kalerkantho


পুলিশের চেকপোস্টে হামলা

রোহিঙ্গাদের নিয়ে নতুন ছক এবিটির

এস এম আজাদ   

৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



রোহিঙ্গাদের নিয়ে নতুন ছক এবিটির

নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের (এবিটি) সদস্যরা মিয়ানমারে নির্যাতনের শিকার রোহিঙ্গাদের নিজেদের দলে ভেড়াতে চাইছে। এ জন্য আত্মগোপনে থাকা এবিটির একটি দল মিয়ানমার সীমান্তে যাওয়ার পরিকল্পনা করছে। একই সঙ্গে তারা ঢাকায় নতুনভাবে হামলার ছক কষছে। আর এই হামলায় তারা গানপাউডার ও এসিড ব্যবহার করতে পারে। গত মঙ্গলবার মধ্যরাতে পুরান ঢাকার বাবুবাজার ব্রিজের কাছে পুলিশের চেকপোস্টে হামলাকারী এবিটির সদস্য জুবায়েরকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এসব তথ্য পেয়েছে পুলিশ। জুবায়ের জানিয়েছে, ওই রাতে দুই সহযোগীসহ এসিড ও গানপাউডার নিয়ে কেরানীগঞ্জের আস্তানায় যাচ্ছিল তারা।

পুলিশ কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, জুবায়েরসহ এবিটির অজ্ঞাতপরিচয় দুই সদস্যের (পালিয়ে যাওয়া) বিরুদ্ধে গতকাল বৃহস্পতিবার বংশাল থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে এবং এসিড নিক্ষেপের ঘটনায় দুটি মামলা করেছে পুলিশ। জুবায়েরের কাছ থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু হয়েছে। উদ্ধারকৃত মোটরসাইকেলের মালিকানা যাচাই করা হচ্ছে। এ ছাড়া উদ্ধারকৃত এসিড ও গানপাউডার পরীক্ষার জন্য পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগে (সিআইডি) পাঠানো হয়েছে।

বংশাল থানার ওসি নূরে আলম মিয়া গতকাল কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘জুবায়ের ও অজ্ঞাতপরিচয় দুজনের বিরুদ্ধে দুটি মামলা হয়েছে। এর মধ্যে একটি হামলা ও বিস্ফোরক উদ্ধারের ঘটনায়, অন্যটি এসিড নিক্ষেপের ঘটনায়।’ তিনি আরো বলেন, ‘জুবায়ের এবিটির সদস্য বলে স্বীকার করেছে। তার কাছে থাকা ব্যাগে গানপাউডার, এসিড ও বিশেষ এক ধরনের টর্চলাইট পাওয়া গেছে। মোটরসাইকেলটিও উদ্ধার করা গেছে। এগুলো পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে। আমরা কিছু তথ্য পেয়েছি, যা যাচাই করা হচ্ছে।’

তদন্তসংশ্লিষ্ট আরেক কর্মকর্তা কালের কণ্ঠকে বলেন, জুবায়ের জানিয়েছে সে এবিটির সক্রিয় সদস্য। পুরনো অনেক জঙ্গির সঙ্গে তার পরিচয় আছে। সে চট্টগ্রামের হাটহাজারী মাদ্রাসার পর ঢাকায় একটি মাদ্রাসায় লেখাপড়া করে। বর্তমানে জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠানে (পঙ্গু হাসপাতাল) চিকিৎসাধীন জুবায়েরকে পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিটের কর্মকর্তারা জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। গতকাল পর্যন্ত মামলাটির তদন্ত বংশাল থানা পুলিশ করলেও এটি সিটিটিসিতে স্থানান্তর করার প্রক্রিয়া চলছে। ওই কর্মকর্তা আরো বলেন, জুবায়ের জিজ্ঞাসাবাদে জানায়, এবিটির একটি দল মিয়ানমারে যাওয়ার পরিকল্পনা করছে। সেখানে নির্যাতনের শিকার রোহিঙ্গাদের নিজেদের দলে ভেড়াতে চায় তারা। নতুন হামলার জন্য তারা অস্ত্র হিসেবে এসিড ও গানপাউডারকে বেছে নিয়েছে। মঙ্গলবার রাতে তাদের কাছ থেকে একটি টর্চলাইট উদ্ধার করা গেছে। এই চর্টলাইটের আলো শরীরে পড়লে বিদ্যুতায়িত হওয়ার মতো অনুভূতি হয়। জুবায়ের জানিয়েছে, গানপাউডার ও এসিডের এ চালানটি কেরানীগঞ্জে জঙ্গিদের একটি আস্তানায় পৌঁছে দেওয়ার কথা ছিল তাদের। তবে অন্য একটি সূত্র থেকে পুলিশ জেনেছে, মঙ্গলবার রাতে তারা শ্যামপুরে একটি এলাকায় হামলার টার্গেট নিয়েছিল। এসব তথ্য যাচাই করছে পুলিশ। বংশালের আব্দুল গনি মিয়ার ছেলে জুবায়েরের সঙ্গে কার কার যোগাযোগ আছে তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। কামরাঙ্গীর চরে তাদের ভাড়া বাসায়ও খোঁজ নিচ্ছে পুলিশ।

সূত্র জানায়, মঙ্গলবার রাতে তিন জঙ্গি মাথায় নকল চুল পরে প্রায় ৫০০ গ্রাম গানপাউডার ও এসিডের চালান নিয়ে জঙ্গি আস্তানায় যাচ্ছিল। তবে পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তির সময় বেশ কিছু গানপাউডার রাস্তায় পড়ে যায়। এর পরও একটি ব্যাগে ১০০ গ্রাম গানপাউডার অবশিষ্ট ছিল। এসিডের বোতলও ভেঙে গেছে। এসব আলামত পরীক্ষার জন্য সিআইডির ল্যাবে পাঠানো হয়েছে।

গত মঙ্গলবার রাতে বাবুবাজার ব্রিজের কাছে চেকপোস্টে থাকার সংকেত অমান্য করে পুলিশের ওপর হামলা চালায় তিন মোটরসাইকেল আরোহী। এ সময় তাদের ছোড়া এসিডে রফিকুল আলম নামে এক কনস্টেবল দগ্ধ হয়েছেন। তিনি ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন। এসিড ছুড়ে পালানোর সময় পুলিশের গুলিতে জুবায়ের আলম নামে এক যুবক আহত হয়।  এ ঘটনায় পুলিশের এক সহকারী উপপরিদর্শকও (এএসআই) আহত হয়েছেন। তাঁর নাম নুরুজ্জামান।

প্রসঙ্গত, ২০১৫ সালে ব্লগার রাজীব হায়দারকে হত্যার পর একের পর এক হামলা ও হত্যায় আলোচিত হয়ে ওঠে এবিটি। গত বছর এই সংগঠনকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করে সরকার। ওই বছর এপ্রিলে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র নাজিমুদ্দিন সামাদকে হত্যার পর এবিটি বড় ধরনের কোনো অপারেশন চালাতে পারেনি। এই সংগঠনের সামরিক নেতা মেজর (চাকরিচ্যুত) জিয়াউল হক এখনো ধরাছোঁয়ার বাইরে।


মন্তব্য