kalerkantho

জনজোয়ারে জমজমাট

নওশাদ জামিল   

১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



জনজোয়ারে জমজমাট

ছুটির দিনের বইমেলার চিত্রটি একটুও বদলায়নি। গতকাল শুক্রবার মানুষের ঢল নেমেছিল ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে, বাঙালির প্রাণের প্রাঙ্গণে।

সকালটা ছিল শিশু-কিশোর আর তাদের সঙ্গে থাকা অভিভাবকদের। সকাল ৯টায় খুলে যায় মেলার দোর। দুপুর ১টা পর্যন্ত ছিল শিশুপ্রহর। দুপুর থেকে পাল্টে যায় দৃশ্যপট। বিকেলে রীতিমতো জনজোয়ার। পথের যানজটের মতোই মেলার ভেতরে জনজট। তার পরও ধৈর্য ধরে মন্থর পায়ে এগিয়েছে গ্রন্থানুরাগীরা। আজ শনিবারও মেলার ফটক খুলবে সকালে। চলবে সকাল ১১টা থেকে রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত। আজও থাকবে শিশুপ্রহর। এ ছাড়া  সকালে অনুষ্ঠিত হবে শিশু-কিশোরদের সাধারণ জ্ঞান ও উপস্থিত বক্তৃতা প্রতিযোগিতা।

প্রকাশকরা জানান, এবারের মেলায় গতকালের উপস্থিতিই ছিল সর্বাধিক। বিক্রিবাট্টাও ছিল ভালো। বিক্রির সঠিক পরিসংখ্যান জানা না গেলেও অনেকের হাতে দেখা গেছে বইয়ের ব্যাগ।

প্রকাশিত হলো শাকিলের গল্পগ্রন্থ : মাহবুবুল হক শাকিল ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী। কিন্তু এ পরিচয় ছাপিয়ে কবি হিসেবেও খ্যাতি অর্জন করেছিলেন তিনি। গত ৬ ডিসেম্বর আকস্মিকভাবেই তিনি পাড়ি জমান অদেখা ভুবনে। মৃত্যুর আগে তিনি লিখেছিলেন ছয়টি গল্প। সেগুলো নিয়ে গতকাল প্রকাশিত হয়েছে গল্পগ্রন্থ ‘ফেরা না-ফেরার গল্প’। বিকেলে বাংলা একাডেমির কবি শামসুর রাহমান সেমিনার কক্ষে এর মোড়ক উন্মোচন করা হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান। শাকিলের গল্প নিয়ে কথা বলেন তিন খ্যাতিমান কথাশিল্পী সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম, ইমদাদুল হক মিলন ও মঈনুল আহসান সাবের। আরো বক্তব্য দেন শাকিলের পিতা ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট জহিরুল হক। স্বাগত বক্তব্য দেন বইটির প্রকাশক অন্যপ্রকাশের প্রধান নির্বাহী মাজহারুল ইসলাম।

শামসুজ্জামান খান বলেন, মাহবুবুল হক শাকিলের তিনটি কাব্যগ্রন্থ ও একটি গল্পগ্রন্থ নিয়ে চারটি বইয়ের একটি সংকলন প্রকাশ করবে বাংলা একাডেমি। শাকিলের বইগুলোর সংকলন প্রকাশে সব প্রকাশনীই এগিয়ে আসবে। তবে বাংলা একাডেমি যদি কাজটি করে তাহলে লেখক হিসেবে তাঁর একটা জাতীয় স্বীকৃতি আসবে। আগামী দুই থেকে তিন দিনের মধ্যে যদি সব বইয়ের সফট কপি পাওয়া যায়, তাহলে এ মেলায়ই বইটি প্রকাশ করা হবে।

সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম বলেন, ‘শাকিলের কবিতার বইয়ের ভূমিকা লিখতে গিয়ে বুঝলাম সে অনেক বড় মাপের লেখক। সে প্রচারের নয়, ছিল স্নেহের কাঙাল। যেকোনো মানুষকে সহজে আপন করে নেওয়ার অসম্ভব ক্ষমতা ছিল তার। বন্ধু ও গুরুজনদের কাছ থেকে নিজের সব দাবি আদায় করে নেওয়ার গুণ ছিল শাকিলের। ’

ইমদাদুল হক মিলন বলেন, ‘শাকিল তাঁর সৃষ্ট সাহিত্যকর্মের মাঝে আজীবন এ দেশের সাহিত্যাঙ্গনে অমর হয়ে থাকবেন। তাঁর মাঝে বিস্ময়কর প্রতিভা ছিল। বেঁচে থাকলে দেশের শীর্ষস্থানীয় পর্যায়ের সাহিত্যিক হতে পারতেন শাকিল। ’

মঈনুল আহসান সাবের বলেন, ‘গৌরবে, মেধা, মননে আর আন্তরিকতায় শাকিল এখনো আমাদের মাঝে বেঁচে আছেন। একজন কবি হয়েও গল্প নির্মাণের সব গুণই তাঁর ছিল। তাঁর প্রতিটি গল্পই মানসম্পন্ন। ’ তিনি মাহবুবুল হক শাকিলের নামে সাহিত্য পুরস্কার প্রবর্তন ও তাঁর বইয়ের সংকলন প্রকাশের প্রস্তাব রাখেন।

বইমেলায় আসা চারটি গুরুত্বপূর্ণ বইয়ের তথ্য-পরিচিতি সংঘাতময় বিশ্বরাজনীতি : মননশীল প্রবন্ধ-নিবন্ধের বই। লেখক আহমদ রফিক। তিনি সংগ্রামে, সৃজনে ও মননে এক অনন্য বাঙালি মনীষা। তাঁর সৃষ্টিজগৎ বিশাল ও বহুমাত্রিক। শিল্প-সাহিত্যের নানা কিছু নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে তিনি লিখেছেন প্রবন্ধ-গবেষণাসহ নানা কিছু। তাঁর এ বইটিতে উঠে এসেছে রাজনীতি, বিশ্বপরিস্থিতি নিয়ে বিশ্লেষণ। বইটি প্রকাশ করেছে অনিন্দ্যপ্রকাশ। প্রচ্ছদ করেছেন ধ্রুব এষ। দাম ৩৫০ টাকা।

একাত্তর ও অন্যান্য গল্প : গল্পগ্রন্থটির লেখক বিশিষ্ট কথাসাহিত্যিক সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম। কথাসাহিত্যে তিনি বিচিত্রমুখী, সর্বব্যাপী কৌতূহলী যেন; জীবনযাপন, জগৎ-সংসারের নানা বৈচিত্র্যময় বিষয় নিয়ে কালজয়ী অনেক গল্প লিখেছেন তিনি। তাঁর সংবেদী ও তাৎপর্যময় গল্পগুলো পেয়েছে বিপুল পাঠকপ্রিয়তা। সদ্য প্রকাশিত বইটিতেও তিনি শাণিত, মেদহীন ভাষায় তুলে ধরেছেন জীবনের বহুমাত্রিক আলোড়নের ছায়াচিত্র। শুধু যাপিত জীবন নয়, একাত্তরের ইতিহাসও উঠে এসেছে তাঁর গল্পে। বইটি প্রকাশ করেছে অন্যপ্রকাশ। প্রচ্ছদ করেছেন মাসুক হেলাল। দাম ২০০ টাকা।

প্রিন্স উইলিয়ামের আংটির খোঁজে : কিশোর গোয়েন্দা উপন্যাসটির লেখক জনপ্রিয় ও বিশিষ্ট কথাসাহিত্যিক মোস্তফা কামাল। অনেক দিন ধরেই তিনি লিখছেন রহস্য ও গোয়েন্দা উপন্যাস। সাহিত্যের অন্যান্য ধারার মতো এ শাখায়ও তিনি অর্জন করেছেন খ্যাতি, পেয়েছেন বিপুল পাঠকের ভালোবাসা। তাঁর জনপ্রিয় গোয়েন্দা ‘ফটকুমামা’ সিরিজের এ নতুন উপন্যাস প্রকাশ করেছে অনন্যা। প্রচ্ছদ এঁকেছেন ধ্রুব এষ।

মোস্তফা কামালের রচনা অত্যন্ত ঝরঝরে, আকর্ষণীয়। সহজ ও তরতাজা ভাষায় তিনি এ উপন্যাসে তুলে ধরেছেন রোমাঞ্চকর কাহিনি। তাতে দেখা যায়, তোলপাড় ফেলা এক চুরির ঘটনা ঘটে ব্রিটিশ রাজপরিবারে। চুরি হয়ে যায় প্রিন্স উইলিয়ামের বিয়ের আংটি। দেশ-বিদেশের বাঘা বাঘা গোয়েন্দা নেমে পড়ল মাঠে। সবাই যখন ব্যর্থ, তখন ডাক পড়ে বাংলাদেশের গোয়েন্দা ফটকুমামার। দলবলসহ তিনি ছুটে যান লন্ডনে। তারপর ঘটে নানা উত্তেজনাকর ও চমকপ্রদ ঘটনা। কিশোর পাঠকদের আনন্দের খোরাক হতে পারে বইটি। মূল্য ১৫০ টাকা।

ফেরা না-ফেরার গল্প : লেখক মাহবুবুল হক শাকিল। কবিতার পাশাপাশি জীবনের শেষ প্রান্তে তিনি গল্পও লিখতে শুরু করেছিলেন। মাত্র ছয়টি গল্প লিখেছেন, কিন্তু তাতেই বোদ্ধারা বিস্মিত তাঁর সহজাত প্রতিভায়। তাঁর গল্পে মূর্ত হয়ে উঠেছে চারপাশের বাস্তবতা, বন্ধুত্ব, দেশপ্রেম, জঙ্গিগোষ্ঠীর  অপতৎপরতা, শেকড়চ্যুত মানুষের একাকিত্ব ও যন্ত্রণা। এসব গল্প ঠাঁই পেয়েছে তাঁর একমাত্র গল্পগ্রন্থ ‘ফেরা না-ফেরার গল্প’তে। বইটি প্রকাশ করেছে অন্যপ্রকাশ। প্রচ্ছদ করেছেন ধ্রুব এষ। মূল্য ১৫০ টাকা।

অন্যান্য নতুন বই : গ্রন্থমেলার তথ্যকেন্দ্র থেকে জানা যায়, গতকাল দশম দিনে নতুন ৩১৩টি বই এসেছে। এর মধ্যে গল্প ৪১, উপন্যাস ৬৪, প্রবন্ধ আট, কবিতা ১০৯, গবেষণা পাঁচ, ছড়া ৯, শিশুসাহিত্য ছয়, জীবনী ছয়, মুক্তিযুদ্ধ ছয়, নাটক দুই, বিজ্ঞান তিন, ভ্রমণ তিন, ইতিহাস তিন, রাজনীতি দুই, চিকিৎসা/স্বাস্থ্য এক,  রম্য/ধাঁধা চার, ধর্মীয় এক, বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনি সাত এবং অন্যান্য বিষয়ের ওপর ৩৩টি বই। এদিন ৪৩টি নতুন বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করা হয়।

গতকাল এসেছে সাংবাদিক-লেখক মুস্তাফিজ শফির দুটি নতুন বই। এর মধ্যে উপন্যাস ‘ঈশ্বরের সন্তানেরা’ প্রকাশ করেছে কথাপ্রকাশ এবং তাঁর পুরস্কারপ্রাপ্ত ও আলোচিত আটটি ধারাবাহিক প্রতিবেদন নিয়ে ‘নির্বাচিত অনুসন্ধান’ প্রকাশ করেছে রয়েল পাবলিশার্স। এর আগে এ মেলায় অন্যপ্রকাশ থেকে প্রকাশ পেয়েছে তাঁর কবিতার বই ‘মায়া মেঘ নির্জনতা’। এ ছাড়া কথাপ্রকাশ থেকে প্রকাশিত হওয়া কবি-সাহিত্যিক মাহবুব আজীজের উপন্যাস ‘মন্দ্রজাল’, ছোট গল্প ‘ঘোর অথবা অনন্ত তৃষার গল্প’ এবং কাব্যগ্রন্থ ‘নিঃসঙ্গতার মতো একা’ তৈরি করেছে পাঠকের আগ্রহ।

মেলামঞ্চের আয়োজন : গতকাল মেলার মূল মঞ্চে হয় ‘রাষ্ট্রভাষা আন্দোলনের সূচনা ও ১১ই মার্চ ১৯৪৮’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। এতে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব গোলাম কুদ্দুছ।   আলোচনায় অংশ নেন আহমাদ মাযহার ও মো. মশিউর রহমান। সভাপতিত্ব করেন অর্থনীতিবিদ ড. আতিউর রহমান। সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে ছিল বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠীর পরিবেশনা এবং আবুল ফারাহ্ মো. তোয়াহার পরিচালনায় সাংস্কৃতিক সংগঠন কেন্দ্রীয় খেলাঘর আসরের শিল্পীরা।

আজকের আয়োজন : আজ শনিবার বিকেলে মেলার মূল মঞ্চে অনুষ্ঠিত হবে ‘আবদুল গফুর হালী :  জীবন ও কর্ম’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন নাসির উদ্দিন হায়দার।   আলোচনায় অংশগ্রহণ করবেন রাহমান নাসির উদ্দিন ও সাইমন জাকারিয়া। সভাপতিত্ব করবেন শামসুল হোসাইন। সন্ধ্যায় রয়েছে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।


মন্তব্য