kalerkantho


যাত্রাবাড়ীতে সিলিন্ডার বিস্ফোরণে ২ জনের মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক   

৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



যাত্রাবাড়ীতে সিলিন্ডার বিস্ফোরণে ২ জনের মৃত্যু

রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে বেলুনে গ্যাস ভরার সময় সিলিন্ডার বিস্ফোরিত হয়ে দুজনের মৃত্যু হয়েছে। তাঁরা হলেন সাইকুল (৪০) ও জুনু (২০)।

এ ঘটনায় দগ্ধ হয়েছেন আরো দুজন। গতকাল রবিবার দুপুরে শেখদি বটতলা গুটিবাড়ী এলাকার একটি টিনশেড বাসায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

ঢাকা মহানগর পুলিশের ওয়ারী বিভাগের উপকমিশনার (ডিসি) ফরিদউদ্দিন জানান, দুপুরে বেলুনে গ্যাস ভরার সময় বিস্ফোরণ ঘটে। এতে ঘটনাস্থলে দুজনের মৃত্যু হয়।

আহত দুজনকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। চিকিৎসকরা বলছেন, তাঁদের অবস্থাও আশঙ্কাজনক।

যাত্রাবাড়ী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) তোফায়েল আহমেদ বলেন, স্থানীয় লিলি বেগমের বাসায় হতাহতরা থাকতেন। তাঁরা বইমেলায় বিক্রির জন্য বেলুন প্রস্তুত করছিলেন। মৃত জুনুর বাবার নাম নাসির।

তাঁদের বাড়ি হবিগঞ্জের লাখাই উপজেলায়। মৃত সাইকুলের বাড়ি একই উপজেলায়। তাঁর বাবার নাম ইসমাইল।

 

স্থানীয় লোকজন বলছে, দুপুরে ভূমিকম্পের মতো বাসাটি কেঁপে ওঠে। ঘটনাস্থলে মানুষের শরীরের খণ্ড-বিখণ্ড অংশ পড়ে থাকতে দেখা যায়। পরে পুলিশে খবর দেওয়া হয়।

যাত্রাবাড়ী থানার ওসি আনিসুর রহমান জানান, সেমি পাকা একতলা ঘরে চার-পাঁচজন একসঙ্গে বসবাস করে গ্যাস বেলুন বিক্রির কাজ করতেন। গতকাল বিকট আওয়াজে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এতে ঘরের এক পাশের দেয়াল ভেঙে চূর্ণ-বিচূর্ণ হয়ে যায়। নিহত দুজনের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য স্যার সলিমুল্লাহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে বলেও জানান তিনি।

অটোরিকশার ধাক্কায় নিহত ১ : এদিকে কারওয়ান বাজারে সোনারগাঁও হোটেলের সামনে সিএনজিচালিত অটোরিকশার ধাক্কায় সাইদুর রহমান (৪০) নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। পথচারী আবীর হোসেন জানান, গতকাল দুপুর ২টার দিকে সোনারগাঁও হোটেলের সামনে রাস্তা পার হওয়ার সময় একটি সিএনজিচালিত অটোরিকশার ধাক্কায় সাইদুর রাস্তায় ছিটকে পড়ে যান। পরে তাঁকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

মৃতের ছোট ভাই আবদুস সালাম জানান, তাঁদের গ্রামের বাড়ি সিরাজগঞ্জ জেলার উল্লাপাড়া এলাকার ঘোষগাঁও গ্রামে। তাঁদের বাবার নাম মৃত সাখাওয়াত হোসেন সিরাজ। তাঁরা একসঙ্গে মিরপুরের আমতলা পীরেরবাগ এলাকায় থাকতেন। সাইদুর একটি ওষুধ কম্পানিতে চাকরি করতেন বলেও জানান তিনি।


মন্তব্য