kalerkantho


সাংবাদিক শিমুল হত্যা

মেয়র মিরু জেলে, রিমান্ডে চায় পুলিশ

সিরাজগঞ্জ ও শাহজাদপুর প্রতিনিধি   

৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



মেয়র মিরু জেলে, রিমান্ডে চায় পুলিশ

সাংবাদিক শিমুল

সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে সাংবাদিক আব্দুল হাকিম শিমুল হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার স্থানীয় পৌরসভার মেয়র হালিমুল হক মিরুকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। গতকাল সোমবার তাঁকে সাত দিন হেফাজতে রেখে জিজ্ঞাসাবাদের (রিমান্ড) আবেদন জানিয়ে আদালতে সোপর্দ করে  পুলিশ।

গত রবিবার রাতে রাজধানীর শ্যামলী থেকে পুলিশ মেয়র মিরুকে গ্রেপ্তার করে। এর আগে মিরুর দুই ভাইসহ সাতজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

সকাল ১১টার দিকে সিরাজগঞ্জের পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলন করে পুলিশ সুপার মিরাজ উদ্দিন আহমদ বলেন, ঢাকায় গ্রেপ্তার হওয়া শাহজাদপুর পৌরসভার মেয়র হালিমুল হক মিরুকে রাতেই সিরাজগঞ্জ আনা হয়েছে। সাংবাদিক শিমুলের মাথায় যে সিসার বল পাওয়া গেছে সেটির সঙ্গে মেয়রের শটগানের ব্যালিস্টিক টেস্ট করা হবে। তাতে নিশ্চিত হওয়া যাবে কার বুলেটে শিমুল নিহত হয়েছেন।

পুলিশ সুপার বলেন, মেয়র মিরুকে প্রাথমিকভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদে তিনি গুলি  ছোড়ার কথা স্বীকার করেননি। সে কারণে তাঁকে রিমান্ডে নেওয়ার জন্য আদালতে আবেদন করা হচ্ছে।

সংবাদ সম্মেলন শেষে দুপুরে মেয়র মিরুকে সিরাজগঞ্জের অতিরিক্ত মুখ্য বিচার বিভাগীয় হাকিম আদালতে হাজির করা হয়।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মনিরুল ইসলাম তাঁর সাত দিনের রিমান্ড আবেদন জানান। মামলাটি শাহজাদপুর আমলি আদালতে হওয়ায় বিচারক মোরশেদ আলমের রিমান্ড আবেদনটি ওই আদালতে করার জন্য বলেন এবং মেয়রকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

এর আগে রবিবার রাতে শিমুল হত্যাকাণ্ডের প্রধান আসামি মেয়র হালিমুল হক মিরুকে গ্রেপ্তারের খবর ছড়িয়ে পড়লে এলাকার মানুষ আনন্দ মিছিল ও মিষ্টি বিতরণ করে। গতকাল বিকেলে প্রতিবাদ মিছিলের মধ্য দিয়ে শেষ হয় সাংবাদিকদের তিন দিনের কর্মসূচি। এ সময় বক্তারা বলেন, শুধু গ্রেপ্তার নয়, অভিযুক্ত আসামিদের শাস্তি নিশ্চিত করার জন্যও ব্যবস্থা নিতে হবে।

একই সময় শাহজাদপুর উপজেলা আওয়ামী লীগ মেয়র মিরুসহ শিমুল হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে। উপজেলা আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয় থেকে মিছিলটি বের হয়ে পৌর সদরের বিভিন্ন সড়ক ও প্রেস ক্লাব ঘুরে উপজেলা পরিষদ চত্বরে এসে শেষ হয়। এ সময় মেয়রের কুশপুত্তলিকা দাহ করা হয়। সমাবেশে বক্তব্য দেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আজাদ রহমান, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মুস্তাক আহমেদ, ভিপি রহিম, আশিকুল হক দিনার, লিয়াকত হোসেন প্রমুখ।

উল্লেখ্য, রবিবার দুপুরে সিরাজগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের নেতা মেয়র মিরুসহ দলের দুই নেতাকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

মেয়রকে গ্রেপ্তারের খবর পাওয়ার পর শিমুলের গ্রামের বাড়ি মাদলা এলাকার বাসিন্দারা রবিবার রাতেই মিছিল করে। একই সঙ্গে তারা দোষীদের শাস্তি নিশ্চিত করার দাবি জানায়।

শিমুলের স্ত্রী নুরুন্নাহার বলেন, অপরাধীরা অনেক প্রভাবশালী। সে কারণে তাঁরা মামলা নিয়ে আশঙ্কায় আছেন। মামলা প্রভাবিত হয়ে যেন ভিন্ন খাতে না যায় সে দাবি করেন তিনি।

গত বৃহস্পতিবার দুপুরে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের সময় মেয়র গুলি ছুড়লে সমকাল প্রতিনিধি আব্দুল হাকিম শিমুল মাথায় গুলিবিদ্ধ হন। পরদিন বগুড়া থেকে ঢাকা নেওয়ার পথে তাঁর মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় শুক্রবার শিমুলের স্ত্রী নুরুন্নাহার একটি মামলা করেন।


মন্তব্য