞাত হয় তাই ধরার চেষ্টা করেছেন লেখক। বঙ্গবন্ধুর বিষয়ে ভাববার কিছু নেই। ‘মুজিবের মৃত্যু কি সহজ কথা’ এটি অন্নদাশঙ্কর রায়ের একটি সাক্ষাত্কার। এ ছাড়া ‘সংস্কৃতির কবি ও রাজনীতির কবি’ এখানে রবীন্দ্রনাথ, নজরুল ইসলাম তাঁরা আমাদের সংস্কৃতির কবি এবং বঙ্গবন্ধু আমাদের রাজনীতির কবি।

আমি এ বইকে দাঁড় করিয়েছি এভাবে যে তিনি আমাদের সাংস্কৃতিক জীবনে, লেখক জীবনে লেখকদের সঙ্গে, শিল্পীদের সঙ্গে মিশে তাঁদের যেভাবে দেখেছেন সেই বিষয়গুলো এই বইয়ে ছোট ছোট প্রবন্ধ আকারে লেখা। ‘আমিই শেখ মুজিব’ প্রবন্ধ থেকে আমি উদ্ধৃত করতে পারি

—যেখানেই তাঁর ছায়া

সেখানেই তিনি বিশাল গাছ

যেখানেই তাঁর হাসি

সেখানেই তিনি তেরোশত নদী

সেখানেই তাঁর দৃষ্টি

সেখানেই পাহাড়ের উচ্চতায় সূর্যের আলো ...

হাজার বছর ধরে তাঁর নামের জয়ধ্বনির সঙ্গে

তরুণ প্রজন্মের কণ্ঠে উচ্চারিত হবে,

আমিই শেখ মুজিব।

 

এই বিষয়গুলো ছাড়াও ‘প্রশ্নটির উত্তর দিতে পারিনি’ প্রবন্ধে বিদেশের একজন টেক্সি ড্রাইভার আমি তখন সানফ্রান্সিসকোতে

সেই ড্রাইভার আমাকে বলল—আমি তোমাদের মুক্তিযুুদ্ধে অবদান রেখেছি। তখন ২০০০ সাল স্বাধীনতার কত বছর পরে। সে বলল, আমি ট্যাক্সি চালাতাম নিউ ইয়র্কে, তখন ১৯৭১ সালে আমি টিকিট কেটে জর্জ হ্যারিসন এবং রবিশঙ্করের কনসার্টে ঢুকেছিলাম। এসব বলে আমি যখন নামলাম তখন সে আমাকে ঘাড় ঘুরিয়ে বলল, তোমরা কিভাবে শেখ মুজিবকে হত্যা করলে? এই প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার উপায় আমার ছিল না।

শেখ মুজিব এই দেশকে যেভাবে ভালোবেসেছেন, দেশকে গড়তে চেয়েছেন আমরাও তাঁর ধারণাকে নিয়ে বড় হতে চাই। আমি যে রাজনীতি করি না কেন সেটা ভিন্ন কথা একজন মহামানব আমার সামনে থাকা উচিত যে আমার আদর্শগত দিকটাকে, চিন্তার জায়গাটাকে বড় করে দেখবে।

বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ ইতিহাসের প্রেক্ষাপটে সমান্তরাল। তাঁকে বাদ দিয়ে বাংলাদেশের নাম উচ্চারিত হবে না। অন্যদিকে তিনি বাঙালির আত্মদর্শনের সামাজিক-সাংস্কৃতিক প্রতিভাস। এমন নিগূঢ় চেতনায় বাঙালির মৌল অনুভব অন্য কোনো রাজনৈতিক নেতার মধ্যে পাওয়া যায়নি। সামগ্রিক সত্যে তিনি আমাদের শেকড়ের মানুষ।

এই গ্রন্থের বিভিন্ন লেখায় বঙ্গবন্ধুর দেশ-জাতি ভাবনার বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরার চেষ্টা করেছি। পাঠকের গ্রহণ করার প্রত্যাশা সবচেয়ে বড় দিক। গ্রন্থটি প্রকাশ করেছে মাওলা ব্রাদার্স।


মন্তব্য