kalerkantho


গোলটেবিল বৈঠকে আলোচকরা

মাদকের কবল থেকে তারুণ্য রক্ষায় একযোগে কাজ করুন

নিজস্ব প্রতিবেদক   

১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



মাদকের কবল থেকে তারুণ্য রক্ষায় একযোগে কাজ করুন

ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপের কনফারেন্স রুমে গতকাল বাংলাদেশ প্রতিদিন আয়োজিত ‘মাদকের ভয়াবহ আগ্রাসন’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকে আমন্ত্রিত আলোচকরা। ছবি : কালের কণ্ঠ

মাদক ব্যবসায়ী, মাদক বহনকারী ও মাদকসেবী—সবাইকে আইনের আওতায় আনতে হবে। ইয়াবার মতো মাদক মানুষকে ধ্বংস করছে, সামাজিক ও পারিবারিক সম্পর্ককে নষ্ট করছে। মাদকের আগ্রাসন থেকে দেশ, সমাজ ও তারুণ্যকে রক্ষা করতে সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। এগিয়ে আসতে হবে আইন প্রয়োগকারী সংস্থাকে।

গতকাল শনিবার রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপের কনফারেন্স রুমে বাংলাদেশ প্রতিদিন আয়োজিত ‘মাদকের ভয়াবহ আগ্রাসন’ শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকে এ অভিমত ব্যক্ত করা হয়।

অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বাংলাদেশ প্রতিদিন সম্পাদক নঈম নিজাম। সকাল সোয়া ১০টা থেকে নিউজ টোয়েন্টিফোরে এটি সরাসরি সম্প্রচার করা হয়।

বৈঠকে আলোচনা করেন মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক খন্দকার রাকিবুর রহমান, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের সভাপতি ও মাদক নিয়ন্ত্রণ বোর্ডের সদস্য অধ্যাপক ডা. অরূপ রতন চৌধুরী, অভিনেতা ও চলচ্চিত্র নির্মাতা কাজী হায়াৎ, সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ড. মমতাজউদ্দিন আহমেদ মেহেদী, নিরাপত্তা বিশ্লেষক মেজর (অব.) জিল্লুর রহমান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. জিনাত হুদা, বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের পরিচালক (অপারেশন) লে. কর্নেল তৌহিদুল ইসলাম, র‌্যাব-৪-এর অধিনায়ক খন্দকার লুত্ফুল কবীর, জাতীয় মানসিক স্বাস্থ্য ইনস্টিটিউটের সহকারী অধ্যাপক ডা. ফারজানা রহমান দিনা, চলচ্চিত্র অভিনেতা মিশা সওদাগর ও জায়েদ খান, সংগীতশিল্পী হায়দার হোসেন এবং ইসলামী চিন্তাবিদ মাওলানা সেলিম হোসেন আজাদী।

আলোচকরা বলেন, মাদকের ভয়াবহতা সম্পর্কে মানুষের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টিতে গণমাধ্যমের ভূমিকা খুব গুরুত্বপূর্ণ। গণমাধ্যম এসংক্রান্ত বিভিন্ন কর্মসূচিতে এগিয়ে এলে মাদক নিয়ন্ত্রণের লড়াই আরো সহজ হবে। মাদকের বিস্তার রোধের লক্ষ্যে সামাজিক ও পারিবারিক ঐতিহ্য ফিরিয়ে আনার তাগিদ দেন তাঁরা।

বক্তারা বলেন, মাদক চোরাচালানের সঙ্গে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া উচিত। মাদকের ব্যবহার ও পাচার বন্ধে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সীমাবদ্ধতা, আইনের ফাঁকফোকর বন্ধের বিষয়ে কথা বলেন তাঁরা।

আলোচনার শুরুতে বাংলাদেশ প্রতিদিনের জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক মির্জা মেহেদী তমাল ও নিউজ টোয়েন্টিফোরের প্রতিবেদক আশিকুর রহমান শ্রাবণ কক্সবাজারের টেকনাফে এবং ঢাকায় মাদক চোরাচালান ও ব্যবহার বিষয়ে অভিজ্ঞতা-প্রসূত বক্তব্য পেশ করেন।


মন্তব্য