kalerkantho


প্রশ্ন ফাঁস প্রসঙ্গে শিক্ষামন্ত্রী

প্রমাণ মিললে এসএসসির গণিত পরীক্ষা বাতিল

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



প্রমাণ মিললে এসএসসির গণিত পরীক্ষা বাতিল

শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন, ‘প্রশ্ন ফাঁসের প্রমাণ মিললে চলতি এসএসসির গণিত পরীক্ষা বাতিল করা হবে। এর আগে যে অভিযোগ উঠেছে, তা তদন্ত করা হবে।

তদন্তে অভিযোগের প্রমাণ পাওয়া গেলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। ’ গতকাল সোমবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী এসব কথা বলেন।

গত রবিবার অনুষ্ঠিত হয় এসএসসির গণিত পরীক্ষা। কিন্তু শনিবার রাত থেকে ফেসবুকসহ নানা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রশ্ন ছড়িয়ে পড়ে। যদিও এ প্রশ্নের সঙ্গে মূল প্রশ্নের মিল পাওয়া যায়নি। তবে রবিবার সকাল ১০টায় পরীক্ষা শুরু হওয়ার আধাঘণ্টা থেকে এক ঘণ্টা আগে শিক্ষার্থীরা যে প্রশ্ন পায় এর সঙ্গে মূল প্রশ্ন মিলে যাওয়ার অভিযোগ উঠেছে। শুধু গণিত পরীক্ষার প্রশ্নই নয়, এর আগে বাংলা দ্বিতীয় পত্র ও ইংরেজি প্রথম পত্রের পরীক্ষায়ও প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ ওঠে। গত কিছুদিনে রাজধানীর বিভিন্ন পরীক্ষাকেন্দ্রেও দেখা গেছে, যারা প্রশ্ন পেয়ে পরীক্ষা দিতে গেছে, তাদের পরীক্ষা শেষেও ছিল হাসিমুখ। পরীক্ষার্থীরা বলছে, যারা প্রশ্ন পেয়েছে তারাই বিষয়টি নিশ্চিত করেছে।

শিক্ষামন্ত্রী গতকাল সাংবাদিকদের বলেন, ‘প্রশ্ন ফাঁসের সম্ভাব্য বিভিন্ন উৎস আমরা বন্ধ করেছি। এর সফলতাও পেয়েছিলাম। গত দু-তিন বছর ধরে কোনো প্রশ্ন ফাঁস হয়নি।

কিন্তু এখন তীরে এসে তরি ডোবার মতো অবস্থা হয়েছে। সব দিক বন্ধ করে শিক্ষকদের হাতে প্রশ্ন তুলে দিয়েছি। এখন সেখান থেকে প্রশ্ন ফাঁসের অভিযোগ আসছে। আমরা এ ব্যাপারটি কোনোভাবেই বরদাশত করব না। দোষীদের ধরবই। পুলিশ ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী এ নিয়ে কাজ করছে। এরই মধ্যে বেশ কয়েকজনকে আটক করা হয়েছে। ’

নুরুল ইসলাম নাহিদ আরো বলেন, শিক্ষকদের মধ্যে এ রকম অসৎ ব্যক্তির সংখ্যা সীমিত। অসৎ শিক্ষকদের ধরিয়ে দিতে সব শিক্ষকের প্রতি আহ্বান জানান তিনি। অসৎ শিক্ষকদের কাছ থেকে অভিভাবকদের সতর্ক থাকার কথা বলেন তিনি।

গতকাল রাতে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো. মাহবুবুর রহমান কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘গত শনিবার রাতে যে প্রশ্ন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পাওয়া গিয়েছিল এর সঙ্গে মূল প্রশ্নের কোনো মিলই পাওয়া যায়নি। আর রবিবার সাড়ে ৯টায় যে প্রশ্ন পাওয়া গেছে এর কিছু মিলেছে বলে আমরাও শুনেছি। মন্ত্রণালয় আমাদের যেভাবে নির্দেশনা দেবে সেভাবেই আমরা পরবর্তী পদক্ষেপ নেব। ’


মন্তব্য