kalerkantho


বিটিআরসির সিদ্ধান্ত

মোবাইল গ্রাহকরা সব কল ও এসএমএসের বিবরণী পাবেন

কাজী হাফিজ   

২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০



মোবাইল গ্রাহকরা সব কল ও এসএমএসের বিবরণী পাবেন

কবে, কোথায়, কাদের কল বা এসএমএস করেছেন, কলের স্থায়িত্ব কত—দেশে মোবাইল ফোনের গ্রাহকদের এসব তথ্যপ্রাপ্তি ছিল প্রায় অসম্ভব। এখন থেকে গ্রাহকরা এসব তথ্য চেয়ে আবেদনের দিন থেকে আগের ৬০ দিনের সিডিআর বা কল ডিটেইলস রেকর্ড পাবে।

আবেদনের সাত কার্যদিবসের মধ্যে গ্রাহককে এসব তথ্য দিতে হবে। নিয়ন্ত্রক প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন অ্যান্ড রেগুলেটরি কমিশনের (বিটিআরসি) সাম্প্রতিক এক সভায় এসব সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

বিভিন্ন অপারেটরের প্রি-পেইড মোবাইল গ্রাহকরা আগে তথ্য চেয়ে সেবা কেন্দ্রগুলোয় আবেদন করলে জবাব পাওয়া যেত, ‘অনুমতি নেই। আমরা শুধু আইটেম অনুসারে বিলের তথ্য দিতে পারি। এতে আউট গোয়িং কলের তথ্য পাওয়া গেলেও ইনকামিং কলের তথ্য পাওয়া যাবে না। ’ পোস্ট পেইড গ্রাহকরাও সব অপারেটরের কাছ থেকে ইনকামিং কলের তথ্য পেত না। এসএমএসের তথ্য তো কেউই পেত না। এ বিষয়ে বিটিআরসির কাছে আবেদন করলে বলা হতো, ‘আমরাও গ্রাহকপর্যায়ে এ ধরনের কোনো তথ্য দিই না। ’ এ অবস্থায় গ্রাহকদের স্বার্থ বিবেচনায় নিয়ে অবশেষে বিটিআরসিই অপারেটরদের এসব তথ্য প্রদানে নির্দেশনা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

  

বিটিআরসির ২০১তম সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, গ্রাহকরা আবেদনের দিন থেকে আগের ৬০ দিনের সিডিআর পাবে। এতে থাকবে সব ইনকামিং ও আউটগোয়িং কল এবং এসএমএসের তথ্য। কলগুলোর সময়, তারিখ, স্থায়িত্বও জানাতে হবে। আবেদনের সাত কার্যদিবসের মধ্যে এসব তথ্য দিতে হবে সংশ্লিষ্ট অপারেটরকে।

সভার কার্যপত্রে বলা হয়, ‘সম্প্রতি লক্ষ করা যাচ্ছে যে মোবাইল ফোন গ্রাহকরা পারিবারিক ও ব্যবসায়িকসহ নানাবিধ কারণে তাদের কললিস্ট তথা ইনকামিং ও আউটগোয়িং কলের তালিকা চেয়ে সংশ্লিষ্ট অপারেটরের কাস্টমার কেয়ার সেন্টারগুলোয় আবেদন করছে। কিন্তু সেন্টারগুলো শুধুু আইটেমওয়াইজ বিলের তালিকা দিতে চাচ্ছে। গ্রাহকরা বিটিআরসিতেও তাদের সিডিআর পাওয়ার জন্য আবেদন করছে। কিন্তু বিটিআরসি থেকে গ্রাহক পর্যায়ে তা দেওয়ার প্রচলন নেই। এ অবস্থায় এ বিষয়ে সার্বিক সহযোগিতার জন্য মোবাইল অপারেটরদের নির্দেশনা দেওয়া যেতে পারে। ’

সভায় সিদ্ধান্ত দেওয়া হয়, সিডিআরপ্রাপ্তির আবেদনের ক্ষেত্রে গ্রাহককে বায়োমেট্রিক ভেরিফিকেশন-সংক্রান্ত কাগজপত্র, জাতীয় পরিচয়পত্র ও চালু সিমসহ সংশ্লিষ্ট অপারেটরের কাস্টমার কেয়ার সেন্টারে হাজির হতে হবে। কাস্টমার কেয়ার সেন্টার সিমের মালিকানা যাচাই করে আবেদন গ্রহণ করবে। এ বিষয়ে মোবাইল অপারেটরদের নির্দেশনা দিতে বিটিআরসি তাদের সিস্টেম অ্যান্ড সার্ভিসেস বিভাগকে নির্দেশ দেয়।

যোগাযোগ করা হলে বিটিআরসির সচিব ও মুখপাত্র মো. সরওয়ার আলম কালের কণ্ঠকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন। তবে গতকাল বুধবার অপারেটরদের কাস্টমার কেয়ার সেন্টারগুলোর কর্মীদের কাছে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বিটিআরসির ওই নির্দেশনার কথা এখনো তারা জানে না।

এ বিষয়ে ধানমণ্ডি ২৭ নম্বর রোডে গ্রামীণফোনের কাস্টমার কেয়ার সেন্টার থেকে বলা হয়, ‘আমরা এ বিষয়ে প্রি-পেইড গ্রাহকদের আবেদনের ক্ষেত্রে দুই মাসের আইটেমওয়াইজ বিলের তালিকা দিয়ে থাকি। এতে আউটগোয়িং কলের তথ্য পাওয়া যাবে। আর পোস্ট পেইড গ্রাহকদের জন্য দুই মাসের ইনকামিং ও আউটগোয়িং কলের তথ্য দেওয়া হয়। তথ্য দেওয়ার ক্ষেত্রে প্রি-পেইড ও পোস্ট পেইড উভয় গ্রাহককে প্রতি এক মাসের তথ্যের জন্য সার্ভিস চার্জ হিসেবে ১১৫ টাকা দিতে হবে।

মানিক মিয়া এভিনিউ-সংলগ্ন টেলিটকের কাস্টমার কেয়ার সেন্টার থেকে বলা হয়, সেখানে প্রি-পেইড ও পোস্ট পেইড কোনো গ্রাহককেই ইনকামিং কলের তথ্য দেওয়া হয় না।

এদিকে সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, দুর্নীতি দমন কমিশন, বিচার বিভাগ, আইন প্রয়োগকারী সংস্থাসহ বিভিন্ন তদন্ত সংস্থাকে কোনো গ্রাহকের কল বিবরণী বা সিডিআর বিটিআরসির অনুমোদনের মাধ্যমেই দেওয়ার নির্দেশনা রয়েছে। গত বছরের মাঝামাঝি সময়ে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। একই সঙ্গে সিডিআর প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য ফোকাল পয়েন্ট হিসেবে দুজন কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়।


মন্তব্য