kalerkantho


ইসি দায়িত্ব নিচ্ছে কাল

নিরপেক্ষতা দক্ষতার প্রথম পরীক্ষা ১৯ দিনের মধ্যেই

কাজী হাফিজ   

১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



নিরপেক্ষতা দক্ষতার প্রথম পরীক্ষা ১৯ দিনের মধ্যেই

কে এম নুরুল হুদার নেতৃত্বে নতুন নির্বাচন কমিশন (ইসি) আনুষ্ঠানিকভাবে দায়িত্ব গ্রহণ করছে আগামীকাল বুধবার। পরবর্তী ১৯ দিনের মধ্যে ইসিকে একটি পৌরসভা ও তিনটি উপজেলার সাধারণ নির্বাচনসহ মোট ১৮টি উপজেলা পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠানের ব্যবস্থা করতে হবে।

এ ছাড়া এই সময়ের মধ্যেই এসব স্থানীয় সরকার প্রতিষ্ঠানের কিছু উপনির্বাচনও করতে হবে। নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের কর্মকর্তাদের ধারণা, এই নির্বাচনগুলো নতুন ইসির নিরপেক্ষতা ও দক্ষতার প্রাথমিক পরীক্ষা হিসেবে বিবেচিত হতে পারে।

ইসি সচিব মুহাম্মদ আব্দুল্লাহ গতকাল সোমবার কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘বুধবার শপথগ্রহণের পর ওই দিনই দায়িত্ব গ্রহণ করতে যাচ্ছে নতুন কমিশন। এদিন বিকেল ৩টায় শপথগ্রহণের পর নির্বাচন কমিশন ভবনে নতুন কমিশনকে অভ্যর্থনা জানানোর জন্য কমিশন সচিবালয় প্রস্তুতি নিয়েছে। ইতিমধ্যে নতুন কমিশনারদের সঙ্গে আমাদের যোগাযোগ হয়েছে।   বুধবার নির্বাচন ভবনে আসার পর তাঁরা  বিকেল ৫টায় সংবাদ সম্মেলন করবেন। ’

দেশে প্রথমবারের মতো দলীয় ভিত্তিতে তিনটি উপজেলা পরিষদে সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে আগামী ৬ মার্চ। কাজী রকিবউদ্দীন আহমদের নেতৃত্বে বিদায়ী নির্বাচন কমিশন গত ১ ফেব্রুয়ারি এ তিনটি উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করে। উপজেলাগুলো হচ্ছে সিলেটের ওসমানীনগর, খাগড়াছড়ির গুইমারা ও সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর।

কালের কণ্ঠ’র স্থানীয় প্রতিনিধিরা জানান, নতুন কমিশন কতটা নিরপেক্ষতা, সাহসিকতা ও দক্ষতার সঙ্গে এ নির্বাচনে ভোটগ্রহণের ব্যবস্থা করতে পারে তা দেখার অপেক্ষায় এলাকাবাসী।

বিদায়ী ইসি রাঙামাটির বাঘাইছড়ি পৌরসভারও নির্বাচনী তফসিল ঘোষণা করে গেছে। ওই পৌরসভায় ভোটগ্রহণ হবে আগামী ১৮ ফেব্রুয়ারি। অর্থাৎ নতুন ইসির দায়িত্ব গ্রহণের তিন দিনের মাথায় হচ্ছে এই ভোট। এরপর রয়েছে গাইবান্ধা-১ (সুন্দরগঞ্জ) আসনের উপনির্বাচন। আগামী ২২ মার্চ এ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ হবে। এ ছাড়া আরো কিছু পৌরসভা ও রংপুর সিটি করপোরেশনের একটি ওয়ার্ডের উপনির্বাচন হবে। দ্রুত কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনের তফসিলও ঘোষণা করতে হবে নতুন কমিশনকে।  

ইসি সচিবালয়ের তথ্য অনুসারে, ৬ মার্চ যে ১৫টি উপজেলায় উপনির্বাচন হতে যাচ্ছে এর মধ্যে কুড়িগ্রাম সদর, বরিশালের বানারীপাড়া ও গৌরনদী, ঝালকাঠির কাঁঠালিয়া, পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী, কুমিল্লার আদর্শ সদর, পাবনার সুজানগর ও কিশোরগঞ্জের হোসেনপুরে শুধু চেয়ারম্যান পদে ভোট হবে।   কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম, নাটোরের বড়াইগ্রাম, নীলফামারীর জলঢাকা, সাতক্ষীরার কলারোয়া ও বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে ভোট হবে ভাইস চেয়ারম্যান পদে। আর  পাবনার ঈশ্বরদী ও কুমিল্লা সদর দক্ষিণে নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে ভোট হবে।

ইসি সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানান, দেশের সাড়ে চার হাজারের বেশি ইউনিয়ন পরিষদের মধ্যে প্রায় তিন শর নির্বাচন বাকি ছিল মেয়াদ উত্তীর্ণ না হওয়া ও আইনি জটিলতার কারণে। এর মধ্যে প্রায় ১০০ ইউপিতে নির্বাচন ও উপনির্বাচনে বর্তমানে কোনো বাধা নেই। বেশ কিছু উপজেলায়ও উপনির্বাচন প্রাপ্য হয়ে আছে। এ বিষয়ে একটি প্রস্তাব বিদায়ী ইসিতে পাঠানো হলেও তা অনুমোদন পায়নি।

কাজী রকিবের কমিশন জেলা পরিষদ নির্বাচনের কিছু কাজও অসমাপ্ত রেখে যাচ্ছে। পার্বত্য তিন জেলা বাদে ৬১টি জেলা পরিষদে গত ২৮ ডিসেম্বর নির্বাচন হলেও ১৯টি পরিষদে ৫০টি পদের নির্বাচন এখনো বাকি। এসবের অনেকগুলোতে যেসব প্রার্থীর মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছিল তাঁদের প্রার্থিতা ফিরিয়ে দিতে হাইকোর্ট আদেশ দেন। কিন্তু হাইকোর্টের আদেশ বাস্তবায়ন না করে এসব পদের ভোট স্থগিত করে ইসি। পরে হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত চেয়ে আবেদন করা হয়। ৮ জানুয়ারি এসব আবেদনের শুনানি শেষে আপিল বিভাগের চেম্বার জজ আদালত বিষয়টি হাইকোর্টেই নিষ্পত্তির নির্দেশ দেন। এসব আবেদনের নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত এই পদগুলো শূন্যই থাকছে। এ ছাড়া হাইকোর্টের মোট ৪২টি আদেশের বিরুদ্ধে আবেদনের জন্য কমিশন সিদ্ধান্ত নিলেও ভোট বন্ধের আগে ২৪টির বিষয়ে আবেদন করা সম্ভব হয়। এ অবস্থায় যেসব আদেশের বিরুদ্ধে যথাসময়ে আবেদন করা হয়নি সেগুলোতে ভোট বন্ধ করে দেওয়ায় আদালতের নির্দেশ মানা হয়েছে কি না তা নিয়েও প্রশ্ন রয়েছে।

জানা যায়, জটিলতা বাড়ার যুক্তি তুলে ধরে এ ধরনের আইনি লড়াই চালিয়ে যাওয়ার বিপক্ষে ছিলেন একজন কমিশনার। কিন্তু অন্য কমিশনাররা তা মানতে রাজি হননি। এ বিষয়ে ইসি সচিবালয়ের এক কর্মকর্তার মন্তব্য, বর্তমান কমিশন সৃষ্ট এ জটিলতাও নতুন কমিশনের ঘাড়ে চাপবে।

উপজেলা সার্ভার স্টেশনগুলোর সঙ্গে ফাইবার অপটিকের মাধ্যমে ইসির নিজস্ব ইন্টারনেট নেটওয়ার্ক বা ভার্চুয়াল প্রাইভেট নেটওয়ার্ক (ভিপিএন) স্থাপনের কাজ হবে-হচ্ছে করে পার হয়ে গেছে ছয়টি বছর। এ কাজের টেন্ডার নিয়েও চলেছে নানা টালবাহানা। নতুন কমিশনকেই এ সমস্যার সমাধান করতে হবে।


মন্তব্য