kalerkantho


সকাল থেকে আজ মেলার দ্বার খোলা

নওশাদ জামিল   

১০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



সকাল থেকে আজ মেলার দ্বার খোলা

ফুরিয়ে আসছে মাঘের দিন, প্রকৃতিতে এখন আর শীতের তীব্রতা নেই। দিনভর রৌদ্রোজ্জ্বল আবহ; দুপুরে খানিকটা গরমও অনুভূত হয়, দুপুর পেরিয়ে সন্ধ্যা হতেই বইতে থাকে মনোরম হাওয়া।

ফলে সারা দিনই আবহাওয়া আনন্দময় ও স্বস্তিদায়ক। আর এমন আবহে বিকেল বা সন্ধ্যায় রাজধানীবাসীর অনেকের গন্তব্য একুশে গ্রন্থমেলা। আজ শুক্রবার সাপ্তাহিক ছুটির দিন, বইমেলার তৃতীয় শিশুপ্রহর। তাই বইমেলার দ্বার খুলে যাবে সকাল ১১টায়, চলবে রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত। সকালটা থাকবে শিশুপ্রহর, অভিভাবকের হাত ধরে মেলা প্রাঙ্গণে ছোটাছুটি করবে কোমলমতি শিশু-কিশোর। ফলে সকাল থেকেই শিশুদের পদচারণে জমে উঠবে মেলা। দুপুর ২টার পর থেকে মেলা হয়ে উঠবে সব বয়সের মানুষের মিলনমেলা।

গতকাল বৃহস্পতিবারও বইপ্রেমীদের উচ্ছ্বাসে মেলা ছিল প্রাণবন্ত। টিএসসি চত্বরের চারদিকে রিকশা ও গাড়ির হট্টগোল ঠেলে পুলিশ ব্যারিকেড পেরিয়ে বইমেলার পথে একবার পা রাখলেই মনটা ভালো হয়ে যায়।

হাতছানি দেয় তরতাজা নতুন বইয়ের ঘ্রাণ। নতুন নতুন লেখার সঙ্গে পরিচয় করাতে ঝকঝকে মলাটগুলো আমন্ত্রণী আহ্বান জানাতে থাকে।

সারা দিন কর্মস্থলে কাজের চাপ, নগরজীবনের নানা টানাপড়েন, নিত্যযানজটের ধকল পেরিয়ে মানুষ মেলায় এসে যেন ফিরে পায় প্রাণের স্পন্দন। বইয়ের সান্নিধ্য পেতে তাই প্রতিদিনই বাড়ছে মানুষের সমাগম। আজ শুক্রবার ছুটির দিনে বইয়ের মেলায় প্রাণের জোয়ার আশা করছেন প্রকাশকরা।

গতকাল বিকেল ৩টায় খুলে দেওয়া হয় মেলার দুয়ার। তার পর থেকেই সোহরাওয়ার্দী উদ্যান অংশে প্রবেশ করতে শুরু করে পাঠক ও দর্শনার্থীরা। বিকেল গড়িয়ে সন্ধ্যা নামতেই মেলা হয়ে ওঠে লেখক-প্রকাশক-পাঠকের মিলনমেলা। পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্সের স্বত্বাধিকারী কামরুল হাসান শায়ক বলেন, ‘রাজনৈতিক পরিস্থিতি অত্যন্ত চমত্কার, বইমেলার অবস্থাও তাই। এ বছর প্রতিদিনই লোকসমাগম বাড়ছে মেলায়। সেই সঙ্গে বিক্রিও বাড়ছে। আগামীকাল (আজ) শুক্রবার মেলা তার পরিপূর্ণতা লাভ করবে বলে মনে করছি। ’

রাজধানীর উত্তর বাড্ডা থেকে গতকাল মেলায় এসেছিলেন ষাটোর্ধ্ব আজগর হোসেন। পেশায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক। তিনি বললেন, ‘বইমেলায় আসার জন্য টান অনুভব করি। প্রতিদিন তো আর আসতে পারি না। তবে সময় পেলেই চলে আসি মেলায়। আমার তো মনে হয়, বইমেলায় আসা মানে তীর্থে আসা, জ্ঞানের রাজ্যে আসা। ’

নিরাপত্তা ভালো, মানুষ আসছে নির্ভয়ে : গ্রন্থমেলায় এবার নিরাপত্তাব্যবস্থা খুব ভালো, ক্রেতা-দর্শনার্থীও আসছে নির্ভয়ে। মেলায় ঢোকার মুখে কঠিন তল্লাশি। এ ছাড়া চারদিকে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের তীক্ষ নজরদারি। গতকাল সেই নিরাপত্তাব্যবস্থা দেখতে এসেছিলেন ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া। তিনি আওয়ামী যুবলীগের যুবজাগরণ স্টলও পরিদর্শন করেন। এ সময় তাঁর সঙ্গে ছিলেন যুবলীগ চেয়ারম্যান মোহাম্মদ ওমর ফারুক চৌধুরী ও সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশীদসহ কেন্দ্রীয় ও  মহানগর নেতারা। আছাদুজ্জামান মিয়া কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমরা মেলার শুরু থেকেই কয়েক স্তরের নিরাপত্তাব্যবস্থা গ্রহণ করেছি। এখনো সেভাবে চলছে। পোশাকে ও সাদা পোশাকে নিরাপত্তারক্ষীরা নিরন্তর কাজ করছেন। মেলার নিরাপত্তার জন্য এর আশপাশের এলাকার সমস্ত হকার ও ফুটপাতে অবস্থিত বিভিন্ন দোকানপাট তুলে দেওয়া হয়েছে। এর পরও যদি কেউ বাড়তি নিরাপত্তা চায় তাহলে আমরা সে ক্ষেত্রে বিশেষ নিরাপত্তা দেওয়ার ব্যবস্থা করবো। আমরা আশা করি, সামনের দিনগুলোতেও সবার সহযোগিতায় এভাবেই নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পারব। ’

বইমেলায় আসা চারটি নির্বাচিত বইয়ের তথ্য-পরিচিতি স্মৃতিতে নয়, স্বপ্নেও না : বিশিষ্ট কথাসাহিত্যিক জ্যোতিপ্রকাশ দত্তের গল্পগ্রন্থ। ষাটের দশক থেকেই গল্পের সঙ্গে তাঁর বসত। লিখছেন শুধু গল্পই। তবে কয়েক বছর ধরে লিখছেন নভেলা। তাঁর লেখা স্বতন্ত্র ও গীতিময়। কবিতার মতো সুরেলা, ইঙ্গিতময় ও রহস্যপূর্ণ। বইটি প্রকাশ করেছে পাঞ্জেরী পাবলিকেশন্স। প্রচ্ছদ করেছেন ধ্রুব এষ। দাম ১৫০ টাকা।

তুমি খুব ভালো মেয়ে : উপন্যাসটির লেখক ইমদাদুল হক মিলন। বাংলা সাহিত্যের জনপ্রিয় এ লেখক গল্প, উপন্যাস, শিশুসাহিত্যসহ সাহিত্যের নানা শাখায় উপহার দিয়েছেন কালজয়ী বহু রচনা। উপন্যাসে তাঁর একটি জনপ্রিয় চরিত্র কবি। দেবদূতের মতো দেখতে এ যুবক জড়িয়ে যায় নানা ঘটনায়। ফিজা নামের এক অসামান্য রূপবতী তরুণীর সঙ্গে জড়িয়ে যায় সে। মেয়েটি আত্মহত্যা করতে চায়। কেন, কোন কারণে? কবি কি বাঁচাতে পারবে মেয়েটিকে? ভালোবাসা, সম্পর্ক আর মানবিক নানা দিক নিয়ে গড়ে উঠেছে এ উপন্যাস। বইটি প্রকাশ করেছে পার্ল পাবলিকেশন্স। প্রচ্ছদ করেছেন ধ্রুব এষ। দাম ১৫০ টাকা।

সাস্টে ২২ বছর : বইটির লেখক ড. ইয়াসমীন হক। তিনি শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক। তাঁর স্বামী দেশের জনপ্রিয় লেখক মুহম্মদ জাফর ইকবাল। শিক্ষকতা ছাড়াও তাঁর আরেকটি পরিচয় হচ্ছে তিনি একজন লেখক। গ্রন্থমেলায় তাম্রলিপি প্রকাশ করেছে তাঁর এ বই। বইটিতে তিনি তুলে ধরেছেন শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে তাঁর শিক্ষকতা, আন্দোলন, শিক্ষক-সহকর্মী ও শিক্ষার্থীদের নিয়ে তাঁর অভিজ্ঞতা, স্মৃতিকথা। পাশাপাশি মেলে ধরেছেন স্বামী ও সহকর্মী মুহম্মদ জাফর ইকবালের কথাও। বইটির প্রচ্ছদ করেছেন শিবু কুমার শীল। দাম ৩৩৫ টাকা।

দূর-সম্পর্ক : উপন্যাসটির লেখক বিশ্বজিৎ চৌধুরী। শিশুসাহিত্য দিয়ে লেখালেখি শুরু করলেও তাঁর সৃজনীর প্রকাশ ঘটেছে সাহিত্যের শাখা-প্রশাখায়। কবিতা, গল্প, উপন্যাস, নাটকসহ নানা মাধ্যমে কাজ করে অর্জন করেছেন মনস্বী পাঠকের ভালোবাসা। এবার মেলায় প্রথমা থেকে প্রকাশিত হয়েছে তাঁর এ উপন্যাস। বইটির প্রচ্ছদ করেছেন মাসুক হেলাল। দাম ২২০ টাকা।

মোড়ক উন্মোচন : গতকাল মেলায় ১৯টি নতুন বইয়ের মোড়ক উন্মোচন হয়েছে। এর মধ্যে তাম্রলিপি থেকে প্রকাশিত ড. আমিনুর রহমান সুলতান সম্পাদিত ‘৬৪ জেলার কিশোর মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস’ গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করেন মুহম্মদ জাফর ইকবাল। মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে এ কাজের প্রশংসা করে তিনি বলেন, ‘একটা সময় ছিল দেশে মুক্তিযুদ্ধের কথা বলা যেত না। মুক্তিযোদ্ধারা নিজেদের পরিচয় দিতেন না। এমন সময় ছিল রাজাকাররা দেশের মন্ত্রী হয়েছিলেন। সেই সময় আজ গত হয়েছে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনালালিত সময় ফিরে এসেছে। এখন মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় আমাদের ভবিষ্যৎ গড়ার সময়। ’

গণসংগীতশিল্পী ফকির আলমগীরের দুটি গ্রন্থেরও মোড়ক উন্মোচন হয় গতকাল। অনন্যা থেকে ‘নির্বাচিত প্রবন্ধ’ ও ‘ইউরোপের পথে পথে’ এ দুটি গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করেন বেসামরিক বিমান ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুছ, ফকির আলমগীর, অনন্যার প্রকাশক মনিরুল হক।

নতুন বই : গ্রন্থমেলার তথ্যকেন্দ্র থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী, গতকাল মেলার নবম দিনে ১২৫টি নতুন বই প্রকাশ পেয়েছে। এর মধ্যে গল্প ২৪, উপন্যাস ২৭, প্রবন্ধ সাত, কবিতা ২৮, গবেষণা দুই, ছড়া পাঁচ, শিশুসাহিত্য এক, জীবনী তিন, মুক্তিযুদ্ধ দুই, নাটক দুই, বিজ্ঞান এক, ভ্রমণ এক, ইতিহাস দুই, চিকিৎসা/স্বাস্থ্য দুই, বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনি এক এবং অন্যান্য বিষয়ের ওপর আরো ১৭টি বই।

গ্রন্থমেলায় এসেছে জনপ্রিয় কথাসাহিত্যিক মোস্তফা কামালের চারটি নতুন বই। কথা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “চারটি বইয়ের সঙ্গে জড়িয়ে আছে সমান ভালোবাসা। তবে ‘অগ্নিকন্যা’ উপন্যাসটির প্রতি বিশেষ ভালোবাসা রয়েছে। বইটি আমার দীর্ঘ পরিশ্রমের ফসল। ইতিহাসভিত্তিক তিন পর্বের ধারাবাহিক উপন্যাসের প্রথম পর্ব এটি। বইটি এনেছে পার্ল পাবলিকেশন্স। এ ছাড়া অন্যপ্রকাশ থেকে প্রকাশিত হয়েছে প্রেমের উপন্যাস ‘রূপবতী’। অনন্যা প্রকাশ করেছে কিশোর গোয়েন্দা উপন্যাস ‘প্রিন্স উইলিয়ামের আংটির খোঁজে’ ও রম্য বিদ্রূপ রচনা ‘কিছু হাসি কিছু রম্য’। ” প্রতিটি বই-ই পাঠকের মনোযোগ আকৃষ্ট করতে সক্ষম হয়েছে বলে জানিয়েছেন বইগুলোর প্রকাশকরা।

মূল মঞ্চের আয়োজন : গতকাল মেলার মূল মঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় ‘বাংলা ভাষায় ইতিহাস চর্চা’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন অধ্যাপক ড. মো. মাহবুবর রহমান। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন অধ্যাপক মেসবাহ কামাল ও ড. আশফাক হোসেন। সভাপতিত্ব করেন ইতিহাসবিদ অধ্যাপক মুনতাসীর মামুন। সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সংগীত পরিবেশন করেন কণ্ঠশিল্পী ফরিদা পারভীন, দিল আফরোজ রেবা, আকরামুল ইসলাম ও পাগলা বাবলু।

আজকের অনুষ্ঠান : আজ শুক্রবার বিকেলে গ্রন্থমেলার মূল মঞ্চে অনুষ্ঠিত হবে ‘রাষ্ট্রভাষা আন্দোলনের সূচনা ও ১১ই মার্চ ১৯৪৮’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব গোলাম কুদ্দুছ। আলোচনায় অংশগ্রহণ করবেন আহমাদ মাযহার এবং মো. মশিউর রহমান। সভাপতিত্ব করবেন অর্থনীতিবিদ ড. আতিউর রহমান। সন্ধ্যায় রয়েছে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।


মন্তব্য